সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গরীবের বৌ সবার ভাবি!

bangladeshনিউজ ডেস্ক::
একটি প্রচলিত প্রবাদ, সবাই জানি। শুনতে খারাপ লাগতে পারে, তবুও বলি। এখনো তারা মনে করেন ‘গরীবের বৌ সবার ভাবি।’ যে কারণে আপন যোগ্যতায় বাংলাদেশ দল কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পরই শুরু হয়ে যায় নানা হিসেব-নিকেশ। চলতে থাকে গরীবের বৌ বানানোর সব আয়োজন। ইচ্ছে মত খেলানোর দায় নেন তিন আম্পায়ার!

স্বীকার করছি, লক্ষ কোটি বার উচ্চারিত হয়েছে বিষয়টি। তবুও আরেকবার বলতে হবে, প্রতিবাদ করতে হবে। কারণ, এবারের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মাঠে বাংলাদেশ এক অন্যরকম আত্মপ্রকাশ ঘটিয়েছিল যা অনেকের মাথা ব্যাথার কারণ ছিল এবং তাদের কারণেই আমাদের এই পরাজয় বলে মনে করছেন ক্রিকেট বিশ্বের তাবদ বোদ্ধারা। আর কোটি কোটি বাংলাদেশীর আবেগে, রাগ, ক্ষোভের কথা না হয় নাই বললাম!

কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল গতবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারত। এবারের বিশ্বকাপেও তারা গ্রুপ পর্যায়ে দুর্দান্ত খেলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে। পরিসংখ্যান ও শক্তির দিক দিয়ে ক্রিকেটে ভারত বরাবরই বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে, এবারের কোয়ার্টার ফাইনালেও। তবু নতুনভাবে গর্জে ওঠা বাংলাদেশকে ভারতের পক্ষে খুব একটা সহজভাবে নেওয়ার কোন সুযোগ ছিল না। তাদের সাম্প্রতিক কথা-বার্তা, আচরণেও সেটা বারবার ফুটে উঠেছে।

আবার খেলার মাঝপথে এসে পাকিস্তানী আম্পায়ার আলিম দার, বৃটিশ আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড আর টিভি আম্পায়ার স্টিভ ডেভিস যেভাবে নিরপেক্ষতার আবরণে ভারতের পক্ষে দাঁড়ালেন তাতে তরুণ বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মন ভেঙে যেতে বাধ্য। ফলে ফিল্ডিংয়ের শেষদিকে এসে বাংলাদেশ দল অনেকটা খেই হারিয়ে ফেলে যা একটি অপেক্ষাকৃত নতুন, কম অভিজ্ঞ দলের জন্য খুব স্বাভাবিক।

এমনটা হতে পারে আশঙ্কা করে ম্যাচের আগেই মিডিয়াগুলো সরব ছিল। মিডিয়াগুলো বলছে, বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের মত গুরুত্বপূর্ণ খেলায় এরকম নিম্নমানের আম্পায়ারিং কেউ কখনো দেখেনি। ক্রিকেটের ধারাভাষ্যকারসহ প্রাক্তন খেলোয়াড়রা এই নিম্নমানের আম্পায়ারিং নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে আইসিসি আর আম্পায়ারিংয়ের বিরূদ্ধে ব্যাপক সমালোচনা। ইচ্ছেমত তুলোধনা করছেন বাংলাদেশের সমর্থকরাও।

কারণ, মাত্র আঠারোটি আন্তর্জাতিক একদিনের খেলায় আম্পায়ারিংয়ের অভিজ্ঞতা থাকা আম্পায়ারকে কোয়ার্টার ফাইনালের মত গুরুত্বপূর্ণ খেলায় আম্পায়ারিংয়ের সুযোগ দেওয়া হয়েছে। উইকিপিডিয়ায় বলা হয়েছে, ‘ইয়ান গোল্ড হলেন ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম নির্লজ্জ এক আম্পায়ার। সুযোগ পেয়ে আইসিসি’র প্রশ্রয় ধন্য এই দুই বৃটিশ ইয়ান গোল্ড আর স্টিভ ডেভিস বাংলাদেশের কাছে ইংল্যাণ্ডের হারের প্রতিশোধও নিয়ে নিলেন!’
উইকিপিডিয়ার এই মন্তব্য স্বত:সিদ্ধ। কেননা এই দুই বৃটিশকে আম্পায়ারকে কেন দিতে হবে এমন একটা খেলায়? ক’দিন আগেই ইংল্যাণ্ড হেরেছে বাংলাদেশের কাছে। আর তারাতো ফেরেস্তা না! রক্ত মাংসের মানুষ। রাগ-ক্ষোভ যে থাকবে না তা নয়। সুতরাং তাদের সিদ্ধান্ত যে বাংলাদেশের বিপক্ষে যাবে সেটাই স্বাভাবিক।

এজন্য স্বভাবতই অভিযোগের আঙ্গুল উঠেছে বিশ্ব ক্রিকেট সংস্থা আইসিসি’র দিকে। প্রশ্ন উঠেছে- ক্রিকেট নয়, বরং বিশ্বকাপ সংক্রান্ত ক্রিকেট বাণিজ্যই কি তবে প্রধান বিবেচ্য আইসিসির কাছে? প্রতিযোগিতা থেকে এত তাড়াতাড়ি ভারতের মত দলের বিদায় হলে শতকোটি ডলারের বিজ্ঞাপন – বাণিজ্য হুমকির মুখে পড়ে যাবে? আর সেই দৃষ্টিকোণ থেকেই কি আম্পায়ারদের সহায়তায় আইসিসি ভারতের এই বিজয়কে নিশ্চিত করল?

শেষমেষ কোয়ার্টার ফাইনালের ফলাফল যাই হোক না কেন বাংলাদেশের কোটি কোটি মানুষ দলমত নির্বিশেষে তাদের ক্রিকেট দলের পাশে ঐক্যবদ্ধ। আমরা নিশ্চিত, সরকারের সর্ব্বোচ্চ মহল থেকে শুরু করে সবাই টাইগারদের আন্তরিকভাবেই গ্রহণ করেছে। বীরের মর্যাদায় আমরা বলতে চাই ‘জয়তু টাইগার্স।’ তোমাদের নিয়ে আমাদের অনেক অহংকার। কিন্তু একটা কথা মনে রাখতে হবে,‘আমরা আর গরীবের বৌ নই, ধনে-মানে, আত্মমর্যজদায়, গরিমায় এখন আমরা অনেক অনেক ধনী।’

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: