সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৪৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

উৎসুক জনতা আর সেলফিবাজদের ভীড়ে সত্যিকারের হিরো যারা..

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: রাজধানীর বনানীতে এফআর টাওয়ার নামের ২২ তলা একটি ভবনে আগুন লেগেছে। এফ আর টাওয়ার নামে ওই ভবনটিতে আটকা পড়েছেন অনেকে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস। উদ্ধারকাজে যোগ দিয়েছে নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যরাও। আটকা পড়াদের সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার দিয়ে উদ্ধার করা হচ্ছে।

কিন্তু ভবনের সামনের রাস্তায় হাজার হাজার মানুষ ভিড় করে আগুন দেখছে। মোবাইল ফোনে ভিডিও করছে, ছবি তুলছে। ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স, পানির গাড়িকে সেই ভিড়ি ঠেলে যেতে হচ্ছে।

উৎসুক জনতা যখন মোবাইলে ফেসবুক লাইভ,সেলফি, ভিডিও ধারনে ব্যস্ত তখন ফায়ার সার্ভিসের সাহায্যে এগিয়ে এসেছিলো ছোট্ট একটি শিশু ।পানির তীব্র সঙ্কটের মাঝে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলো এক ফোটা পানিও যেন অপচয় না হয়।

উৎসুক জনতার কর্মকান্ডে যেমন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনার ঝড় তেমুনি অন্য দিকে এই ছোট্ট শিশুটির সাহসিকতার প্রশংসা করছেন অনেকেই।

তানভীর শাহরিয়ার নামে একজন তার প্রফাইলে ছবিটি শেয়ার করে লিখেন, ‘হাজার শিক্ষিত মান্ষের মুখে ছুড়ে দিলাম এই ছবি যারা দাড়িয়ে থেকে মোবাইলে ব্যস্ত ছিলেন। ‘

অন্যদিকে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়েই ভবনটিতে আটকে পড়া বিপদগ্রস্ত মানুষদের উদ্ধারে এগিয়ে আসে আশপাশের বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। নানী এলাকায় অবস্থিত প্রাইম এশিয়া, সাউথ ইস্ট, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (এআইইউবি) ও সিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অসংখ্য শিক্ষার্থী মানবিক হৃদয় নিয়ে উদ্ধার কার্যক্রমে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মকর্তা বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে অগ্নিনির্বাপণ কোর্স করানো হয়েছে। তবে তাদের সরাসরি ফায়ার ফাইটার না বলা গেলেও মানবিক ফাইটার নামে অভিহিত করা যায়। শুধু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই নন, অসংখ্য সাধারণ মানুষও আগুন নেভানোর কাজে নানাভাবে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছে বলেও তিনি জানান।

এর আগে সরেজমিনে দেখা গেছে, সন্ধ্যায় আগুন প্রায় নিভে যায়। এসময় ফায়ার সার্ভিসসহ বিভিন্ন বাহিনীর উদ্ধারকারী দল ভবনের ভেতর প্রবেশ করে তল্লাশি শুরু করে। এক পর্যায়ে সাত, আট ও নয় তলায় পুড়ে যাওয়া বেশ কয়েকটি মরদেহ খুঁজে পায় তারা। পরে সেগুলো বের করে আনা হয়।

নিহতদের মধ্যে এখন পর্যন্ত এক শ্রীলঙ্কান নাগরিকসহ সাত জনের নাম জানা গেছে। এরা হলেন- শ্রীলঙ্কার নাগরিক নিরস (৩০), পারভেজ সাজ্জাদ (৪৭), আমেনা ইয়াসমিন (৪০), মামুন (৩৬), আবদুল্লাহ আল ফারুক (৩২), মাকসুদুর (৬৬) ও মনির (৫০)।

এদিকে বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১টার দিকে বনানীর কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ের ১৭ নম্বর রোডের এসআর টাওয়ারে ২২তলা ভবনে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিট দীর্ঘক্ষণ কাজ করার পর বিকেল ৫টা ৪৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: