সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ১২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জমে উঠেছে মৌলভীবাজারের বৈশাখী কেনাকাটা

মুবিন খান, মৌলভীবাজার:: ২ দিন পরই পালিত হবে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। এরই মধ্যে বৈশাখ বরণে মেতে উঠেছে গোটা দেশ। পহেলা বৈশাখ ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে জমে উঠেছে মৌলভীবাজারের শপিংমল, ফ্যাশন হাউস ও বিপণিবিতানগুলো। বাদ পড়ছে না ফুটপাতের দোকান গুলোও।
বিভিন্ন ছাড় ও আকর্ষণীয় অফার দিয়ে বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসগুলো হুলস্থূল ফেলে দিয়েছে। শিশু, বৃদ্ধ, কিশোর-কিশোরী এখন সবাই ব্যস্ত বৈশাখী কেনাকাটায়।
বাংলার আবহে তৈরি ফতুয়া, পাঞ্জাবি, থ্রিপিস ও শাড়ি সাজিয়েছে অভিজাত বিপণিবিতান থেকে ফুটপাতের দোকানিরা। এমনকি মাছসহ কাঁচাবাজারেও পড়েছে বৈশাখের উত্তাপ। অধিকাংশ বিপণিবিতান ক্রেতা আকর্ষণে দিচ্ছে অনেক মূল্য ছাড়, গিফটসহ নানা অফার। শপিংমলগুলোতে চলে এসেছে নববর্ষের বিশেষ পোশাক।
বিক্রেতারা জানান, বৈশাখ উপলক্ষে ধনী-গরিব নির্বিশেষে সবাই সাধ্যমতো কেনাকাটা করেন। ঈদের মতো বৈশাখেও জমে উঠে বেচাকেনা। শহরের বিভিন্ন শপিংমল ঘুরে দেখা গেছে, পরিবার-পরিজন ও বন্ধুবান্ধব নিয়ে ক্রেতারা ব্যস্ত বৈশাখী কাপড় কেনাকাটায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ফ্যাশন হাউজগুলো এবার বৈশাখ উপলক্ষে আরামদায়ক সুতি শাড়ি ও সুতি কাপড়ের সালোয়ার কামিজ ও পাঞ্জাবির ওপর গুরুত্ব দিয়েছে। পোশাকে লাল-সাদার পাশাপাশি উজ্জ্বল রং যেমন- হলুদ, কমলা, মেরুন ও নীল ইত্যাদি ব্যবহার করা হয়েছে। মেয়েদের কামিজে অ্যামব্রয়ডারি ও টাই ডাই, ফুলেল প্রিন্টের কাজ করা হয়েছে। শাড়িতে অ্যামব্রয়ডারি, টাই ডাই এপিকের কাজ রয়েছে। শাড়িগুলোর আঁচলে ঝুল ও বিভিন্ন আলপনা প্রিন্ট ব্যবহার করা হয়েছে। আছে রঙিন জামদানি ও হাফ সিল্কের চেক শাড়িও।

এছাড়া স্লিম ফিটের সুতির পাঞ্জাবিতে এপিকের কাজ, অ্যামব্রয়ডারি, মাল্টি কালার প্রিন্ট ব্যবহার করা হয়েছে। বৈশাখের সাজের সঙ্গে শাড়ি ও সালোয়ার কামিজের সঙ্গে মিলিয়ে ফ্যাশন হাউসগুলোতে আনা হয়েছে বিভিন্ন নকশার ব্যাগ, গহনা ও ঘর সাজানোর সামগ্রী।
এদিকে তরুণ প্রজন্ম প্রযুক্তির কল্যাণে অনলাইনে কেনাকাটায় জীবনকে করে তুলেছে গতিশীল। দিন দিন বাড়ছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কেনাকাটার প্রবণতা। নাগরিক জীবনের ব্যস্ততার নেই যেন অবসর। তাই অনেকেই ঘরে বসে অনলাইনে পছন্দের শাড়ি, জামা, পাঞ্জাবি কিনছেন। নিজের পছন্দমতো পণ্যটি বাছাই করে সিলেক্ট করে দিলেই কাজ শেষ।

কলেজ ছাত্র সৈয়দ সিজান জানান, প্রত্যেক বৈশাখেই বন্ধুবান্ধব মিলে আমরা একি কালারের পাঞ্জাবী ক্রয় করি। এবারও সবাই মিলে একি ডিজাইনের পাঞ্জাবী ক্রয় করবো। তারপর পহেলা বৈশাখের এই দিনে আমরা একসাথে অনেক জায়গায় ঘুরতে বের হবো।
সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, মৌলভীবাজারের বিভিন্ন বিপণিবিতানগুলো বাঙালির প্রাণের উৎসব ঘিরে সাদা-লালে ছেয়ে গেছে নানা ধরনের বৈশাখী আয়োজনে। নানা ডিজাইনের পোশাকের পাশাপাশি রয়েছে সাজ-শয্যার নানা আয়োজন। মার্কেটগুলো সাজানো হয়েছে পহেলা বৈশাখের আদলে।

পহেলা বৈশাখের খাবার তালিকার শীর্ষে অবস্থান করছে ইলিশ। শহরের বিভিন্ন বাজারসহ পাশাপাশি ফেরি করে বিক্রি করা হচ্ছে ছোট-বড় নানা আকারের ইলিশ। দাম একটু চড়া হলেও সবাই সাধ্যমতো কেনার চেষ্টা করছেন।
বৈশাখ উপলক্ষে গ্রীষ্মকালী ফল বিশেষ করে কাঁচা আম, তরমুজ, বাঙ্গি, লেবু, আতা ইত্যাদির চাহিদা বাড়ে। চাহিদা অনুযায়ী দামও বাড়ে, তবু দমেন না ক্রেতারা। নতুন বাংলা নববর্ষের আগমন উপলক্ষে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণে কোন ঘাটতি রাখতে নারাজ শহরবাসী।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: