সর্বশেষ আপডেট : ৫৪ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রতিশ্রুতি’র উদ্যোগে মুসা আল হাফিজ’র বিদায় সংবর্ধনা

কবি ও গবেষক মুসা আল হাফিজকে সিলেট ও বাংলাদেশের নয়, পৃথিবীর সম্পদ বলে মন্তব্য করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক, রবীন্দ্রনাথ ও নজরুল গবেষক প্রফেসর ড. রিজাউল ইসলাম। প্রতিশ্রুতি সাহিত্য ও বিজ্ঞান চর্চা পর্ষদ’র উদ্যোগে কবি-গবেষক মুসা আল হাফিজ’র বিদায় সংবর্ধনা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে এমন মন্তব্য করেন। এছাড়া প্রফেসর ড. রিজাউল ইসলাম আরো বলেন, “রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোনো দেশ ছিলো না। আল্লামা ইকবাল, নজরুল, শেখ সাদী, মহাকবি রুমীদের কোনো দেশ ছিলো না। তাঁরা নিজেকে, পরিবারকে, দেশকে ছাপিয়ে হয়ে যান বিশ্ববাসীর। বিশ্ব মানবতার সুখ, দুঃখকে নিজের সুখ, দুঃখ বানিয়ে বিশ্বের ব্যথা-বেদনার উপশম চিন্তায় তারা কাতরান। মুসা আল হাফিজের চিন্তা-দর্শন, ইতিহাস চর্চা এবং তাঁর ত্রিশটি গবেষণাগ্রন্থ আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। বাংলা সাহিত্যের প্রকৃত ইতিহাস, বাংলা সাহিত্য ও বাঙ্গালীর মর্যাদার ইতিহাস খুঁজে পাই মুসা আল হাফিজের শতাব্দীর চিঠিতে। ইতিহাসের বিকৃত পৃষ্ঠাসমূহ তিনি চিহ্নিত করে আমাদেরকে মিথ্যা ও অন্ধকার থেকে টেনে তুলেছেন। গত মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে সিলেট সেন্ট্রাল উইমেন্স কলেজের অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সম্মানিত আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন কবি-গবেষক মুকুল চৌধুরী এবং অনুভূতি ব্যক্ত করেন কবি-গবেষক মুসা আল হাফিজ।

প্রতিশ্রুতি সাহিত্য ও বিজ্ঞান চর্চা পর্ষদ’র সভাপতি অধ্যাপক কবি বাছিত ইবনে হাবীবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সিলেট সরকারী আলিয়া মাদরাসার সহযোগী অধ্যাপক আব্দুল মুসাব্বির, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব সভাপতি মুহিত চৌধুরী, শাবিপ্রবির ডেপুটি রেজিস্ট্রার আহমদ মাহবুব ফেরদৌস, মদন মোহন কলেজের সহকারী অধ্যাপক জিন্নুরাইন চৌধুরী, দারুল আজহার মডেল মাদরাসার অধ্যক্ষ মনজুরে মাওলা, কলামিস্ট এনাম আহমদ চৌধুরী, ব্যাংকার আহমদ শামসুদ্দিন, আবৃত্তিশিল্পী বিমল কর, লেখক-কলামিস্ট মাজহারুল ইসলাম জয়নাল, কবি শায়ির খানদানী, কবি আমিনা শহীদ চৌধুরী মান্না, কবি ইসমত হানিফা চৌধুরী, জননী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন সুজাত, গল্পকার তাসলিমা খানম বীথি, সাংবাদিক কবি মো. আব্দুল বাছিত এবং মুসা আল হাফিজ’র কবিতা আবৃত্তি করেন সানজিদা হোমায়রা কেয়া, হিমেল মাহমুদ, আহমদ জারির। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিশ্রুতির সাধারণ সম্পাদক কবি স¤্রাট তারেক। মুসা আল হাফিজ রচিত হামদে বারী পরিবেশন করেন চেতনা শিল্পী গোষ্টীর সদস্যরা। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফিজ আব্দুল্লাহ আল মাসউদ। অনুষ্ঠানে প্রতিশ্রুতির পক্ষ থেকে মুসা আল হাফিজকে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে সিলেটের সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

সম্মানিত আলোচকের বক্তব্যে কবি মুকুল চৌধুরী বলেন, মুসলিম উম্মাহর চিন্তার সংকট মোকাবেলায় অবদান রাখছেন মুসা আল হাফিজ। তাঁর চিন্তা-চেতনা এবং সামগ্রিক দর্শন মুসলিম উম্মাহর কল্যাণের জন্য নিবেদিত। জাতিসত্তাকে এগিয়ে নিতে মুসা আল হাফিজ’র সৃষ্টিশীল কর্মতৎপরতা জাতিকে আলোর পথ দেখাবে। উম্মাহর জন্য উপকারী এমন ক্ষেত্র তৈরীতেই আত্মনিবেদন করবেন তিনি এটাই প্রত্যাশা। অনুভূতি প্রকাশ করে মুসা আল হাফিজ বলেন, একটি জাতির জাগরণের জন্য পুরো প্রজন্মকে ঐকান্তিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে এগিয়ে আসতে হয়। কলমের শেষ রক্তবিন্দুর সাথে ঐকান্তিকতার সমন্বয় না ঘটলে বৃহত্তর কল্যাণে কাজ করা যায়। জীবনবোধে মৌলিক দর্শন এবং জাতির জন্য দরদী মনোভাব নিয়ে বিশ্বজনীন সাহিত্য রচনায় ভূমিকা রাখতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদ বলেন, একজন আধ্যাত্মিক বলয়ের ব্যক্তিত্ব মুসা আল হাফিজ। তাঁর সাহিত্য-সাধনা , সর্বোপরি তাঁর দর্শন দেশ ও জাতির জন্য কল্যাণকর। মৌলিকত্বকে ধারণ করে মুসা আল হাফিজ জাতির আত্মার খোরাক যোগাচ্ছেন। – বিজ্ঞপ্তি



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: