সর্বশেষ আপডেট : ২৩ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এ টি এম শামসুজ্জামানকে দেখতে হাসপাতালে পপি, ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রীকে

বিনোদন ডেস্ক:: ১৯৯৭ সালে মনতাজুর রহমান আকবরের কুলি ছায়াছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে আবির্ভূত হন অভিনেত্রী সাদিকা পারভিন পপি। এ পর্যন্ত তিনি মেঘের কোলে রোদ, কি যাদু করিলা, গঙ্গাযাত্রা ছায়াছবিতে অভিনয়ের করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

সম্প্রতি বর্ষীয়ান অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামানকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন সাদিকা পারভিন পপি। প্রবীণ এই অভিনেতা দীর্ঘ দিন ধরেই শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছেন। ভর্তি আছেন হাসপাতালে।

তাকে দেখে এসে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন পপি। সেখানে তিনি এ টি এম শামসুজ্জামানের চিকিৎসার অর্থ প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

স্ট্যাটাসটি পপি লিখেছেন- ‘শ্রদ্ধেয় এটি এম শামসুজ্জামান শুধু ভালো একজন অভিনেতা নন, তিনি একজন শিক্ষক, আমার গুরুজন, আমার বাবা, এছাড়াও আমার ভালোবাসার একজন প্রিয় মানুষ। তার হাসি আমার কাছে হাজার কোটি টাকার চেয়ে অনেক বেশি দামি। আমি অনেক লাকি তিনি বাবা হিসেবে সবসময় আমার পাশে থেকেছেন।

আর আমার সকল প্রাপ্তি ও ভালো কাজে খুশি হয়েছেন এবং অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। এ জন্য আমি তার কাছে চিরকৃতজ্ঞ। তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আমরা তাকে এই অবস্থায় আর দেখতে চাই না, তিনি সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসুন।

সবাই আমার বাবার জন্য দোয়া করবেন, আল্লাহ যেন তাকে তাড়াতাড়ি সুস্থ করে দেন। আমার বাবার পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ মমতাময়ী প্রধানমন্ত্রীকে। তিনি সবসময় শিল্পীদের ভালোবাসেন ও পাশে থাকেন। তার প্রতি অনেক ভালোবাসা ও কৃতজ্ঞতা।’

গত ২৬ শে এপ্রিল রাতে বাসায় অসুস্থবোধ করলে এ টি এম শাসুজ্জামানকে রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে প্রফেসর ডা. রাকিব উদ্দিনের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন।

এটিএম শামসুজ্জামানের চলচ্চিত্র জীবনের শুরু ১৯৬১ সালে ‘বিষকন্যা’ ছবিতে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর সহকারী হিসেবে। প্রথম কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের। ছবির পরিচালক ছিলেন নারায়ণ ঘোষ মিতা।

এ পর্যন্ত শতাধিক ছবির চিত্রনাট্য ও কাহিনী লিখেছেন তিনি। অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্র পর্দায় আগমন ১৯৬৫ সালে। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ ছবিতে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আলোচনা আসেন এটিএম শামসুজ্জামান। এরপর বিভিন্ন ছবিতে অভিনয় করে পান দর্শকপ্রিয়তা।



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: