সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৩৮ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২০ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দ্বিতীয় দিনেও জমজমাট ছিলো তৃতীয় সিলেট চলচ্চিত্র উৎসব

সিকৃবি সংবাদদাতা:: ২৩ তারিখ শুরু হওয়া তৃতীয় সিলেট চলচ্চিত্র উৎসবের দ্বিতীয় দিন ছিলো বুধবার। দ্বিতীয় দিনেও বেশ জমজমাট ছিলো উৎসব। মাহা বিপণী বিতানের পৃষ্ঠপোষকতায় চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ছাড়াও উৎসবে ছিলো চলচ্চিত্র নিয়ে ওয়ার্কশপ এবং শিশুদের জন্য ছিলো শিশুতোষ স্থির চিত্র প্রদর্শনী।

দ্বিতীয় দিনে উৎসবে যোগ দিতে আসেন সিলেট চলচ্চিত্র উৎসবের জুরি ও অভিনেতা মনোজ কুমার প্রামাণিক এবং চলচ্চিত্র নির্মাতা ও উৎসবের জুরি মুক্তাদির ইবনে সালাম, চলচ্চিত্র নির্মাতা স্বরুপ আনন্দ প্রমুখ।

আয়োজকরা জানান, যথারীতি প্রথম দিনের মতো সকাল ১০ টা থেকে শুরু হয় চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। প্রতি ঘণ্টা স্লটে চলে দেশী-বিদেশ সল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। সকাল সাড়ে ১১ টায় ছিলো চলচ্চিত্র নিয়ে ওয়ার্কশপ। এতে চলচ্চিত্রের নানা দিক ও তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করেন অভিনেতা মনোজ কুমার প্রামাণিক। বিকাল ২ টায় ছিলো সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নির্মিত চলচ্চিত্র নিয়ে বিশেষ প্রদর্শনী।

বিকাল ৩ টায় প্রদর্শিত হয় মুক্তাদির ইবনে সালাম পরিচালিত পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘রঙের দুনিয়া’ । চলচ্চিত্রটিতে তুলে ধরা বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের জীবনের বিভিন্ন পর্যায় । এরপর বিকাল ৫ টায় প্রদর্শিত হয় বিজন ইমতিয়াজ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘মাটির প্রজার দেশে’।

‘রঙের দুনিয়া ‘ চলচ্চিত্রের পরিচালক ও তৃতীয় সিলেট চলচ্চিত্র উৎসবের জুরি মুক্তাদির ইবনে সালাম আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে জানান,’ ঢাকার বাইরে এমন চলচ্চিত্র উৎসব নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। এমন উৎসব আমাদের দেশের তরুণ নির্মাতাদের স্বাধীন ধারার চলচ্চিত্র নির্মানে আরো আগ্রহী করে তুলবে। কেননা তারা চলচ্চিত্র প্রদর্শনের একটি সুযোগ পাবেন। বিদেশি চলচ্চিত্রের সাথে আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্রের তুলনা করে বলেন এখন আমাদের দেশেও সল্প বাজেটে ভালো মানের অনেক চলচ্চিত্র নির্মিত হচ্ছে ।

উল্লেখ্য, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদ এর উদ্যোগে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত হয় তৃতীয় সিলেট চলচ্চিত্র উৎসব। এবারের আসরে বিশ্বের ১১১ টি দেশ থেকে সল্প ও পূর্ণদৈর্ঘ্য ৩০৩৬ টি চলচ্চিত্র জমা পড়ে । যার মধ্যে থেকে বাছাইকৃত ৯৬ টি সল্পদৈর্ঘ্য ও চারটি পূর্ণদৈর্ঘ্য মিলেয়ে মোট ১০০ টি চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। জুরি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতা আশরাফ শিশির, অভিনেতা মনোজ কুমার, নির্মাতা মুক্তাদির ইবনে সালাম ও ভারতীয় চলচ্চিত্র সমালোচক সিদ্ধার্থ মাইতি।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: এ. আর. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: