সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ১০ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ভোক্তা অধিকার আইনের সুফল পাচ্ছেন না ক্রেতারা : বড়লেখায় ওজনে কারচুপির অভিযোগ

daily sylhet barlekha newsবড়লেখা প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার হাটবাজারসমূহে ওজনে কারচুপির ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার সবক’টি হাটবাজারের মাছ, সবজি, ফলমূল, কিছু মুদি দোকান, পেট্রোল ও গ্রাম্য দোকানপাটগুলোতে ওজনে কারচুপির অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে অহরহ। ভোক্তা অধিকার আইনে কার্যকরী কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় ক্রেতা সাধারণ এই আইনের সুফল ভোগ করতে পারছেন না। ফলে ব্যবসায়ীরা তাদের ইচ্ছেমতো ওজনে বিক্রিত মালামল ক্রয় করতে বাধ্য হচ্ছেন ক্রেতা সাধারণ। অনুসন্ধানে জানা যায়, পৌর শহর থেকে শুরু করে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের সবক’টি বাজারের সবজি, মাছ, ফলমূল, কিছু মুদি দোকানে ওজনে মাপার পাল্লা, বাটখারা, পাথরে বিভিন্ন ত্রুটি পরিলক্ষিত হয়।

বিএসটিআই’র সীলমোহরকৃত হলোগ্রাম মার্কা পাল্লা, বাটখারা থাকার কথা থাকলেও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ওজনে মাপার এসব যন্ত্রপাতি খুবই কম। ক্রেতা রিপন আহমদ, সবুজ বিশ্বাস, কামাল উদ্দিন, নিয়াজ উদ্দিন বলেন, মাছ বাজারে ওজনে ব্যাপক কারচুপি হলেও এসব বিষয়ে কেউ কথা বলে না। একটি সঠিক মাপের পাথর ও আরেকটি কারচুপির পাথর রয়েছে। ব্যবসায়ীরা সঠিক মাপের পাথর দিয়ে পণ্য কিনে কারচুপিকৃত পাথর দিয়ে বিক্রয় করেন। তাছাড়া পাল্লা, বাটখারায়ও যথেষ্ট ত্রুটি বিদ্যমান। ক্রেতারা আরও জানান, বাজারে গিয়ে এক কেজি মাছ কিনে সঠিকভাবে ওজন করলে সাড়ে আটশত গ্রাম হয়। ওজনে কারচুপির ওই একই অবস্থা রয়েছে সবজি, ফলমূলের দোকান এবং ব্রয়লার মুরগির দোকানে।
এছাড়া গ্রাম্য পাড়া-মহল্লার দোকানপাটগুলোতে ওজনে ব্যাপক কারচুপি হয়ে থাকে এবং শহরের পেট্টোল, অকটেন, মবিলসহ তৈলজাতীয় পদার্থ বিক্রয়কারী পাম্প ও খোলা দোকানসমূহে লিটারের বিপরীতেও কারচুপির ঘটনা হরদম ঘটছে বলে শত শত ভুক্তভোগী অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হাজী আলাল উদ্দিন আলাই অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে জানান, এসব বিষয়ে তারা সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের সতর্ক করে দিয়েছেন এবং সঠিকমাপের বাটখারা দিয়ে পণ্য সামগ্রি বিক্রয়ের জন্য পদক্ষেপ নেয়া হবে। থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আকবর হোসেন জানান, ভোক্তা অধিকার আইনে ভ্রাম্যমান আদালত এসব বিষয়ে অভিযান পরিচালনা করে থাকেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আমিনুর রহমান জানান, শীঘ্রই অভিযান পরিচালনা করা হবে। আর বিএসটিআই’র সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে পর্যায়ক্রমে হাটবাজারে অভিযান পরিচালনা করার উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: