সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নবীগঞ্জে ঘরে ঢুকে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে মা খুন, মেয়ে আহত


নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:: হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের ইছবপুর গ্রামে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে নীলু সূত্রধর (৬০) নামে এক বৃদ্ধা ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছে তার কন্যা শিল্পী সূত্রধর (৩০)।

আশংকাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত নীলু সূত্রধর ওই গ্রামের মৃত চানমনি সূত্রধরের স্ত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায়। সূত্রে জানা যায়, নিহত নীলু সূত্রধর এর স্বামী মারা যান বিগত ৮/৯বছর পূর্বে। তার একমাত্র পুত্র জীবন সূত্রধর প্রায় ১২ বছর যাবৎ কুয়েত প্রবাসী। এক মাত্র পুত্রবধু হেপি সুত্রধরকে নিয়েই শাশুড়ী বাড়ীতে থাকেন। গত ১০/১৫ দিনধরে পুত্রবধু হেপি পিতার বাড়ী নবীগঞ্জের ভুবিরবাক গ্রামে অবস্থান করছেন। মা বাড়ীতে একা থাকার কারনে তার ছোট মেয়ে মাধবপুর উপজেলার মনতলা স্বামীর বাড়ী থেকে পিত্তালয়ে আসেন। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা নীলু সূত্রধরের ঘরে প্রবেশ করে মা-মেয়ে দুজনকে ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই নীলু সূত্রধর নিহত হন। আহত ও নিহতের শরীরে একাধিক ছুরিকাঘাতের চিহৃ রয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।

আশংকাজনক অবস্থায় মেয়ে শিল্পীকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার নবীগঞ্জ-বাহুবল সার্কেল মোঃ পারভেজ আলম চৌধুরী একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনা স্থলে ছুটে যান। এ ব্যাপারে পারভেজ আলম চৌধুরী জানান, দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই নীলু সুত্রধর নিহত হয়েছেন। আহত অবস্থায় তার মেয়ে শিল্পী সুত্রধরকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তৎপরতা চালাচ্ছে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: