সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ৮ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এটিএম শামসুজ্জামানের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ: শুভাশীষ মুখার্জি

বিনোদন ডেস্ক:: প্রথমবারের মতো ঢাকায় আয়োজিত হলো ‘ভারত বাংলাদেশ ফিল্মস অ্যাওয়ার্ড’ (বিবিএফএ)। বাংলাদেশের বসুন্ধরা গ্রুপ ও ভারতের ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ার উদ্যোগে এবং টিএম ফিল্মসের নিবেদনে সোমবার (২১ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) নবরাত্রি হলে জাঁকালো এ আয়োজনে দুই বাংলার নির্বাচিত সেরা তারকাদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেওয়া হয়।

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলা দুই বাংলার অনেক তারকা। বাংলা চলচ্চিত্রের জয়গান গাইতে এক হয়েছিলেন অনেক তারকাশিল্পী ও নির্মাতারা। অনুষ্ঠানে এসেছিলেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা শুভাশীষ মুখার্জি। দীর্ঘ অনেকদিন পর তিনি ঢাকায় এলেন।

স্টেজে শিল্পীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিতে এসে নিজের একটি পুরনো স্মৃতি শেয়ার করলেন সবার সাথে। সেই স্মৃতির সাথে জড়িয়ে রয়েছেন বরেণ্য অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান।

শুভাশীষ মুখার্জি বলেন, একবার একটি ছবির শুটিং করতে বাংলাদেশে এসে এক মহান অভিনেতা, অত্যন্ত শ্রদ্ধেয় একজন মানুষ এটিএম শামসুজ্জামানের সাথে দেখা হয় আমার। তিনি আমাকে শুটিংয়ের পর বললেন, শুভাশীষ আজকে কাজ আছে তোমার। চলো তোমাকে ঢাকা শহরটা ঘোরাই।

আমি অনেকদিন আগে একবার উনাকে বলেছিলাম যে, এখানে আড়ংয়ে নাকি ভালো পাঞ্জাবি পাওয়া যায় শুনেছি। সেই কথাটা মনে রেখে তিনি আমাকে গাড়িতে করে বসুন্ধরা সিটিতে আড়ং এর দোকানে নিয়ে গেলেন। সেখানে আমি পাঞ্জাবি দেখছিলাম। আর তিনি সেখানে ঢুকেছেন দেখে সবাই উনার আপ্যায়ন করতে শুরু করলো। আমি ঘুরে ফিরে পাঞ্জাবি দেখছি, একটা পাঞ্জাবি হাত দিয়ে দেখলাম ভালোই লাগছে। দাম দেখে আমি সাহস করতে পারছিলাম না কিনবো কিনা! তখন দেখি তিনি কাউন্টারের সামনে গিয়ে কাউন্টারের লোকের সাথে গল্প করছেন। আমি যখন চলে যাবো তখন আমাকে বললেন, ‘হয়ে গেলো দেখা?’ আমি বললাম, হ্যাঁ, দেখা হয়ে গেছে। আর দেখব না। ঠিক তখন তিনি আমার হাতে একটা প্যাকেট দিয়ে বললেন, এটা তোমার। আমি বললাম মানে? উত্তরে তিনি বললেন, পাঞ্জাবিটা তোমার পছন্দ হয়েছিল। তাই এই পাঞ্জাবিটা আমার কলকাতার মেহমানের জন্য। এটা তোমার।

তার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে তার দেওয়া সেই পাঞ্জাবিটা পরেই আমি আজকে এই অনুষ্ঠানে এসেছি। আমি কৃতজ্ঞ সেই মানুষটির প্রতি।

২০১৮ সালের জুন থেকে চলতি বছরের (২০১৯) জুন পর্যন্ত ভারত ও বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলোর জন্য এই পুরস্কার আয়োজন করা হয়।

পুরস্কার প্রাপ্তদের বাছাই করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ থেকে জুরি বোর্ডের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন আলমগীর, কবরী, ইমদাদুল হক মিলন, খোরশেদ আলম খসরু ও হাসিবুর রেজা কল্লোল। অন্যদিকে, ভারত থেকে ছি‌লেন গৌতম ঘোষ, ব্রাত্য বসু, গৌতম ভট্টাচার্য, অঞ্জন বোস ও তনুশ্রী চক্রবর্তী।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: