সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ১৮ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিরোধী দলকে রাজনী‌তি করার সুযোগ দিন: বি. চৌধুরী

নিউজ ডেস্ক:: বিরোধী দলকে রাজনী‌তি করার সুযোগ দিতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরিক বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। তিনি বলেছেন, পৃথিবীর সমস্ত গণতান্ত্রিক দেশে বিরোধী দল রয়েছে। বিরোধদল ছাড়া গণতন্ত্র সম্পূর্ণ হয় না। সেই জন্য পরিপূর্ণ গণতন্ত্রের জন্য বিরোধী দল দরকার। সেজন্য বিরোধী দলকে রাজনী‌তি করার সুযোগ দিন। না হলে দেশে গণতন্ত্র থাকবে না।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে বাংলাদেশে শরীয়াহ আন্দোলনের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সাবেক রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয় সাবেক বিএনপি নেতা বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বিকল্পধারা বাংলাদেশ ও তাঁদের জোট যুক্তফ্রন্ট। নির্বাচনে তাদের জন্য তিনটি আসন ছেড়ে দিয়ে নৌকা প্রতীক বরাদ্দ করে আওয়ামী লীগ। এর মধ্যে দুটি আসনে জয় পায় তারা।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি, জাল ভোট প্রদান, জালিয়াতিসহ নানা অভিযোগে নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি ও তাদের ২০ দলীয় জোট, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, বাম গণতান্ত্রিক জোটসহ অন্যরা। তাই বর্তমান সংসদে প্রধান বিরোধী দল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টি।

এ অবস্থায় আজ গণতন্ত্র নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন বিএনপি নেতৃত্বাধীন সাবেক চারদলীয় জোট সরকারের রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী। তিনি দেশের মানুষের ভোটদানের অধিকার অব্যাহত আছে কি না সরকারের প্রতি এমন প্রশ্ন রেখে বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমরা দেখেছি সব দলের অংশগ্রহণ ছিল। তবে এর ফলাফল নিয়ে নানা প্রশ্ন ছিল। উপজেলা নির্বাচন কি অংশগ্রহণমূলক হয়েছে? সব দল কি সেখানে আছে, সব দল না থাকলে সেখানে কি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বলা যায়? এ প্রশ্ন সরকারের আত্মজিজ্ঞাসার প্রশ্ন। সরকারকে এ নিয়ে ভাবতে হবে, কেন আজকে উপজেলা নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হলো না।

যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান বি. চৌধুরী বলেন, উপজেলা নির্বাচনে প্রতিযোগিতা রয়েছে কিন্তু তা এক দলের মধ্যে। তাহলে এটা কি একদলীয় নির্বাচন হয়ে গেল না?

ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম উল্লেখ করে সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন,অনেক ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। কেন কম? আমরা যারা রাজনীতি করি তারা তো এ প্রশ্নগুলো নিয়ে উদাসীন থাকতে পারি না। আমাদের দেখতে হবে, সরকারকে খুঁজে বের করতে হবে। ভোটাররা যদি নির্বাচন বিমুখ হয়ে যায় তাহলে গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়বে। গণতন্ত্র যাতে হুমকির মুখে না পড়ে সেজন্য বিরোধী দলকে রাজনীতি করতে হবে। বিরোধী দলের রাজনীতি নিশ্চিত করতে হবে। আর এ দায়িত্ব শুধু বিরোধী দলের নয় সরকারেরও।

বাংলাদেশে শরীয়াহ আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও আমির হাফেজ মাওলানা মো. মাসুম বিল্লাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সাবেক ধর্ম ও পানিসম্পদমন্ত্রী এবং বিএলডিপির চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন আল আজাদ, বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম সারোয়ার মিলন, বাংলাদেশ শরীয়াহ আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা গাজী মাসউদুর রহমান প্রমুখ।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: