সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৩৯ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারের নিন্দা জানিয়েছেন কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ

কানাইঘাট প্রতিনিধি:: ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট প্রেসক্লাব ও বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার কর্মরত সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে উদ্ভট মিথ্যা, কাল্পনিক, বানোয়াট অপপ্রচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ক্লাব নেতৃবৃন্দ।

এক বিবৃতিতে ক্লাব সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুলসহ নেতৃবৃন্দ বলেন, নাম্বার বিহীন অটোরিক্সা সিএনজির গাড়িতে সংবাদ পত্র বহন ও জাতীয় জরুরী সংবাদ পত্র এবং একটি পত্রিকার স্টিকার ব্যবহার করে সাংবাদিকদের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নকারী নানা অপকর্মের হুতা ফয়সাল কাদির চক্র কর্তৃক সিএনজি চালকদের কাছ থেকে মাসিক দুই হাজার টাকা করে চাঁদাবাজির ঘটনায় সম্প্রতি পত্র-পত্রিকায় ও অনলাইনে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশের পর সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম’র নির্দেশে সিএনজি গাড়ীতে সংবাদপত্র স্টীকার লাগিয়ে অনৈতিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ফয়সাল কাদির সহ তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ এবং এসব গাড়ী আটকের জন্য কানাইঘাট থানা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশ এবং জেলা পুলিশের অর্ন্তভুক্ত থানা পুলিশকে প্রদান করেন। থানা ও ট্রাফিক পুলিশ প্রেস লেখা গাড়ীগুলো আটক অভিযান শুরু করে।

এতে করে এসব ঘটনার মূলহুতা সাংবাদিক পরিচয়দানকারী ফয়সাল কাদিরের চাঁদাবাজির টোকেন ব্যবসা বন্ধ হয়ে পড়ায় সে ও তার সহযোগীরা ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট প্রেসক্লাবের ভাবমুর্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন করার পাশাপাশি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাতীয় দৈনিক যায়যায়দিন ও উত্তরপূর্ব পত্রিকার কানাইঘাট প্রতিনিধি নিজাম উদ্দিন, প্রেসক্লাবের সহ সম্পাদক জাতীয় দৈনিক ভোরের কাগজ ও সিলেট বাণী পত্রিকার প্রতিনিধি আব্দুন নুর, সদস্য জাতীয় দৈনিক খোলা কাগজ ও সবুজ সিলেট পত্রিকার প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম, জাতীয় দৈনিক ভোরের পাতা ও জালালাবাদ পত্রিকার প্রতিনিধি শাহীন আহমদ, জাতীয় দৈনিক আমাদের সময় ও একাত্তরের কথা পত্রিকার প্রতিনিধি সুজন চন্দ অনুপ ও জাতীয় দৈনিক বর্তমান পত্রিকার প্রতিনিধি মুমিন রশিদ সহ অন্যান্য সদস্যদের বিরুদ্ধে ফয়সাল কাদির তার নিজ ফেইসবুক আইডি থেকে অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ মানহানিকর অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে। ইতিমধ্যে ফয়সাল কাদির ও তার চার সহযোগীদের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাতনাম ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে কানাইঘাট থানায় পৃথক ৬টি সাধারণ ডায়রী ও পৃথক আরো একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে ফয়সাল কাদির কর্তৃক সাংবাদিকদের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করে কানাইঘাটে শতাধিকের উপরে ও সিলেটের অন্যান্য এলাকায় অসংখ্য নাম্বারবিহীন সিএনজি গাড়ীতে জরুরী সংবাদপত্র ও সংবাদপত্র বহনকারী স্টিকার লাগিয়ে সিএনজি চালকের কাছ থেকে চাদাবাজির মাধ্যমে মাসুয়ারা আদায় ও তার বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডে সম্পৃক্ততা ও অসামাজিক কার্যকলাপের বিষয়টি সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএম ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং সিলেটের সিনিয়র সাংবাদিকদের অবহিত করেছেন। ক্লাব নেতৃবৃন্দ তাদের বিবৃতিতে আরো উল্লেখ করেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাব হচ্ছে এ অঞ্চলের মাটি ও মানুষের আশা-আকাঙ্খার প্রতিষ্ঠান।

কানাইঘাটের আত্মসামাজিক উন্নয়নে প্রেসক্লাব ও ক্লাবের সদস্যদের বড় ধরনের ভূমিকা রয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে ফয়সাল কাদির অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে তারা দীর্ঘদিন ধরে অত্যন্ত সুনামের সহিত বিভিন্ন জাতীয়, স্থানীয় দৈনিক ও অনলাইন পোর্টালে কর্মরত রয়েছেন। কানাইঘাটের মানুষের সাথে তাদের সুগভীর সু-সম্পর্ক রয়েছে। মিথ্যা অপপ্রচার করে প্রেসক্লাবের সদস্য ও কর্মরত পেশাদার সাংবাদিকদের কলম কোন অপশক্তি থামাতে পারবে না। অপসাংবাদিকতা, চাঁদাবাজ, টাউট-বাটপার, ধান্ধাবাজ, দুর্নীতিবাজ চক্র এবং ফয়সাল কাদির গংদের অপকর্মের দাঁত ভাঙ্গ জবাব দেয়া হবে।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: