সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় ই-তথ্য সেবাকেন্দ্রের পরিচালক ফয়সল রানার ভিডিও ফুটেজ নিয়ে ফেসবুকে তোলপাড়

unnamed (3)বড়লেখা সংবাদদাতা :: বড়লেখা উপজেলার দক্ষিনভাগ ইউনিয়ন পরিষদের ই-তথ্য সেবাকেন্দ্রের পরিচালক ফয়সল আহমদ রানার লাম্পট্যের একটি ভিডিও ফুটেজ নিয়ে ফেসবুকে ঝড় উঠেছে। প্রবাসীরা রানার লাম্পট্যের শাস্তি দাবী করে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসানের কাছে আবেদন করার পর টনক নড়ে বড়লেখা উপজেলা প্রশাসনের।

জানা যায়, দক্ষিনভাগ ইউনিয়ন পরিষদের ই-তথ্য সেবাকেন্দ্রের পরিচালক ফয়সল আহমদ রানা দীর্ঘদিন থেকে-তথ্য সেবাকেন্দ্রে আসা মহিলাদের সাথে নানা কু-কর্ম করে তার অফিসের ল্যাপটপ কম্পিউটারে ভিডিও ধারন করে রাখত। ২০১৪ সালের জানুয়ারী মাসে এ রকম একটি ভিডিও চতুর্দিকে চাউর হলে গাংকুল গ্রামের নজরুল ইসলাম নামে এক ব্যাক্তি বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আমিনুর রহমানের কাছে লিখিত আবেদন করে ফয়সল আহমদ রানার লাম্পট্যের শাস্তির দাবী করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উক্ত বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দক্ষিনভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজির উদ্দিনকে নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে তা বছর খানেক থেকে ফাইলবন্দি করে রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান।
সম্প্রতি প্রবাসীরা জেলা প্রশাসকের কাছে ভিডিও ফুটেজ পাঠিয়ে এর প্রতিকার দাবী করলে জেলা প্রশাসক বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আমিনুর রহমানকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দিলে তিনি ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিনকে আগের পাঠানো তদন্তের প্রতিবেদন দ্রুত দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন। ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিন তদন্তে ঘটনার সত্যতা পেয়েছেন বলে তদন্ত প্রতিবেদন সম্প্রতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে প্রেরন করেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত দক্ষিনভাগ ইউনিয়ন পরিষদের ই-তথ্য সেবাকেন্দ্রের পরিচালক ফয়সল আহমদ রানা তার দোষ স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি অনেক আগে আপোষে শেষ করে দিয়েছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। কিন্তু প্রবাস থেকে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে নতুন করে আবেদন করায় এবং ফেসবুকে ভিডিও ক্লিপটি ছড়িয়ে দেয়ায় পুরাতন একটি ব্যাপার নিয়ে তার বিরোধীরা অপপ্রচার চালাচ্ছে।
দক্ষিনভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজির উদ্দিন এ ব্যাপারে জানান, আগে আমি মুচলেখা রেখে বিষয়টি শেষ করে দিয়েছিলাম। প্রবাসীরা জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে আবেদন করায় উপজেলা নির্বাহী স্যারের নির্দেশে আমি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছি।
এ ব্যাপারে বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আমিনুর রহমান তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, উপজেলা পরিষদের আগামী সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক পরবর্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: