সর্বশেষ আপডেট : ৪৫ মিনিট ৪৫ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

উইঘুর নির্যাতন: কালো তালিকায় চীনের ২৮ সংস্থা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে মুসলিম সংখ্যালঘু উইঘুরদের ওপর নিপীড়নে জড়িত থাকার অভিযোগে দেশটির ২৮টি সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এসব সংস্থাগুলোকে তথাকথিত ‘এনটিটি লিস্টে’ ফেলা হয়েছে। ফলে ওয়াশিংটনের অনুমতি ছাড়া তারা কোনও মার্কিন কোম্পানির কাছ থেকে পণ্য কিনতে পারবে না। তবে মার্কিন এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি চীন।

যে ২৮ সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে সেগুলোর মধ্যে সরকারি এবং প্রযুক্তি সংস্থা বিশেষ করে নজরদারি ইক্যুপমেন্ট সরবরাহকারী কোম্পানিগুলোও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র এবারই প্রথম চীনা প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে এমন নয়, এর আগেও ট্রাম্প প্রশাসন চীনা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ওপর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে,বেইজিং অনেকদিন ধরেই মুসলিম সংখ্যালঘু গোষ্ঠী উইঘুরদের ওপর নিপীড়ন চালাচ্ছে এবং অনেককে আটককেন্দ্রে বন্দি করে রাখা হয়েছে। যদিও চীন এগুলোকে ‘উন্মুক্ত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র’হিসাবে উল্লেখ করে থাকে, যা উগ্রবাদ মোকাবেলায় পরিচালিত হয়।

সোমবার মার্কিন বাণিজ্য দফতর প্রকাশিত নথিতে বলা হয়, এই ২৮টি প্রতিষ্ঠান চীনের নিপীড়নের সঙ্গে জড়িত ছিলো। উইঘুর, কাজাখসহ অন্যান্য মুসলিম সংখ্যালঘুদের ওপর নজরদারি ও নিপীড়নে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের এই প্রতিষ্ঠানগুলো সহায়তা করেছিল।

প্রসঙ্গত, জিনজিয়াং প্রদেশের জনসংখ্যার ৪৫ শতাংশ উইঘুর মুসলিম। এই প্রদেশটি তিব্বতের মত স্বশাসিত একটি অঞ্চল। বিদেশি মিডিয়ার ওপর এখানে প্রবেশের ব্যাপারে কঠোর বিধিনিষেধ রয়েছে। কিন্তু গত বেশ কয়েক ধরে বিভিন্ন সূত্রে খবর আসছে যে, সেখানে বসবাসরত উইঘুরসহ ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা ব্যাপক হারে আটকের শিকার হচ্ছে।

সূত্র: বিবিসি






নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: