সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ১৪ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মানুষ নামের অমানুষগুলো…

ইসমাইল মাহমুদ:: এক : না, নতুন ঘটনা নয়। নয় নতুন কিছু। এ যেন চিরাচরিত! জন ডানের একটি কবিতার দুটি লাইন মনে পড়ছে-‘মানুষ আসলে বিচ্ছিন্ন কোন দ্বীপ নয়। মৃত্যুর সংবাদবাহী ঘণ্টাটা বাঁজে আমাদের সবার জন্যেই।’ রাস্তায় প্রকাশ্যে ও দিনের আলোতে স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যার দৃশ্যের ভিডিওটি দেখার পর একটি কথাই বার বার মনে হচ্ছে ‘আমরা আজো একটা অমানুষের বস্তিতে বাস করি। অমানুষগুলো আমাদের মনুষত্ব নিয়ে খেলা করছে অবিরত।’

বুধবার সকালে বরগুনা সরকারি কলেজ সংলগ্ন স্থানে শত শত মানুষের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফ (২৫) কে নির্মমভাবে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার ভিডিও দেখে আত্বরাত্মা কেপে ওঠছে (বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিফাত মৃত্যুবরণ করেন)। সন্ত্রাসীদের এ আচরণ পশুত্বকেও হার মানিয়েছে। এ কোন বর্বর যুগে আমাদের বসবাস? বন্য পশুর চেয়েও অধম আমাদের আচার-আচরণ। মনে ভাবনার ঢেউ আসলেই কি আমরা মানুষ? নাকি মানুষ নামের অমানুষ।

সমাজের নিরীহ ও শান্তিপ্রিয় মানুষগুলো কেউ আগুনে পুড়ে মরে, কেউ সন্ত্রাসীদের অস্ত্রাঘাতে মরে, কেউ মানুষ নামের অমানুষদের কাছে জিম্মি বা নির্যাতনের শিকারে অতিষ্ট হয়ে আত্মহনন করে জীবন থেকে পালিয়ে বাঁচে। অস্বাভাবিক ও অকাল মৃত্যুর তালিকায় প্রতিনিয়তই নতুন নতুন নাম যুক্ত হচ্ছে। যারা পশুত্বের চেয়েও অধম কাজগুলো করছে তাদের কাজ আমরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে চর্মচক্ষুতে অবলোকন করছি আর স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছি যে মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে সে আমার নিজের আত্মীয়-স্বজন কেউ না। চোখের সামনে মানুষ নামের অমানুষগুলো প্রকাশ্যে কুপিয়ে মানুষ হত্যা করছে আর আমরা হত্যার দৃশ্যটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিচার দাবি করছি। আমাদের চোখের সামনে যে নির্মম ঘটনাটি ঘটছে তার প্রতিবাদ বা প্রতিরোধ না করে দুরে দাঁড়িয়ে দেখাটাই যেন আমাদের একমাত্র দায়িত্ব বা কাজ! কিন্তু একটি কথা আমরা অবলিলায় ভুলে যাচ্ছি ‘আজ তার হলে কাল আমার। হয়তো একসময় মানুষ নামের এসব অমানুষদের অস্ত্রাঘাতে এভাবেই বেগোরে আমাকেও প্রকাশ্যে প্রাণ বিসর্জন দিতে হতে পারে।’

আমাদের প্রিয় সোনার বাংলা এখন চরম অস্থিরতার একটি দ্বীপের মতো। বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত অসংখ্য নারী-শিশু তাদের সতিত্ব হারিয়েছে। সোনার দেশটাকে খুবলে খেতে চাইছে মানুষ নামের অমানুষগুলো। তাহলে কি পাক পেতাত্মারা ভর করেছে আমাদের দেশের মানুষ নামের অমানুষদের শরীরে? যারা এ দেশের আমজনতাদের খুবলে খেতে চাইছে তাদের দাপটে আমজনতা এখন অস্থির। অস্থিরতা নিরীহ ও শান্তিপ্রিয় আমজনতার ঘর্মাক্ত মুখে, উদ্বেগ উৎকণ্ঠা ভর করেছে মনে-প্রাণে। অনিশ্চিত এক ভবিষ্যৎ দুরু-দুরু বুকে দরজার বাইরে যেন পায়চারি করছে। হিং¯্রতা আর হানাহানি নিয়ে আতঙ্কগ্রস্থ দেশের আমজনতা।
বরগুনায় যে ঘটনা ঘটে গেল সেটা এক কথায় বর্বরতম। একটা মানুষকে তার স্ত্রীর সামনে যখন মানুষ নামের অমানুষগুলো প্রকাশ্যে কুপিয়ে চলেছে শত-শত মানুষ ঘটনাস্থলের আশ-পাশে দাঁড়িয়ে এ দৃশ্য দেখে চর্মচক্ষুকে প্রশান্তি দিয়েছে। প্রিয়তম স্বামীর প্রাণ বাঁচানোর জন্য স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি দুই যুবককে বারবার প্রতিহতের চেষ্টা করে। কিন্তু দুই অস্ত্রধারী যুবকের সামনে অসহায় মিন্নির পক্ষে স্বামীর প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়নি। যে মানুষ নামের অমানুষগুলো নির্মমভাবে প্রকাশ্যে কুপিয়ে শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফকে হত্যা করেছে তাদের দেশের প্রচলিত আইনে সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি। সেই সাথে আর যেন কোন রিফাতকে এভাবে প্রাণ হারাতে না হয় সে প্রার্থনা করছি।

দুই : দেশে একের পর এক তরতাজা মানুষগুলো লাশে পরিণত হচ্ছে আর আমরা নতুনভাবে এ নিয়ে আলোচনায় ব্যস্ততম সময় অতিবাহিত করছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে ঘটনার বিচার দাবি করছি। কিন্তু চোখের সামনে অমানুষগুলো বর্বরতম কর্মকান্ড যখন চালিয়ে যাচ্ছে তখন দেখেও না দেখার ভান করে চলেছি। মনে মনে ভাবছি ‘হোক না মৃত্যু উপত্যাকা-আমি তো বেশ আছি।’

আবার জাগুক মানুষের বিবেক, আবার জেগে উঠুক মানুষ। ভবিষ্যতের দেশ, ভবিষ্যত প্রজন্ম আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে। আবারও একদিন হয়তো আমাদের প্রিয় এ দেশটা সোনার মানুষে ভরে যাবে। প্রকৃত অর্থেই গড়ে উঠবে সোনার দেশ হিসেবে।
শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফ ভালো থেকো পরপারে।

লেখক : গণমাধ্যমকর্মী ও কলামিষ্ট,[email protected]



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: