সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তরুণীকে চারদিন আটকে রেখে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণ

নিউজ ডেস্ক:: টাঙ্গাইলের সখীপুরে এক তরুণীকে (২১) অপহরণের পর চারদিন আটকে রেখে গণধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়নের বাজাইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে ওই তরুণীর বাবা বাদী হয়ে মোকলেছ উদ্দিনসহ (৩৫) চারজনের নামে মামলাটি করেন। ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধর্ষিতার পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত রোববার (২১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়নের বাজাইল গ্রামের তালাকপ্রাপ্ত ওই তরুণী নিখোঁজ হন। তিনদিন আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে তাকে খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায়নি।

হঠাৎ বুধবার বিকেলে মোবাইল ফোনে একই গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে ও দুই সন্তানের জনক মোকলেছ উদ্দিন (৩৫) নিখোঁজ ওই তরুণী তার কাছে রয়েছে বলে জানায়।

এ ঘটনায় ওইদিন সন্ধ্যায় ওই নারীর বাবা অপহরণকারী মোকলেছ উদ্দিন (৩৫), তার বাবা আবদুল খালেক, মা মিলা বেগম ও বোন মেহেরুনকে আসামি করে সখীপুর থানায় অপহরণ মামলা করেন।

মামলার সংবাদ পেয়ে ওইদিন রাতেই মোকলেছ উদ্দিন তরুণীকে তার বন্ধু মৃদুলের মামা মোবারকের বাড়িতে ফেলে পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে তাকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে নিজ বাড়ি নিয়ে আসে পরিবার।

উদ্ধারকৃত তরুণী জানান, বখাটে মোকলেছ উদ্দিন তাকে জোরপূর্বক তুলে নেয় ও চারদিন আটকে রেখে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণ করে। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে চিকিৎসার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্বরচিত এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শস্তির দাবি করেছেন মামলার বাদী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সখীপুর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মো. লুৎফুল কবির জানান, থানায় মামলা করা হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: এ. আর. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: