সর্বশেষ আপডেট : ৩৯ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

খননের ফলে মনাজোড়া খালে নৌকা চলছে, মাছের বিচরণ ও ফসল আবাদ

হবিগঞ্জ সংবাদদাতা:: হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল ইউনিয়নে রয়েছে হাওর। হাওরের মাঝখান দিয়ে বয়ে গেছে কয়েকটি খাল। এসব খাল পুনর্খনন হওয়ায় সেচ সুবিধা পেয়ে চাষিরা উপকৃত হবেন। বিষয়টির প্রতি নজর দেন পইল ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মঈনুল হক আরিফ।

তিনি খালগুলো খননের আবেদন করেন। এতে সাড়া দিয়ে বিএডিসি বরাদ্দ প্রদান করে। এতে বড়খালের ৪ কিলোমিটার, মনাজোড়া খালের দেড় কিলোমিটার ও নাজিরপুর খালের দেড় কিলোমিটার খনন হয়। এরপরও মনাজোড়া খালের আরও ১ কিলোমিটার এবং নাজিরপুর খালের দেড় কিলোমিটার খনন হয়েছে।

খালগুলো খনন হওয়ায় চাষিরা পানি নিয়ে বোরো ধানসহ বিভিন্ন ধরনের ফসল চাষ করছেন। খনন করা খালের মাটি দিয়ে পাড় ভরাট করায় রাস্তা তৈরি হয়েছে।

এ রাস্তা দিয়ে চাষিরা বিভিন্ন স্থানে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারছেন। এছাড়া খালের পানিতে নৌকা নিয়েও চলাচল করা যায়। খালে পাওয়া যাচ্ছে দেশীয় মাছ। খাল খনন হওয়ায় প্রায় ৫ হাজার চাষি বিভিন্নভাবে উপকৃত হচ্ছেন।

পইল ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মঈনুল হক আরিফ বলেন, নিজেদের অস্তিত্বের প্রয়োজনেই আমাদের প্রাকৃতিক জলাশয়গুলোকে রক্ষা করতে হবে। এ লক্ষ্যে সরকারেরও উদ্যোগের শেষ নেই।

দিনে দিনে পলি পড়ে ভরাট হয়ে যাওয়া খাল ও পুকুর পুনর্খননের মাধ্যমে গ্রামের বেকার যুব সমাজের কর্মসংস্থান করে গ্রামীণ অর্থনীতির চাকা সচল রাখার সকল আয়োজন সরকারের সবসময়ই আছে।

দেশের জীব বৈচিত্র ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় জলাশয়ের গুরুত্ব অপরিসীম। হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল ইউনিয়নের বিভিন্ন খালের মত মনাজোড়া খালটিও পলি পড়ে ভরাট হয়ে গিয়েছিল। এতে ঠিকমত পানি নিস্কাশন না হয়ে হাওরের বিশাল অংশে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হত।

ফলশ্রুতিতে বিলম্বিত হয়ে আসছিল ধানের আবাদ। এজন্য জলাশয় পুনর্খনন প্রকল্পের আওতায় মনাজোড়া খালের তিন কিলোমিটার পুনর্খননের উদ্যোগ নিয়ে মাস দুয়েক আগে খনন কাজ শেষ করা হয়।

এ বর্ষায় খালের উত্তর পূর্বাংশ পরিদর্শনে গিয়ে বেশ ভাল লেগেছে। বেশ কিছু নৌকা চলছে খালের বুক চিড়ে। কেউবা মাছ ধরায় ব্যস্ত।

স্থানীয়দের সাথে আলাপ করে জানলাম খাল খননের ফলে সৃষ্ট নানাবিধ সুবিধার কথা। গত বছর এই সময়ে খালে নৌকা চালানো ছিল অলীক কল্পনা। খালের পৃষ্টে পানি ছিল না বললেই চলে।
এ বছর হাওর পানির অভাবে খা খা করলেও মনাজোড়ায় নৌকা চলছে নির্বিঘেœ। প্রায় আট ফুট পানি আছে খালে।

এই পানি দিয়ে আগামী কয়েকমাস হাওরে কৃষকের প্রয়োজন মিটানো যাবে অনায়াসে। মাছ ধরে বাজারে বিক্রি করে টাকা রোজগার করতে পারছেন অনেকেই। বেশ ভাল লাগল সবার ভাল লাগা দেখে। মনাজোড়া খালকে ঘিরে জেগে উঠুক এই অঞ্চলের গ্রামীণ অর্থনীতি। কর্মসংস্থান হোক অসংখ্য বেকার যুবকের।





নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: