সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ২ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নারায়ণগঞ্জে মসজিদে আশ্রয় নিয়েও গণধর্ষণ থেকে রক্ষা পেল না দুই কিশোরী


নিউজ ডেস্ক:: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে বৈশাখী মেলা থেকে ফেরার পথে দুই কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। এক জন পথিমধ্যে ধর্ষণের শিকার হয়। এ সময় আরেক কিশোরী ধর্ষকদের হাত কামড়ে পালিয়ে এসে মসজিদে গিয়ে আশ্রয় নেয়।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার রূপসী প্রধান বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আক্রান্ত কিশোরী বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় ধর্ষণ অভিযোগে ৬ জনকে অভিযুক্ত করে একটি মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ এ ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে আনিসুর রহমান, আকাশ মিয়া, ইসমাইল নামে তিন যুবককে আটক করেছে।

আক্রান্ত ওই কিশোরীর বরাত দিয়ে রূপগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মাহমুদুল হাসান জানান, দুই বান্ধবী রূপসী নিউ মডেল স্কুলে বৈশাখী মেলায় বেড়াতে যায়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তারা মেলা থেকে বের হয়ে বরপার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় রূপসী প্রধান বাড়ির সামনে তাদের পথরোধ করে ছয় যুবক।

দুই কিশোরীকে ছয় যুবক মিলে পাশের নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে ধর্ষকদের হাত কামড়ে পালিয়ে যায় একজন। দৌড়ে গিয়ে পাশের একটি মসজিদে আশ্রয় নেয় সে। কিন্তু ওই সময় পালাতে পারেনি আরেক বান্ধবী। তাকে নির্জন স্থানে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ছয় যুবক। মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ফেলে রেখে চলে যায় ধর্ষকরা।

ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, ধর্ষণের শিকার মেয়েটি রাতেই এ ঘটনা পুলিশকে জানায়। গতকাল রাত থেকে সোমবার (আজ) সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত আনিসুর রহমান, আকাশ মিয়া ও ইসমাইলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার কিশোরী বাদী হয়ে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করে। এখন পর্যন্ত তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: