সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ১৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘বাংলাদেশকে চিবিয়ে খাব’ বিজ্ঞাপন প্রত্যাহার!

স্পোর্টস ডেস্ক:: বিশ্বকাপ এলে তো স্টার স্পোর্টস বিতর্কিত বিজ্ঞাপন তৈরি করবে- এটা যেন নিয়ম হয়ে গেছে। এছাড়াও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টকে উপলক্ষ্য করে বহু পণ্য প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বিজ্ঞাপন দেয়। কিন্তু বাংলাদেশকে কটাক্ষ করায় ভারতীয় বাঙালিদের প্রতিবাদের মুখে সেই বিজ্ঞাপন তুলে নেওয়ার ঘটনা বিরল। কিন্তু এবার সেই ঘটনাই ঘটিয়ে দিলেন ভারতের বাঙালিরা।

খোদ ভারতীয়দের আপত্তির মুখে অবশেষে বাংলাদেশ নিয়ে কটাক্ষ করে ভারতীয় টেলিভিশনে প্রচার করা দাঁতের মাজনের একটি বিজ্ঞাপন তুলে নিয়েছে বহুজাতিক সংস্থা ডাবর।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টকে উপলক্ষ্য করে তৈরি ওই বিজ্ঞাপনে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতা ব্যবহার এবং বাংলাদেশকে কটাক্ষ করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছিল।

ভারত-বাংলাদেশের ম্যাচের ঠিক আগে প্রচার হওয়া বিজ্ঞাপনটিতে সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা হওয়ায় ওই টিভি বিজ্ঞাপনটি সরিয়ে কর্তৃপক্ষ ক্ষমা চেয়েছে।

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে ডাবর ধারাবাহিকভাবে তাদের টুথপেস্টের বিজ্ঞাপন তৈরি করিয়েছিল। পাকিস্তান, ইংল্যান্ড আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে ভারতের ম্যাচের ঠিক আগেই সেগুলো দেখানো শুরু করেছিল।

এভাবেই মঙ্গলবারের ভারত বাংলাদেশ ম্যাচের আগ দিয়ে ওই সিরিজের নতুন বিজ্ঞাপনটি দেখানো শুরু হয়। সেখানে অভিনেতা মনোজ পাওয়াকে দেখা যায়, এক বাটি ভর্তি তিলের নাড়ু খেতে, যেটাকে তিনি বর্ণনা করছেন ‘বাংলাদেশ থেকে আনা তিলের নাড়ু’ বলে।

বিজ্ঞাপনটিতে দেখা যায়, তিনি একেকটা নাড়ু খাচ্ছেন আর বলছেন, ‘আমি যেভাবে তোমাদের তিলের নাড়ু চিবোচ্ছি, ওখানে আমাদের এগারোজন মিলে ধুয়ে দেবে ওদের।’ একেবারে শেষে শরীর নাচিয়ে ব্যঙ্গ করে তিনি বলছেন, ‘কী ধুয়ে দিল তো? টাপুর টুপুর বৃষ্টি পড়ে….।’

টিভি চ্যানেলগুলিতে এই বিজ্ঞাপন দেখানো শুরু হতেই সামাজিক মাধ্যমে প্রতিবাদ শুরু করেন ভারতীয় বাঙালিরা। বলা হয়, তিলের নাড়ু তো শুধু বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী খাবারই নয়, এটা ভারতের বাঙালিরাও পছন্দ করেন। সেটাকে ব্যঙ্গ করার অর্থ সব বাঙালিদেরই অপমান করা।

প্রতিবাদ করে আরও বলা হয়, এর সঙ্গে রবীন্দ্রনাথের কবিতা জুড়ে দেওয়ার সময়ে বিজ্ঞাপন নির্মাতা কী এটা মনে রাখেন নি যে তিনি দুটি দেশেরই জাতীয় সঙ্গীত লিখেছেন!

বাংলা ভাষা-সংস্কৃতি স্বপক্ষে ফেসবুকে ব্যাপক প্রচার চালান অধ্যাপক গর্গ চ্যাটার্জী। তিনি এবং তার সঙ্গীরা মিলে যে ‘বাংলাপক্ষ’ নামে সংগঠন তৈরি করেছেন, তারাই প্রথম প্রতিবাদ শুরু করেন ফেসবুকেই।

গর্গ চ্যাটার্জী লিখেছিলেন, তিলের নাড়ু ও টাপুর টুপুর বৃষ্টি পড়ে যাদের, তাদের চিবিয়ে খাবে বলে বাঙালি বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে ডাবর কোম্পানি। রুখে দাঁড়াও। এর সঙ্গে সঙ্গে প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে।

সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক প্রতিবাদ হতে থাকায় ডাবর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একটি টুইট করে বিজ্ঞাপনটি তুলে নেওয়ার ঘোষণা দেয়। একই সঙ্গে তারা অনিচ্ছাকৃতভাবে কারও ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার জন্য ক্ষমাও চায়।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: