সর্বশেষ আপডেট : ৩৯ মিনিট ৭ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ ক্ষতিয়ে দেখতে সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতাল পরিদর্শন করলেন ব্যারিস্টার ইমন

emon-300x336আল-হেলাল, সুনামগঞ্জ::
নিজ এলাকা সুনামগঞ্জের সকল সমস্যা সমাধানে দলমত নির্বিশেষে সকলের ঐক্য চান ব্যারিষ্টার এম এনামুল কবীর ইমন। সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ প্রশাসক ব্যারিষ্টার ইমন রোববার জেলা সদর হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে এ কথা বলেন। পরিদর্শনকালে তিনি হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে ঘুরে দেখেন। কর্মচারী কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। হাসপাতালের রোগীদের সাথে মিলিত হন এবং তাদের সুবিধা অসুবিধার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেন। হাসপাতাল পরিদর্শন কালে সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুল হেকিম ও তার সাথে ছিলেন বলে জানা যায়।

হাসপাতাল পরিদর্শনের পর ব্যারিস্টার ইমন বলেন, জেলা সদরের একমাত্র স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্টানটির চেহারা দেখে মনে হচ্ছে এটি নিজেই অসুস্থ। রোগীদের বিছানাপত্রের অবস্থা একেবারেই নাজুক। কাগজেপত্রেই নয় বাস্তবেই চিকিৎসকসহ বিভিন্ন পদে লোকবল সংকঠ রয়েছে। প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের চাইতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের একটি অংশ নিজেদের উন্নয়ন নিয়ে বেশী ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। আমি চাই এটি যেন সর্বোতভাবে একটি দূর্নীতিমুক্ত সেবা প্রতিষ্ঠানে উন্নীত হয়।

তিনি বলেন, জেলা পরিষদ প্রশাসকের দায়িত্ব পাবার পর থেকেই আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি সুনামগঞ্জবাসীর নানা সুযোগ সুবিধার ব্যাপারে খোজ খবর নিতে। জেলার প্রতিটি প্রতিষ্টানকে নিজের প্রতিষ্টান মনে করি। নান্দনিক সুনামগঞ্জ প্রতিষ্টা আমার লক্ষ্য।

জেলার হাসপাতাল হিসাবে সদর হাসপাতালের গুরুত্ব অনেক। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ, বিদ্যুতের উপর সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছে। সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালের অবকাঠামোগত উন্নয়নে ইতিমধ্যে ৫ কোটি টাকার উপরে উন্নয়ন কাজ হয়েছে।

সেবার মান উন্নয়নে রোগীদের প্রয়োজনীয় ঔষধ পত্র সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়েছে। কর্মচারী, নার্স ও ডাক্তারের সংকট এখন কিছুটা রয়েছে। সরকারের অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে তারপরও দেশের অন্যান্য জেলার চেয়ে আমাদের জেলা অনেক ভাল অবস্থায় রয়েছে। জেলার নির্বাচিত প্রতিনিধি ও রাজনীতিবিদরা এ ব্যাপারে চেষ্টা করলে এ সংকট আমরা কাটিয়ে উঠতে পারবো।

সম্প্রতি হাসপাতালের অবকাঠামোগত উন্নয়নে ৫ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজে পুকুর চুরি হয়েছে। স্থানীয় ও জাতীয় মিডিয়ায় এ ব্যাপারে বিভিন্ন অভিযোগের ব্যাপারে লিখালেখি হয়েছে। স্থানীয় ভুক্তভোগীরা মানববন্ধন,আন্দোলন করেছেন কিন্তু রাজনীতিবিদরা নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য সে আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করেছেন। সে আন্দোলন আজ মুখ থুবড়ে পড়েছে।

একজন রাজনীতিবিদ হিসাবে তিনি এটাকে কিভাবে দেখছেন ? জেলা পরিষদ প্রশাসকের কাছে প্রশ্ন রাখলে তিনি বলেন, ব্যাপারটা স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের অধীন হওয়ায় তার তেমন কিছু করার না থাকলেও তিনি এ ব্যাপারে অভিহিত আছেন। জনগন ন্যায় সঙ্গত আন্দোলন করলে তিনি সব সময় জনগনের পাশে থাকবেন বলে জানান। সুনাগমঞ্জের জনৈক ক্ষমতাশালী ব্যক্তি যিনি আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত। নির্বাচিত জন প্রতিনিধি। সে ব্যক্তির ঘনিষ্টজন এই পুকুর চুরির সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কারনে আন্দোলন হচ্ছেনা উল্লেখ করলে তিনি এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে চাননি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: