সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বন্যপ্রানী প্রাণী ও বনাঞ্চল রক্ষায় জিরো টলারেন্সে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে – কমলগঞ্জে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী

পিন্টু দেবনাথ, কমলগঞ্জ:: বনের গাছ চুরিতে বনকর্মী ও পাহারাদার জড়িত থাকলে তদন্তক্রমে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। বন্যপ্রানী প্রাণী ও বনাঞ্চল রক্ষায় গাছ চুরি প্রতিরোধে প্রয়োজনে জিরো টলারেন্সের মাধ্যমে বিহিত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে বন্য প্রাণী রক্ষায় তাদের খাদ্য উপযোগী ফলজ গাছ লাগাতে হবে। লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন গ্রামগুলোর মানুষজনের হাত থেকে বনকে রক্ষায় গ্রামবাসীদের সরিয়ে আলাদা আবাসন তৈরী করা যায় কিনা সে বিষয়ে ভেবে দেখা হবে। শনিবার (২৪ আগস্ট) বিকাল সাড়ে ৪টায় মৌলভীবাজাররে কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান পরিদর্শণ ও কিছু বন্যপ্রানী অবমুক্ত এবং কিছু ফলজ বৃক্ষ রোপন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন এমপি একথাগুলো বলেন।

বন, পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দীন বিকাল ৪টায় লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে প্রবেশ করে আধা ঘন্টার একটি একটি ট্রেইলে (পাহাড়ি পথে) সরকারী কর্মকর্তা ওরাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সাথে হেটে বিকাল সাড়ে ৪টায় কিছু বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করেন। বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে অবমুক্ত করা প্রাণীগুলোর মাঝে ছিল ২টি অজগর সাপ, ১২টি অজগরের বাচ্চা, ২টি লজ্জাবতী বানর, ১টি মেছা বাঘ, ১টি হিমালয়ান পামসিভিট, ১টি খয়েরী ফনি মনসা, ১ টি সবজু বোড়াল ২টি কালেম পাখি, ২টি সরালী হাঁস. ১টি সঙ্খিনী সাপ। তাছাড়া ১টি বট বৃক্ষ ও বেশ কিছু ফলজ ও ওষধী গাছের চারা রোপন করেন মন্ত্রী।

পরে লাউযাছড়া বন বিশ্রামাগারের সন্নিকটে আয়োজিত মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দীন বক্তব্য রাখেন। লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সহ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি এম. মোসাদ্দেক আহমেদের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমেদ পিপিএম, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সার্কেল) আশরাফুজ্জামান কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান, শ্রীমঙ্গল থানার ওসি সালেক আহমদ, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমদ, বাংলাদেশ বন্য প্রানী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সীতেশ রঞ্জন দেবসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দও বন বিভাগীয় কর্মকতা।

বন ও পরিবেশ মন্ত্রী সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের বিদি অনুযায়ী বনাঞ্চলের ১০ কি:মি: এলাকার বাইরে করাত করল করতে হবে। আর পৌরসভা এলাকায় করা যাবে। অবৈধভাবে করাতকল হলে তদন্তক্রমে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। আর যেগুলো উচ্চ আদালতের মামলাধীর রয়েছেন সেগুলো রায়েই সিদ্ধান্ত হবে। সবশেসে মন্ত্রী বরেন বন ও বন্যপ্রাণী রক্ষায় সামাজিক আদেœাদল গড়ে তুলতে হবে।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: