সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ২৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নবীগঞ্জে স্কুলছাত্রীর প্রেম নিয়ে লংকাকান্ড! : অবশেষে প্রেমিকের ঠিকানা শ্রীঘরে, ধর্ষণের মামলা

unnamed-137মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ::

নবীগঞ্জ উপজেলার গোপলার বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেনীর ছাত্রীর প্রেম ও গোপন অভিসার নিয়ে গত বুধবার বিকালে তুলকালাম কান্ড ঘটেছে। ছাত্র-ছাত্রী ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল করে প্রেমিক জুটিকে প্রায় ৬ ঘন্টা অবরোদ্ধ করে বিদ্যালয়টি ঘেরাও করে রাখেন। এ সময় বিক্ষোভকারীরা স্কুলের দরজা, জানালা, শিক্ষকদের কয়েকটি মোটর সাইকেল ভাঙচুর করে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে নবীগঞ্জ থানার ওসি প্রেমিক-প্রেমিকাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। অবশেষে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে প্রেমিকার দায়েরী ধর্ষনের মামলায় প্রেমিক সেলিম মিয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
জানা যায়, গত বুধবার বিকালে নবীগঞ্জ উপজেলার গোপলার বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেনীর এক ছাত্রী বিকাল ২টার সময় ছুটি নিয়ে বিদ্যালয় থেকে চলে যায়। ওই ছাত্রী বাউসা ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের দুদু মিয়ার মেয়ে। সে তার নানা দাইদ উল্লার বাড়ি দূর্লভপুর গ্রামে থেকে লেখা পড়া করতো। সেখানে যাবার পথে রাস্তার পাশে লতিবপুর গ্রামের কমলা বেগম নামে এক মহিলার ঘরে প্রবেশ করে ওই ছাত্রী এবং লতিবপুর গ্রামের আলাউদ্দিনের পুত্র দুই সন্তানের জনক প্রেমিক সেলিম মিয়া(৩৫)। সেখানে উক্ত প্রেমিক জুটি গোপন অভিসারে মিলিত হয়। পথচারী জনৈক ব্যক্তি ঘটনাটি দেখে স্কুলে ফোন করলে ছাত্ররা ছুটে গিয়ে তাদের আটক করে বিদ্যালয়ে নিয়ে আসে।
পরে স্কুলে সালিশ বিচারে প্রেমিক সেলিমকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা ও লিখিত মুচলেখা নেয়া হয়। এ খবর জনতা ও ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ছড়িয়ে পড়লে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। শত শত ছাত্র ও জনতা বিক্ষোভ মিছিল করে বিদ্যালয়টি ঘেরাও করে সালিশ বিচারক, শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও প্রেমিক জুটিকে অবরোদ্ধ করে রাখে।
এ সময় বিক্ষোভকারীরা স্কুলের দরজা, জানালা, শিক্ষকদের কয়েকটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে। খবর পেয়ে গোপলার বাজার ফাঁড়ির পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে ব্যর্থ হলে পরে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ লিয়াকত আলী অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোদ্ধদের উদ্ধার করে নবীগঞ্জ থানায় নিয়ে আসেন। এ সময় প্রেমিক জুটি তারা কোন অভিযোগ দিতে অস্বীকৃতি জানায়। তারা সাংবাদিকদের জানায় একে অন্যকে বিয়ে করতে রাজি। তারা স্বীকারোক্তি দেয় স্বইচ্ছায় অভিসার করেছে। অপ্রাপ্ত বয়স্ক স্কুল ছাত্রীর বক্তব্যের সাথে পরিবারের লোকজন ঐক্যমত না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত পরিবারের চাপের মুখে ওই ছাত্রী বাদি হয়ে প্রেমিক সেলিম মিয়ার বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ এনে থানায় মামলা দায়ের করে। পুলিশ আটককৃত সেলিমকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: