সর্বশেষ আপডেট : ১৯ মিনিট ৪৯ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রতিদিন ১৮ কিলোমিটার পেরিয়ে স্কুলে যান এই শিক্ষক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: বলা হয়, মা-বাবার চেয়েও উপরের আসন শিক্ষক বা গুরুর। মা-বাবা জন্ম দিলেও শিক্ষক জ্ঞানের আলো দেন। তাই গুরুর স্থান সবচেয়ে উপরে। তেমনই এক শিক্ষক তিনি।

গাম্বারাই ভেঙ্কটরমন। ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমের প্রত্যন্ত গ্রাম সুরাপেলামের প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক। রাস্তার অবস্থা শোচনীয় হওয়ায় প্রতিদিন তিনি ১৮ কিলোমিটার ঘোড়ায় চেপে পড়াতে যান।

তাই প্রিয় শিক্ষককে গ্রামের বাসিন্দারা সবাই মিলে চাঁদা তুলে ঘোড়া উপহার দিয়েছেন। গ্রামের মানুষের একটাই ইচ্ছে, তাদের সন্তানরা যেন লেখাপড়া শেখার সুযোগ পায়। গ্রামের বাসিন্দা পাঙ্গি সীতারামনের ছেলেও গাম্বারির স্কুলে পড়ে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ১৮ এক প্রতিবেদনে জানায়, ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের প্রত্যন্ত গ্রাম সুরাপেলামের প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক গাম্বারাই। প্রতিদিন তিনি ১৮ কিলোমিটার ঘোড়ায় চেপে পড়াতে যান। কারণ রাস্তার অবস্থা শোচনীয়। আর পরিবহনও উন্নত নয়।

কেন ঘোড়া? মোটরবাইক বা বাস নয় কেন? তাঁকে অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় ভাবলে ভুল হবে। ওই গ্রামে পৌঁচাতে পাহাড়ি পথ পেরোতে হয়। যা মোটরবাইকে সম্ভব নয়। ওই এলাকার রাস্তা এতটাই খারাপ যে হেঁটে যাওয়াও মুশকিল। কিন্তু গাম্বারাই তো নিজের চেয়েও বেশি ভালোবাসেন তাঁর ছাত্রছাত্রীদের। তাই রাস্তার তোয়াক্কা না করে ছুটে চলেন ঘোরায় চড়ে।

খবরে বলা হয়, গাম্বারাই স্কুল থেকে কোনো বেতন নেন না। তাই প্রিয় শিক্ষককে গ্রামের সবাই চাঁদা তুলে ঘোড়াটি উপহার দিয়েছেন। গ্রামের মানুষের একটাই ইচ্ছে, তাঁদের সন্তানরা যেন লেখাপড়া শেখার সুযোগ পায়।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: