সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ১২ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ফেসবুকে ষ্ট্যাটাস দিয়ে মানহানি: বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালকের বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইব্যুন্যালে মামলা

বড়লেখা প্রতিনিধি:: বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক ও বড়লেখার পানিধার গ্রামের মৃত রমা কান্ত রায়ের ছেলে রনজিৎ কুমার রায় জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে বড়লেখার এক সহজ-সরল ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন সংস্থায় একাধিক অভিযোগ দিয়েও ক্ষান্ত হননি। তিনি নিজ নামীয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক আইডি (জধহলরঃ কঁসধৎ জড়ু) থেকে কুরুচীপূর্ণ একাধিক ষ্ট্যাটাস পোষ্ট করে মান সম্মান ক্ষুন্ন করায় ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী লাল মিয়া অবশেষে তার বিরুদ্ধে গত ২২ জুলাই ঢাকা সাইবার ট্রাইব্যুন্যাল আদালতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫(২), ২৮(২)২৯(১), ৩১ এর ধারায় মামলা করেছেন। লাল মিয়া বড়লেখার মুছেগুল গ্রামের মৃত মখলিছ আলীর ছেলে। ২৮ জুলাই বিজ্ঞ আদালত ওসি বড়লেখা থানাকে মামলাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বড়লেখার সহজ-সরল ব্যবসায়ী লাল মিয়া (৫৫)’র বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক বড়লেখার পানিধারের স্থায়ী বাসিন্দা রনজিৎ কুমার রায় একই বিষয়ের ওপর ভূমি প্রতিমন্ত্রী, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক, দূর্নীতি দমন কমিশনসহ সরকারের একাধিক দপ্তরে অভিযোগ করেন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ লাল মিয়ার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগের কয়েক দফা তদন্ত করেও সত্যতা পায়নি। আর কোন পথ না পেয়ে রনজিৎ কুমার রায় লাল মিয়ার সামাজিক মানসম্মান ক্ষুন্ন, অপদস্ত ও হয়রানী করতে তার নিজের ব্যবহৃত ফেইসবুক আইডি থেকে কুরুচীপূর্ণ একাধিক ষ্ট্যাটাস পোষ্ট করতে থাকেন। এ ধরনের পোষ্টে সামাজিক মর্যাদাহানি ঘটায় লাল মিয়া তার বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইব্যুন্যাল আদালতে পিটিশন মামলা (২২৩/২০১৯ইং) দায়ের করেন।

স্থানীয় সুত্রে আরো জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক রনজিৎ কুমার রায় ও তাহার পিতা রমা কান্ত রায় বিভিন্ন সময়ে দেবোত্তর (হস্তান্তর অযোগ্য) রেকর্ডিয় ভূমি বিক্রয় করেন। ক্রেতাদের বেশিরভাগই প্রবাসী। ক্রয়কৃত ভূমি নামজারী করতে গিয়েই ভুক্তভোগীরা জানতে পারেন তারা প্রতারিত হয়েছেন। রনজিৎ কুমার রায়ের চাচা রাধা কান্ত রায় বড়লেখার ১০৪ নং জেএল যুক্ত কাঠালতলী মৌজার ৯ শতক ৪৩ পয়েন্ট ভূমির আমমোক্তার করেন আল্লাদাদ চা বাগানের বাসিন্দা আছার উদ্দিনকে। পরবর্তীতে আমমোক্তার আছার উদ্দিন রাধা কান্ত রায়ের পক্ষে লাল মিয়ার আত্মীয় শামীম উদ্দিন, জসিম উদ্দিন, জালাল উদ্দিনের কাছে ২৪ লাখ টাকায় বর্ণিত ভূমি বিক্রয় করেন। কিন্তু রনজিৎ রায় প্রবাসী শামীম, জসিম, জালাল, লাল মিয়ার বিরুদ্ধে জমিদার বাড়ি দখলের অভিযোগ তুলেন। এ নিয়ে রনজিৎ কুমার রায় লাল মিয়ার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ করেন। অভিযোগ দিয়েও সুবিধা করতে না পেরে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা আপত্তিকর ষ্ট্যাটাস পোষ্ট করে লাল মিয়ার মান সম্মান ক্ষুন্ন করেন।

এব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক রনজিৎ কুমার রায়ের মোবাইল ফোন নম্বরে বারবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন কেটে দেন এবং একপর্যায়ে মুঠোফোনটি বন্ধ করে দেন।

ঢাকা সাইবার ট্রাইবুন্যাল আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌশলী অ্যাডভোকেট শামীম আহমদ রনজিৎ কুমার রায়ের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ সাইবার ট্রাইব্যুন্যাল আদালতে মামলা দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে জানান, আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য ওসি বড়লেখা থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, শনিবার বিকেলে পর্যন্ত এ সংক্রান্ত মামলার কোন নির্দেশনার কপি তার হাতে পৌছেনি।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: