সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৪৯ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখার সৎপুর কমিউনিটি ক্লিনিক: টি,আর উত্তোলনের ৬ মাস পরও সংস্কার কাজ হয়নি

বড়লেখা প্রতিনিধি:: বড়লেখার বর্নি ইউনিয়নের সৎপুর কউিনিটি ক্লিনিকে টি,আর (সাধারণ কর্মসুচি) বরাদ্দের ৪০ হাজার টাকা উত্তোলনের ৬ মাস পরও সংস্কার কাজ বাস্তবায়নের খবর নেই। ক্লিনিকের বাহিরের দেয়ালে সর্বোচ্চ ৪-৫ হাজার টাকার রং দিয়ে অন্যান্য কাজ না করেই বরাদ্দের অবশিষ্ট অর্থ আত্মসাত করেছে প্রকল্প কমিটি। উপজেলার অধিকাংশ টি,আর বরাদ্দের ৫-১০ ভাগ কাজ করে আবার কোথাও একেবারে না করেই অর্থ লুটপাট করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, হাকালুকি হাওর পাড়ের সৎপুর কমিউিনিটি ক্লিনিকের নিচু প্রবেশ পথে মাটি ভরাট, লেট্টিন, মেঝ, বিদ্যুৎ লাইন মেরামত ও দেয়াল ও রঙের জন্য ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষনাবেক্ষণ সাধারণ কর্মসুচির আওতায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ৪৩ হাজার ৩০০ টাকা বরাদ্দ প্রদান করেন। স্থানীয় ৩ নং ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুস ছামাদকে সভাপতি, ইউনিয়ন আ’লীগের সেক্রেটারী জুবের আহমদকে সম্পাদক, মুসলিম উদ্দিন, সমছ উদ্দিন ও দেলোয়ার হোসেনকে সদস্য করে প্রকল্প কমিটি জমা দেয়া হয়। গত বছরের ২৯ নভেম্বর প্রকল্প কমিটির সভাপতি ও সম্পাদক সোনালী ব্যাংক বড়লেখা শাখা থেকে বরাদ্দের ৪০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। কিন্তু অর্থ উত্তোলনের ৬ মাস পরও প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করেননি।

সরেজমিনে গেলে সৎপুর কমিউিনিটি ক্লিনিকের সিএইচপিসি পুলক চক্রবর্তী জানান, মেইন রাস্তা থেকে কমিউিনিটি সেন্টারে ঢুকার রাস্তা বর্ষায় ডুবে যায়। লেট্টিন ব্যবহারের অনুপযোগী, বিদ্যুৎ লাইন ছেড়া, ফ্লোর ভাঙ্গা। ইত্যাদি সংস্কার কাজের জন্য গত বছর ৪০ হাজার টাকা টি,আর বরাদ্ধ আসলেও বাহিরের দেয়ালে রঙ দেয়া ছাড়া কোন কাজই করা হয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ৪-৫ হাজার টাকার দেয়াল রঙ করে বাকি টাকা আত্মসাত করেছেন আ’লীগ নেতা জুবের আহমদ ও ইউপি মেম্বার আব্দুস ছামাদ।

প্রকল্প কমিটির সভাপতি ও ইউপি মেম্বার আব্দুস ছামাদ প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, কমিটির কাগজে তিনি স্বাক্ষর করেছেন মাত্র। প্রকল্পের সাধারন সম্পাদক জুবের আহমদ ব্যাংক থেকে ৪০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। তাকে ১০ হাজার টাকা দেয়ায় তিনি ক্লিনিকের বাহিরের দেয়াল রঙ করেন। বাকি টাকা না দেয়ায় অন্যান্য সংস্কার কাজ হয়নি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. উবায়েদ উল্লাহ খান জানান, যারা এখনও টি,আর বরাদ্দের প্রকল্প বাস্তবায়ন করেননি তাদেরকে দ্রুত কাজ সম্পন্নের জন্য চিটি দেয়া হয়েছে। প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন না করলে টাকা ফেরৎ দিতে হবে।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: