সর্বশেষ আপডেট : ৩৬ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৪ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘পিকে’ নিয়ে চলছে লড়াই

10. PKবিনোদন ডেস্ক::
বিতর্কের সূত্রপাত শুরু থেকেই। গত ডিসেম্বরে মুক্তি পাওয়ার পর প্রশংসার বন্যায় ভেসে গিয়েছে ‘পিকে’। তবে ছবি যত জনপ্রিয় হয়েছে, ততই জর্জরিত হয়েছে মামালা-মোকদ্দমার ঘেরাটোপে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ইশাপুরি মামলা। সম্প্রতি এই মামলার উপর রায় জানিয়েছেন আদালত।

বিশিষ্ট লেখক কপিল ইশা পুরির দাবি, “২০১৩ সালে প্রকাশিত তাঁর উপন্যাস ‘ফিরসতা’ থেকে হুবহু টোকা হয়েছে ‘পিকে’”। এই দাবির ভিত্তিতে আদালতে যান তিনি। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতে বিচারক নাজমি ওয়াজিরি রাজকুমার হিরানি, বিধু বিনোদ চোপড়া এবং চিত্রনাট্যকার অভিজিৎ যোশীর বক্তব্য শুনতে চান। সাবাল জবাব করেন দু’পক্ষের আইনজীবীদের নিয়ে। ‘পিকে’ টিম-এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, “আইন মেনে ২০১০ সালে জুলাই মাসে ‘পিকে’র প্রথম চিত্রনাট্য রেজিসস্টেশন করা হয় রাইটার্স অ্যাসোসিয়েশনে । এরপর পাঁচবার চিত্রনাট্য পরিবর্তন করা হয়েছে ২০১২ সালে । সুতরাং নকল করার কোনও প্রশ্নই নেই’। অন্যদিকে, কপিল ইশা পুরীর পক্ষের আইনজীবী জানান, “ ২০০৯ সালে একটি প্রকাশনা সংস্থাকে ছাপার জন্য দেওয়া হয়েছিল ‘ফরিসতা’ উপন্যাসটি। ২০১৩-তে উপন্যাসটি প্রকাশ্যে এলেও আগেই গল্পটি চুরি হয়েছে’। তাই এক কোটি টাকা এবং পিকের লেখক হিসাবে কপিল ইশাপুরি নাম চাইছেন। এখন চলছে পিকের সত্ত্ব নিয়ে মারামারি। দেখা যাক কে জেতে!

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: