সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইহুদিদের হামলায় রণক্ষেত্র আল-আকসা মসজিদ


নিউজ ডেস্ক: ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে শত শত ইহুদি গত রোববার (০২ জুন) জেরুজালেমে পবিত্র আল-আকসা মসজিদে ঢুকে পড়ে। ফলে আল-আকসা মুসল্লিদের মধ্যে উত্তেজনা ও আতঙ্কের সৃষ্টি হয়।

এ সময় ইসরায়েলি পুলিশ মুসলিমদের ওপর হামলা চালায়। ফলে ইহুদি ও মুসলিমদের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষে মসজিদ প্রাঙ্গণ রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। ইসরায়েলি বাহিনী ফিলিস্তিনি মুসল্লিদের লক্ষ্য করে টিয়ার গ্যাস শেল নিক্ষেপ করে।

এ ছাড়া বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনিকে আটক করে। এর আগে গত সোমবার সশস্ত্র বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ইহুদিরা আল-আকসায় প্রবেশ করেছিল। সেদিনই তারা জেরুজালেম দিবসকে সামনে রেখে ২ জুন আবার মসজিদে ফিরে আসার ঘোষণা দিয়েছিল। খবর আলজাজিরা ও এএফপির।

তিন দশকের মধ্যে এই প্রথম পবিত্র রমজান মাসে ইহুদিদের পবিত্র আল-আকসা মসজিদে প্রবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মসজিদের ভেতর বিক্ষোভকারীরা নিজেদের অবরোধ করে রাখে এবং ইসরায়েলি বাহিনীকে লক্ষ্য করে চেয়ার ও পাথর ছুড়তে থাকে। মুসলিম ওয়াকফ সংগঠন জানায়, ফিলিস্তিনিদের ওপর পুলিশ রাবার বুলেট ও মরিচ স্প্রে ব্যবহার করেছে। এ ছাড়া দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানায় সংগঠনটি।

সংঘর্ষের পর পুলিশ মুখপাত্র মিকি রোজেনফেল্ড বলেন, মসজিদে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে এসেছে এবং পুরো পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

২ জুন জেরুজালেম দিবস নামে পরিচিত। ১৯৬৭ সালের এই দিনে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধ শেষ হয়। ওই যুদ্ধে জয়ী হয় ইসরায়েল। তাই প্রতি বছর ইসরায়েল দিনটি জেরুজালেম দিবস হিসেবে উদযাপন করে থাকে।

আর একদিন পরই মুসলিমদের পবিত্র রমজান মাস শেষ হবে। এর পরই ঈদ, যা মুসলমানদের জন্য একটি বড় ধর্মীয় উৎসব। এই উপলক্ষে অনেকেই ফিলিস্তিনের বিভিন্ন স্থানে এবং আরব বিশ্ব থেকে আল-আকসা মসজিদে যাবেন। এ অবস্থায় মুসলিমদের ভীতি প্রদর্শন করতে মসজিদে আক্রমণ চালানো হচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পবিত্র রমজান মাসে দু’সপ্তাহের মধ্যে ইসরায়েলিরা তৃতীয়বারের মতো এখানে তাণ্ডব চালিয়েছে। এর আগে গত সপ্তাহে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী শুধু মুসল্লিদের বিরক্ত ও ভীতি প্রদর্শন করতে মসজিদ দু’বার আক্রমণ চালিয়েছে।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইসরায়েলি বসতি স্থাপনকারীরা এবং ইহুদি চরমপন্থি ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলো আল-আকসা মসজিদ কম্পাউন্ডে আক্রমণের সংখ্যা ও তীব্রতা বাড়িয়েছে। ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর পূর্ণ সমর্থন নিয়েই এই হামলা চালানো হচ্ছে। ইহুদি চরমপন্থি গোষ্ঠীগুলোর অভিপ্রায় হলো, মসজিদটি ভেঙে ফেলে এ জায়গায় একটি ইহুদি উপাসনালয় স্থাপন করা।

গত সোমবার ওই মসজিদে ঢুকতে বেশকিছু ইসরায়েলি ডানপন্থির সঙ্গে ইসরায়েলের বিশেষ বাহিনীর ৩০ জন সেনা অংশ নিয়েছে। এই সেনারা মসজিদটির বিভিন্ন অংশে অবস্থান নেয় যাতে ইসরায়েলি ডানপন্থিরা নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিদের মসজিদ ত্যাগে বাধ্য করতে পারে।

এর পরই ডানপন্থি দলটি জেরুজালেম দিবসে পুনরায় মসজিদে ফিরে আসার অঙ্গীকার করে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: