সর্বশেষ আপডেট : ২২ মিনিট ৫৭ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্নেহের পরশ পেলেন ওবায়দুল কাদের

নিউজ ডেস্ক:: চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেই নিজ কাজে বেশ সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদের।

এতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কথা বলার সময় তার মাইক্রোফোনটি সরে যায়। ওবায়দুল কাদেরের পাশেই বসা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাইক্রোফোনটি ঠিক করে দেন এবং কথা বলার সময় পিঠে হাত বুলিয়ে দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এহেন মাতৃসুলভ আচরনে অভিভূত হয়েছে দেশবাসী। ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই দৃশ্য ভাইরাল হয়েছে।

দুপুর ১টার দিকে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বাঁশি বাজিয়ে, সবুজ পতাকা উড়িয়ে পঞ্চগড় এক্সপ্রেস উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে বেলা সাড়ে ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ২য় মেঘনা ও ২য় গোমতী সেতুর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া তিনি সাসেক সড়ক সংযোগ প্রকল্পের আওতায় জয়দেবপুর-চন্দ্রা-টাঙ্গাইল-এলেঙ্গা মহাসড়কে কোনাবাড়ী ও চন্দ্রা ফ্লাইওভার, কালিয়াকৈর, দেওহাটা, মির্জাপুর ও ঘারিন্দা আন্ডারপাস এবং কড্ডা-১ সেতু ও বাইমাইল সেতু উদ্বোধন করেন।

সড়কে চলাচলের বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য স্কুলজীবন থেকেই ট্রাফিক আইন প্রশিক্ষণে গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মনে হয় ট্রাফিক রুলের ওপর স্কুলজীবন থেকেই প্রশিক্ষণ প্রদান করা দরকার। তাহলে সবার মাঝে সচেতনতাটা গড়ে উঠবে।’ তিনি এ সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটির সময় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বিধানে সচেষ্ট হওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কলেজ বা বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান, যাতে কোনো কোমলমতি শিক্ষার্থী দুর্ঘটনার শিকার না হন।

মেট্রোরেলের নির্মাণ কাজ চলার কারণে ঢাকাবাসীর যানজটকবলিত হওয়ার প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, ‘ভালোভাবে চলাচলের জন্য আমি বলবে, এই কষ্টটা একটু আপনাদের সহ্য করতেই হবে। আশা করি কাজটা হয়ে গেলে আর কষ্ট থাকবে না।’

প্রধানমন্ত্রী সবাইকে আসন্ন ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়ে দেশের উন্নয়নের গতিধারাটা অব্যাহত রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সুস্থ হয়ে দেশে ফেরায় তাকে দোয়া করার জন্য দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান প্রধানমন্ত্রী। ওবায়দুল কাদের অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী একেএম মোজাম্মেল হক এবং কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশে জাপানের রাষ্ট্রদূত হিরোয়াসু ইজুমি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব প্রকল্পগুলোর ভিডিও উপস্থাপনার মাধ্যমে বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলতি বছরের ১৬ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীর ওপর দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতুর উদ্বোধন করেন। যেটি ইতিমধ্যেই যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। জাপানি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ওবায়সি কর্পোরেশন, শিমঝু কর্পোরেশন, জেএফএফ কর্পোরেশন ও আইএইচআই ইনফ্রা সিস্টেমস কোম্পানি লি. ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতীর সঙ্গে দ্বিতীয় কাঁচপুর ব্রিজের কাজ শুরু করে।

এই তিনটি সেতু নির্মাণে মোট ব্যয় হয়েছে ৮ হাজার ৪৮৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাপানের জাইকা ৬ হাজার ৪৩০ কোটি টাকা সহায়তা দিয়েছে। ৯ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রায় ৪০০ মিটার দীর্ঘ নতুন কাঁচপুর সেতু, ১ হাজার ৭৫০ কোটি ও ১ হাজার ৯৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৯৩০ মিটার মেঘনা ও ১,৪১০ মিটার গোমতী সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

এরপর ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে স্বল্প বিরতির আন্তঃনগর ট্রেন পঞ্চগড় এক্সপ্রেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ওবায়দুল কাদের।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: