সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রেমিকের বাড়ির সামনে অনশনের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ভালোবাসার জয়!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কালীগঞ্জ ব্লকের রাধাকান্তপুরের পূর্বপাড়ায় ভালোবাসা ফিরে পেতে পিঠে একটি ব্যাগ নিয়ে প্রেমিক জিন্নাত আলির বাড়ির সামনে এসে হাজির হন মাফুজা।

বাড়ির দরজার সামনে বসে পড়েন তিনি। আর ৪৮ ঘণ্টা বসে থেকে জয় করে নিলেন ভালোবাসাকে। তার ভালোবাসার সামনে মাথা নত করতে বাধ্য হলেন প্রেমিক জিন্নাত আলি।

পশ্চিমবঙ্গের কালীগঞ্জ থানার রাধাকান্তপুরে মাফুজার এই ঘটনা নিয়ে গতকাল থেকে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

ভারতের গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, সোমবার সকাল ১০টার দিকে হঠাৎ পিঠে একটি ব্যাগ নিয়ে জিন্নাত আলি নামের এক ব্যক্তির বাড়ির সামনে এসে হাজির হন মাফুজা।

এরপর ব্যাগে করে আনা কাগজ পেতে বাড়ির বাইরে বসে পড়েন। যদিও দিনভর দেখা মেলেনি প্রেমিকের। ওই সময় বাড়িতে ছিলেন তার মা। অবস্থা বেগতিক বুঝে বাড়ির দরজায় তালা লাগিয়ে বাইরে চলে যান প্রেমিক। মেয়েটি তখনও সেখানেই বসে ছিলেন।

বিষয়টি নিয়ে পাড়ার লোকজন জানতে চাইলে মেয়েটি বলেন, ‘ভালোবাসা ফিরে পেতে এসেছি। ও যতক্ষণ না আমায় বিয়ে করবে, ততক্ষণ আমি এখান থেকে যাব না।’

আর তার ভালোবাসা ফল মিলল প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর। মাফুজা বাড়ির সামনে বসার পর বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন জিন্নাত। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি হয়তো নিজের ভুল বুঝতে পারেন।

মঙ্গলবার বিকেলে ফিরে আসেন প্রেমিকার কাছে। জিন্নাতকে ফিরে পেয়ে হাসি ফুটেছে মাফুজার মুখেও। ‘আন্দোলন’ সার্থক হয়েছে তার। বিশেষ করে এখন তারা বিবাহিত। মুসলিম আইন মেনে দু’জনের বিয়ে হয় মঙ্গলবার বিকেলে।

স্বামীকে পাশে পেয়ে পুরনো ঘটনা ভুলে সুখে ঘর করতে চান মাফুজা। পরে স্থানীয় সাংবাদিকদের অনুরোধে নববধূর হাত ধরে ছবি তুললেন জিন্নাতও।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: