সর্বশেষ আপডেট : ২০ মিনিট ১৯ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেট সদর উপজেলায় অবহিতকরণ কর্মশালা

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর সিলেট এর বিভাগীয় পরিচালক (যুগ্ম সচিব) মোঃ কুতুব উদ্দিন বলেছেন, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে সার্বক্ষণিক নরমাল ডেলিভারী সেবা জোরদার করতে হবে। নরমাল ডেলিভারী সেবা নিশ্চিত করে মানুষের আস্তা অর্জন করতে হবে। সিলেট সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে এ কার্যক্রম জোরদার করতে কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান,সহ সভাপতি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট ১৫ সদস্যের কমিটির জনসচেতনতা মূলক সভা ও মনিটরিং জোরদারের মাধ্যমে কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় সরকারের এই প্রকল্পের সফল বাস্তবায়ন সম্ভব। তিনি বলেন এ ক্ষেত্রে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের অর্জন রয়েছে । তা ধরে রাখতে হবে। তিনি কর্তব্যে অবহেলা করলে সংশ্লিষ্টদের কোন ছাড় দেয়া হবেনা বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারন করেন।

তিনি বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪/৭ (সার্বক্ষনিক) নরমাল ডেলিভারী সেবা জোরদারকরণ বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
সিলেট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিরাজাম মুনিরার সভাপতিত্বে ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবুল মনসুর আসজাদের সঞ্চালনায় কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য বিভাগ সিলেটে এর উপ পরিচালক ও সিলেটের সিভিল সার্জন ডা.হিমাংশু লাল রায়,পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সিলেট এর উপ পরিচালক ডা.লুৎফুন্নাহার জেসমিন,কনসালন্টেন্ট ডা.ওমরগুল আজাদ,ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনী বিভাগের কনসালন্টেন্ট ডা.শামীমা খালিক, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সিলেট এর সহকারী পরিচালক একেএম সেলিম ভুইয়া, সদর উপজেলা স্বাস্থ্্য কর্মকর্তা ডা.আহমদ সিরাজুম মুনির রাহিল,সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.নজরুল ইসলাম খান। শুরুতে স্লাইট উপস্থাপন করেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের এমসিএইচ-সার্ভিস ইউনিটের প্রোগ্রাম ম্যানেজার (সাপোর্ট সার্ভিস এন্ড কো- অর্ডিনেশন) ডা.এবিএম সামসুদ্দিন আহমেদ।

কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন-দৈনিক সিলেটের ডাক এর সিনিয়র রিপোর্টার হাজী এম আহমদ আলী, হাটখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজির উদ্দিন,টুকের বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদ আহমদ,জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মনফর আলী,টুলটিকর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম আলী হোসেন প্রমুখ। শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন মাওলানা ফয়জুল আহমদ। কর্মশালায় সিলেট সদর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে পর্যায়ক্রমে নিরাপদ প্রসব সেবা কার্যক্রম চালু করা ও গর্ভবতী মহিলাদের কাউন্সিলিং এর মাধ্যমে এখানে প্রতিমাসে অন্তত ১০টি নরমাল ডেলিভারী করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ প্রদান করে মনিটরিং জোরদার করার জন্য সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অনুরোধ করা হয়। কর্মশালায় সিলেট সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে এ কার্যক্রম জোরদার করার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

কর্মশালায় জানানো হয় ,বর্তমানে মা-শিও স্বাস্থ্য কিশোর-কিশোরী ও প্রজনন স্বাস্থ্যের উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরাধীন সকল কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে,এর প্রেক্ষিতে, বিগত তিন বছর ধরে মানউন্নীত ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রসমূহে পর্যায়ক্রমে নিরাপদ প্রসব সেবা কার্যক্রম চালু করা হয়েছে।

বর্তমানে এ বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিধায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মহোদয়ের নেতৃত্বে মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তরে বিভিন্ন সময়ে বিভাগীয়, জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সমস্বয়ে সভা আহবানেয় মাধ্যমে কার্যক্রমটি এগিয়ে নেয়ার প্রচেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সকল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কলাণ কেন্দ্রে ২৪ ঘন্টা নিরাপদ প্রসব সেবা নিশ্চিত করনে একটি পরিপত্র জারী করেছেন।

দেশের সকল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪ ঘণ্টা নিরাপদ প্রসব সেবা প্রদানের মাধ্যমে নিরাপদ মাতৃত্ব নিশ্চিতকরণে এ পরিপত্রটি জারী করা হয় এবং নির্দেশনা মোতাবেক ২৪ ঘণ্টা নিরাপদ প্রসব সেবাসহ মা-শিও স্বাস্থ্য ও প্রজনন স্বাস্থ্য সেবাসমূহ প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হয়।এতে বলা হয় ২৪/৭ নিরাপদ প্রসব সেবা নিশ্চিতকরণে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে কর্মরত পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা এবং এসএসিএমও গণ কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট বাসভবনে অবস্থান করবেন। কেন্দ্রে কর্মরত আয়া ও অন্যান্য স্টাফ এ ব্যাপারে এসএসিএমও এবং পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকাকে সার্বিক সহায়তা প্রদান করবেন।পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা তার কর্ম এলাকার গ-ী মায়েদের তালিকা, প্রসবের সম্ভাব্য তারিখ এবং মোবাইল নম্বর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে নিশ্চিত করবেন। গর্ভবতী মাকে যথাযথভাবে ফলোআপ করার নিমিত্তে গর্ভবতী মায়ের নিজস্ব মোবাইল নম্বর ছাড়াও প্রতিবেশী কিংবা
আত্মীয়ের মোবাইল নম্বর ও সংরক্ষণ করতে হবে। এছাড়া পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা এবং এসএসিএমও দের নম্বরও গর্ভবর্তী মাকে প্রদান করতে হবে। কেন্দ্রে কর্মরত পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা গর্ভবতী মায়েদের গর্ভকালীন ৪টি চেক-আপ নিশ্চিত করবেন। এক্ষেত্রে পরিবার কল্যাণ সহকারী গর্ভবতী মায়েদের চেক-আপ করার পরামর্শ ও কেন্দ্রে গমনে বিষয়ে সহযোগিতা করবেন। ঝুঁকিপূর্ণ গর্ভবতী, গর্ভকালীন বিপদ চিহ্ন, সকল ধরনের গর্ভজটিলতা, প্রসবকালীন এবং প্রসবোত্তর জটিলতায় পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকাগণ উপযুক্ত চিকিৎসা প্রদানের লক্ষ্যে উচ্চতর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে রেফার করবেন। নিরাপদ প্রসব নিশ্চিত করনে কোন ধরণের ঝুঁকি না নিয়ে দ্রুততার সংগে মাাকে রেফার করবেন। রেফারেন্স স্লিপসহ ক্লায়েন্টকে উচ্চতর কেন্দ্রে রেফার করতে হবে। রেফারেল পিএ, ক্লায়েন্টের নাম, স্বামীর নাম, কি সমস্যার জন্য ক্ষেত্রে এনেছিলেন, কখন (তারিখ ও সময়) এসেছেন, কি চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে এবং যিনি রেফার করেছেন তার নাম, পদবী এবং কোন কেন্দ্রে রেফার করা হচ্ছে তা উল্লেখ করতে হবে। উচ্চতর কেন্দ্রে রেফারকৃত ক্লায়েন্ট এর সঠিক ব্যবস্থাপনার নিমিত্তে, সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের কর্মকর্তা যেমন ঃ মা ও শিও কল্যাণ কেন্দ্রের ক্ষেত্রে এম.ও (ক্লিনিক) এর মোবাইল নম্বর ও সংরক্ষণ করতে হবে এবং তাদেরকে ক্লায়েন্ট রেফার এর বিষয়টি অবগত করতে হবে। ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে কর্মরত পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা এবং এসএসিএমও গণ তাদের মোবাইল নম্বর কেন্দ্রে নিশ্চিত করবেন এবং ক্লায়েন্টদের দৃষ্টিগোচর হয় এমন নে ঝুলিয়ে রাখবেন যেন ক্লায়েন্টেগণ প্রয়োজনে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।এলাকায় কর্মরত সিএসবিএগন ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪/৭ নিরাপদ প্রসব নিশ্চিত করার পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গর্ভবতী মায়েদের সংগে করে কেন্দ্রে নিয়ে আসবেন এবং পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকাদের প্রসব সেবা প্রদানে সহায়তা করবেন। তাছাড়া রেফারকারী হিসেবে ডেলিভারী রেজিষ্টারে তাঁদের নাম উল্লেখ করবেন।

উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ অর্থাৎ মেডিকেল অফিসার (এমসিএইচ-এফপি), উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতা, সহকারী উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, সহকারী পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা (এমসিএইচ-এফপি) গণ তদনিম্ন পর্যায়ের কার্যক্রমসমূহ জোরালোভাবে মনিটরিং করবেন এবং পরিদর্শনকালীন সময়ে সুনির্দিষ্ট দিক নির্দেশনাসহ কার্যক্রম বাস্তবায়নে সহায়তা করবেন। জেলা পর্যায়ের কর্তকর্তাগণ একইভাবে উপজেলা কর্মকর্তাদের কার্যক্রম মনিটরিং, পূর্বক কার্যক্রম জোরদার করনের উদ্যোগ নেবেন। প্রতি মাসে কেন্দ্রভিত্তিক নিরাপদ প্রসবসেবা কার্যক্রমটি উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ মনিটরিং পূর্বক জাতীয় পর্যায়ে তথ্য প্রদান করবেন এবং ক্রমান্বয়ে প্রসব সেবা প্রদানের হার বৃদ্ধি করার উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। সেবা প্রদানকারীদের ক্ষেত্রে, কর্মস্থলে অবস্থান না করা, কর্মে অবহেলা এবং অন্যান্য যেকোন অভিযোগ প্রমানিত হলে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক যথোপযুক্ত শাস্তি প্রদান করার সম্মতি প্রদান করেছেন। – বিজ্ঞপ্তি



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: