সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অধীনস্থদের ভুলের কারনে বারবার বেআইনী কর্মে ধরা খাচ্ছেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত!

daily sylhet Suranjit newsবিশেষ প্রতিনিধি::
অধীনস্থদের ভুলের কারনে বারবার বেআইনী কর্মে ধরা খাচ্ছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা কমিটির সদস্য সুনামগঞ্জ ২ আসনের সাংসদ বাবু সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। নাম্বার বিহীন গাড়ীর যাত্রী হওয়ায় এবার তিনি ধরা খেলেন টিভির সাংবাদিকদের কাছে। নিজে বিব্রত হলেন যেমন তেমনি সরকারের মানও ক্ষুন্ন করলেন। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির প্রধান হয়ে নিজেই আইন ভাঙ্গার অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন।

জানা যায়, সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের নিয়ম ভাঙ্গার উপর একটি টিভি চ্যানেল সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে দেখা যায় সরকার দলীয় নেতা সাবেক মন্ত্রী সুরঞ্জিত নিজেই বেআইনীভাবে নাম্বার বিহীন গাড়ীতে চড়ছেন। নিজে সরকারের একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি হয়ে নাম্বারহীন গাড়ীতে চড়াটাকি আইন বহির্ভুত হচ্ছেনা প্রশ্ন করলে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

কারন হিসাবে উল্লেখ করেন এনালগ নাম্বারপ্লেট খুলা হয়েছে ডিজিটেল নাম্বারের জন্য আবেদন করায়। বিষয়টা যদিও ড্রাইভারের ভুলের কারনে হয়েছে কিন্তু এর দায় দায়িত্বটা মালিকের উপরই বর্তায়। ডিজিটেল নাম্বার পাবার আগ পর্যন্ত এনালগ নাম্বার ব্যাবহার করার নিয়ম থাকলেও তিনি তা করননি।

টিভি চ্যানেলের সাংবাদিক সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে আইন মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হয়ে আইন বিরোধী কাজের জন্য দোষারূপ করলে চালকের কাছে কেন এমন হল তিনি জানতে চান। ব্যাপারটা তার জানা ছিলনা ও বেআইনী কোন কাজ তিনি করেননি বলে জানান।

উল্লেখ্য যে, আওয়ামীলীগ সরকারের আগের মেয়াদে রেলমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকার সময় সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের নাম ঘুষ কেলেংকারীতে জড়িয়ে যায়। সেটাও হয়েছিল তার অধিনস্থ এপিএস এর কারনে। তিনি রেল বিভাগের কালো বিড়াল তাড়াবার কথা বলে শেষে নিজেই জাতীয়ভাবে কালো বিড়াল হিসাবে পরিচিতি লাভ করেন।
সে সময় তার এপিএস এর গাড়ীর চালক ৭০ লাখ টাকার বস্তা ও যাত্রী সহ তৎকালীন বিডিআর এর হেড কোয়ার্টার পিলখানায় ডুকে পড়ে। টাকার বস্তাসহ মন্ত্রীর এপিএসকে ধরিয়ে দেয়।
এ ঘটনায় সরকার যেমন বিব্রত হয় তেমনি এর ফলশ্রুতিতে সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে মন্ত্রীত্ব থেকে পদত্যাগ করতে হয়। সরকারের বাকী ক্ষমতাকালীন সময়ে তাকে দফতর বিহীন মন্ত্রী হিসাবে কাটাতে হয়। নাম্বারহীন গাড়ীতে চড়ে এবারও তিনি জাতির কাছে সরকার ও নিজের ভাবমূর্তী ক্ষুন্ন করলেন। তার ভুলে সরকার বারবার বিব্রত হলেও প্রধানত: এ সব ঘটনায় যতটা না ভুল তার নিজের ছিল তার চেয়ে বেশী ছিল তার অধীনস্থদেরই খামখেয়ালীপনা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: