সর্বশেষ আপডেট : ৩৮ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আইডিয়া আলোয়-আলোয় প্রকল্পের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট এফেয়ার্স আইডিয়া’র উদ্যেগে বাংলাদশে চা-শ্রমিক ইউনিয় পরিষদের প্রতিনিধিদের সাথে আলোয়-আলো প্রকল্পের এক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এডুকো বাংলাদেশ ও চাইল্ড ফান্ড কোরিয়া এর আর্থিক সহযোগিতায় লেবার হাউস, শ্রীমঙ্গলে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়ন পরিষদের উপদেষ্টা শ্রী পরাগ বারই।

আইডিয়া আলোয়-আলো প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী মোহা. আমিনুর রহমান প্রকল্পের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বর্ননা করতে গিয়ে বলেন, আলোয়-আলো প্রকল্প মূলত ইসিডি এর মাধ্যমে ৩-৫ বছরের শিশুদের দৈহিক ও মানসিক বিকাশে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করবে। এরই পাশাপাশি প্রকল্পটি স্যানিটেশন, নিউট্রেশন, ইয়্যুথ ডেভেলপমেন্ট, লাইভলীহুডস ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাথে বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করবে। একই সাথে শিশু সুরক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শিশু সুরক্ষা কমিটি সক্রিয়করণ, এসএমসি কমিটি সক্রিয়করণ, সিএমসি কমিটি গঠণ ও সক্রিয় করণের লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

৬৪টি বাগানের পঞ্চায়েত সভাপতি ভ্যালির মেম্বার হিসেবে কাজ করে উল্লেখ করে ভ্যালি সভাপতি বিজয় হাজরা বলেন, আলোয়-আলো প্রকল্পের সাথে শ্রমিক ইউনিয় এর সম্পৃক্ততা থাকলে প্রকল্প চলাকালীন সময় প্রকল্পের যেমন সুনাম বজায় থাকবে তেমনি পকল্প পরবর্তীতে এর সুনাম অক্ষুন্ন থাকবে।
তিনি আরো বলেন, চা-বাগানের কাজের স্বার্থে ও উন্নয়নের সাথে আমাদের সকলের সম্পৃক্ততা দরকার। নির্দিষ্ট সময় অন্তর-অন্তর সমন্বয় সভার আয়োজন করতে হবে। আলোয়-আলো প্রকল্প যে কার্যক্রমগুলো বাস্তবায়ন করবে তা এনজিও এর কাজ মনে না করে আমাদের কাজ বলে মনে করতে হবে।

বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়-এর সহ-সভাপতি পঙ্কজ কন্দ বলেন, যেকোন প্রকল্প চা-শ্রমিকের উন্নয়নের জন্য আসে তা বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়ন সাদরে গ্রহণ করে। আইডিয়া চা-বাগান এলাকায় যে ইসিডি তৈরির কথা উত্থাপন করেছে সেক্ষেত্রে চা-শ্রমিক ইউনিয়-এর যেসকল সহযোগিতা করার প্রয়োজন চা-শ্রমিক ইউনিয় তা করবে। তবে উক্ত পকল্পের কাজের সাথে ইউনিয়ন পরিষদকে সম্পৃক্ত করার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। জনগণের কাছ থেকে চা-বাগান এলাকার চাহিদা তৈরি করতে হবে এবং সে অনুয়ায়ী প্রয়োজনীয় কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে হবে।

বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয় এর অর্থ-সম্পাদক পরেশ কালিঞ্জী তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন এ সমন্বয় সভার মাধ্যমে আলোয়-আলো প্রকল্পের সাথে চা-শ্রমিক ইউনিয়ন একই শিকলে আবদ্ধ হয়ে গেলে। আজকের পরে এ প্রকল্পের অগ্রগতি/সফলতা মানে চা-শ্রমিক ইউনিয়নের সফলতা আর এ প্রকল্পের ব্যর্থতা মানে চা-শ্রমিক ইউনিয়নের ব্যর্থতা তাই এই প্রকল্পকে নিজেদের মনে করে আলোয়-আলো প্রকল্পের সাথে এগিয়ে যেতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে শ্রী পরাগ বারই বলেন, আইডিয়া আলোয়-আলো প্রকল্প চা-বাগানের এলাকার শিশুদের জন্য যে সকল কার্যক্রম গ্রহণ করেছে সেটি সঠিকভাবে বাস্তবায়ণের জন্য আমরা সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবো কেননা চা-শ্রকিমদের উন্নয়নের সাথে বিষয়টি ওতপ্রতভাবে জড়িত।

এ সময় পঙ্কজ ঘোষ দস্তিদার, চাঁদনী রায়, সবিতা গোয়ালা, বচিষ্ট তাঁতী, সিউধনী কুর্মী, সাইফুর রহমান, জাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া সমন্বয় সভায় উপস্থিত ছিলেন। বিজ্ঞপ্তি




এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: