সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫

 

নিউজ ডেস্ক :: রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ ৫ জন নিহত হয়েছেন। উপজেলার কংলাক এলাকা থেকে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফেরার পথে তারা হামলার শিকার হন।

এ ঘটনায় আরো ৭-৮ জন আহত হয়েছেন। আহতদের বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ও আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। সোমবার সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। রোববার উপজেলা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোটগ্রহণের দিনে এই ঘটনা ঘটে।

বাঘাইছড়ি থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মঞ্জুরুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

বান্দরবানে প্রিসাইডিং অফিসারসহ আহত ৬

বান্দরবানের ৭ উপজেলায় সকাল থেকেই ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিত একেবারেই কম ছিল। জেলার সবকটি উপজেলার ভোট কেন্দ্রগুলোতে প্রায় একই চিত্র ছিল। সকালে কয়েকটি কেন্দ্রে মহিলা ভোটারদের দেখা গেলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার সংখ্যা কমেছে অনেক জায়গায়। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার কিছু ভোট কেন্দ্রে মহিলা ভোটারদের উপস্থিত অন্যান্য জায়গার চাইতে বেশি দেখা গেছে।

বিকেলে থানছি উপজেলায় জনসংহতি সমিতির সমর্থিতদের হামলায় সরকারী মডেল প্রাইমারী কেন্দ্রে প্রিসাইডিং অফিসার সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারসহ ৬ জন আহত হয়। পরে সেখানে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতরা হলো প্রিসাইডিং অফিসার মোঃ শাহাদাৎ হোসেন, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার দিন মোহাম্মদ, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান, কৃষি অফিসার রিক্তা চৌধুরী, প্আিইও সহকারী মোঃ কবির ও ভোটার প্রদীপ ত্রিপুরা।

অন্যদিকে জেলা শহরে দুপুরে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা বিএনপি নেতা আলাউদ্দিন আলোকে মারধোর করে। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় উত্তর ঘুনধুমে সকালে চেয়ারম্যান প্রার্থীর দুই সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটে। নির্বাচন নিয়ে পুরো জেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয় পুরো জেলায়। বিজিবি পুলিশ আনসার ও র‌্যাবের পাশাপাশি বান্দরবানের রুমা, রোয়াংছড়ি, সদর. লামা ও আলীকদমে সেনাবাহিনীর সদস্যরা টহল দেয়।

বিশেষ করে দুর্গম এলাকার ভোট কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কক্সবাজারের র‌্যাব ১৫ এর সদস্যরা জেলার বিভিন্ন এলাকায় টহল দিতে দেখা গেছে। সদরের আওয়মী লীগের প্রার্থী একে এম জাহাঙ্গির সকালে ভোট দিয়ে জানান নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে এবং মানুষ স্বতঃস্ফুর্ত ভাবে ভোট দিতে আসছে। বিএনপি নেতা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল কুদ্দুস জানান নির্বাচন শান্তিপূর্ন হলেও ভোটারদের মধ্যে আগ্রহ কম। ভোট কেন্দ্রগুলো বেশির ভাগই ফাঁকা। তবে বেলা শেষে হয়তো ভোটারদের উপস্থিতি বাড়তে পারে। এবার বান্দরবান ছাড়াও অপর দুই পার্বত্য জেলা রাঙ্গড়ামাটি খাগড়াছড়িতেও সেনাবাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনী এলাকায় নিরাপত্তা দিয়েছে। বান্দরবানের ৭ উপজেলায় এবার চেয়ারম্যান পদে ১৭ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৯ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে। আওয়ামী লীগ ছাড়াও নির্বাচনে বিএনপি ও আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল জনসংহতি সমিতির প্রার্থীরা স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করেছে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: