সর্বশেষ আপডেট : ৪৯ মিনিট ১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৬ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অবৈধ পথে ইতালি যাওয়ার পথে নৌকাডুবি: হবিগঞ্জের দুই শিক্ষার্থী নিখোঁজ

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি:: অবৈধ ভাবে নদী পথে ইউরোপের দেশ ইতালি যাওয়ার পথিমধ্যে আফ্রিকার তিউনিসিয়া উপকূলে ভূমধ্য সাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় হবিগঞ্জের বৃন্দাবন সরকারি কলেজের দৃই শিক্ষার্থী নিখোঁজ রয়েছেন। তারা হলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকড়া গ্রামের হাজী আলাউদ্দিনের পুত্র আব্দুল কাইয়ুম (২২) ও আব্দুল জলিলের পুত্র আব্দুল মোক্তাদির (২২)।

নৌকাডুবির পর জেলেদের তৎপরতায় উদ্ধার পেয়ে মামুন নামের তাদের এক সহপাঠী সেখান থেকে বাড়িতে ফোন করে এই তথ্য জানিয়েছেন।
হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফরহাদ আহমেদ আব্বাছ বলেন, ‘আমাদের গ্রামের মামুন মিয়াও ডুবে যাওয়া নৌকার মধ্যে ছিলেন। কিন্তু ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন। তিনিই ফোন করে এই তথ্য জানিয়েছেন। দুই শিক্ষার্থীর বিষয়টি পুলিশ ও জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।

নিখোঁজ আব্দুল কাইয়ুমের বাবা হাজী আলাউদ্দিন জানান, গত বুধবার তার ছেলে বাড়িতে ফোন করে ইতালি যাওয়ার বিষয়টি জানায়। এরপর তার সহপাঠী মামুন ফোন করে নৌকাডুবির ঘটনায় কাইয়ুমের নিখোঁজের তথ্য জানিয়েছে।
এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সহিদুর রহমান জানান, তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবির ঘটনায় লোকড়া গ্রামের দুই যুবক নিখোঁজের বিষয়টি জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ৯ মে রাতে দালালদের মাধ্যমে অবৈধ পথে ইতালি যাওয়ার জন্য আব্দুল কাইয়ুম ও আব্দুল মোক্তাদির নৌকায় ওঠেন। তাদের সঙ্গে ছিলেন একই গ্রামের মামুন মিয়া (২২) এবং নূরুল আমীন (২৮) সহ দেশের বিভিন্ন স্থানের অনেক ব্যক্তি। গভীর রাতে লিবিয়া উপকূল থেকে ৭৫ জনকে নিয়ে একটি বড় নৌকা ইতালি পাড়ি জমায়। নৌকাটি ভূমধ্য সাগরের তিউনিসিয়া উপকূলে ডুবে ৩৭ জন মারা যায়। অনেকেই নিখোঁজ হন। এদের মধ্যে অধিকাংশই সিলেট বিভাগের বাসিন্দা।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: এ. আর. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: