সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইনাম আহমদ চৌধুরী অনুপ্রবেশকারী কিনা প্রশ্নে যা বললেন ওবায়দুল কাদের

নিউজ ডেস্ক:: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীদের যে তালিকা তৈরি করেছেন, তাতে দেড় হাজারের বেশি নাম রয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি আরও বলেছেন, খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপি। বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক ইস্যু খুঁজছে তারা।শুক্রবার বিকেলে সাভারের আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকায় সড়ক পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন সেতুমন্ত্রী। এ সময় বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দেয়া বিএনপির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ইনাম আহমদ চৌধুরীর প্রসঙ্গ টানেন সাংবাদিকরা।এ সময় ইনাম আহমদ চৌধুরী অনুপ্রবেশকারী নন বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপির ইনাম আহমদ চৌধুরীকে আমরা দলে নিয়েছি। তার মতো ভালো অথবা ক্লিন ইমেজের কেউ থাকলে তাদেরকেও আমরা দলে নেব। এরা অনুপ্রবেশকারীর আওতায় পড়ে না। ইনাম আহমদ চৌধুরী অনুপ্রবেশকারী নন। তবে অনুপ্রবেশকারী কারা? বিষয়টির ব্যাখ্যাও দিয়েছেন সেতুমন্ত্রী।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন,সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ছাড়া অন্য রাজনৈতিক দলের ক্লিন ইমেজের লোক আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী নয়, তাদের আমরা স্বাগত জানাই। সাম্প্রদায়িক শক্তি থেকে যারা আসে, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, চিহ্নিত ভূমিদস্যু, যাদের ইমেজ খারাপ, যাদের রাজনীতি জনগণের কাছে খারাপ, এরাই অনুপ্রবেশকারী।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, যারা ভালো মানুষ, শিক্ষিত মানুষ, জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য তারা দলের নেতৃত্বে আসতে পারে। অনুপ্রবেশকারীরা যেন আওয়ামী লীগের কোনো পদে আসতে না পারে, সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে বলে জানান আওয়মী লীগের এই সাধারণ সম্পাদক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী একটি তালিকা তৈরি করেছেন। তিনি নিজেই এর মরিটরিং করছেন। বিষয়টি তার তত্ত্বাবধানে রয়েছে। অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা বিভিন্ন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে, যাতে সারা দেশে এখন যে সম্মেলন হচ্ছে, এই সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন একটি নেতৃত্ব আসে। এই নেতৃত্বে যাতে অনুপ্রবেশকারী বা বিতর্কিত বা অপকর্মকারীরা আওয়ামী লীগের কোনো পর্যায়ের নেতৃত্বে আসতে না পারে, সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, আষাঢ় মাসের গর্জন আর তাদের হাঁকডাক একই রকম। এর বাস্তবতা নেই। নেতাকর্মীদের খুশি ও চাঙা রাখতে এমন হাঁকডাক দিয়ে থাকেন তারা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে চলমান আন্দোলনের বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি দেখছেন। সময় হলে তিনি এ বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত দেবেন এবং আপনারা তা দ্রুত বাস্তবায়ন হতে দেখবেন।

প্রসঙ্গত, একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপি থেকে পদত্যাগ করে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছিলেন ইনাম আহমদ চৌধুরী। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন ইনাম আহমদ চৌধুরী। তবে শেষ পর্যন্ত সে আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মনোনয়ন পান খন্দকার আবদুল মুক্তাদির।

এরপর নির্বাচনের ১০ দিন আগে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আওয়ামী লীগে যোগ দেন ইনাম আহমদ চৌধুরী। তাকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হিসেবে মনোনয়ন প্রদান করেন দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: