সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অর্ধশতাধিক উদ্ধার, সবাই কমবেশি আহত

নিউজ ডেস্ক:: রাজধানীর বনানীর বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আটকা পড়াদের উদ্ধারে কাজ করছে সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। আটকে পড়াদের উদ্ধারে দুটি স্কাই লিফট ব্যবহার করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত ভবনটি থেকে অন্তত অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন, উদ্ধার হওয়া সবাই কমবেশি আহত হয়েছেন।

উদ্ধারের পর আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অগ্নিকাণ্ডে আহতদের জরুরি চিকিৎসাসেবা প্রদানের জন্য ইতোমধ্যে রাজধানীর সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানিয়ে নির্দেশনা প্রদান করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

বেলা ৩টা পর্যন্ত মোট ৯ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে আটজনকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও একজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে বনানীর কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ের ১৭ নম্বর রোডের ২২ তলা ভবনে আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট কাজ করছে।

ভবনটিতে দ্যা ওয়েভ গ্রুপ, হেরিটেজ এয়ার এক্সপ্রেস, আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড ছাড়াও অর্ধশতাধিক অফিস রয়েছে।

এখন আগুনের শিখা কিছুটা কমে এসেছে। তবে বেড়েই চলছে ধোঁয়ার পরিমাণ। দমকল বাহিনীর সদস্যরা ভবনের ভেতরে অক্সিজেন দেয়ার চেষ্টা করছেন।

ভবনটির বিভিন্ন তলায় আটকা পড়া মানুষ ধোঁয়ার কবলে পড়ে বাঁচার জন্য চিৎকার করছেন। জানালা দিয়ে হাত নেড়ে বাঁচার আকুতি জানাচ্ছেন অনেকে।

তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাদের সাহস জুগিয়ে যাচ্ছেন। আটকা পড়াদের উপর থেকে লাফ দিতেও নানাভাবে নিষেধ করছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

এর আগে বেশ কয়েকজন লাফিয়ে পড়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের কুর্মিটোলা ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: