সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ১১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

লাউয়ছড়ায় লেবু বাগানে রাতে সাউন্ড সিস্টেম ব্যবহার করে গান বাজনা, বনবিট কর্মকর্তা নিরব

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে বুধবার সকালে এক নারী ইকো ট্যুর গাইডকে সিএনজি অটোরিক্সাসহ ভিতরে নিজ বাড়িতে যেতে দেননি বনবিট কর্মকর্তা। উল্টো নারী ইকো ট্যুর গাইডকে বনবিট কর্মকর্তা অপদস্থ করেছিলেন পর্যটকদের সামনেই। একদিন পর বৃহস্পতিবার রাতে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভিতর লেবু বাগানে পিকআপ যোগে সাউন্ড সিস্টেম নিয়ে প্রবেশ করে রাত ১টা পর্যন্ত উচ্চ স্বরে চালানো হলো গান বাজনা।

বনের ভিতর বন পরিবেশ ও জীব বৈচিত্রের পরিবেশ নষ্ট করে সাউন্ড সিস্টেম ব্যবহার করে এ আয়োজনে রহস্যজনক কারণে বনবিট কর্মকর্তা নিরব রইলেন। গত বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) রাত ১০টায় লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভিতর ব্যক্তি মালিকানাধীন একটি লেবু বাগানে এ ঘটনাটি ঘটে।

লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভিতর লাউয়াছড়া খাসিয়া পুঞ্জির খাসিয়া সদস্যরা জানান, প্রধান ফটক দিয়ে বৃহস্পতিবার রাত নয়টায় একটি পিকআপে করে সাউন্ড সিস্টেম প্রবেশ করে উদ্যানের প্রায় ২ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে বনাঞ্চলের ভিতরের একটি লেবু বাগানে যায়। লেবু বাগানে বসবাসরত পরিবারগুলোর একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে এই সাউন্ড সিস্টেম ব্যবহার করে উচ্চ স্বরে রাত ১টা পর্যন্ত চলে গান বাজনা। এতে বনের পরিবেশ নষ্ট হয়েছে বলেও খাসিয়া সদস্যরা জানান।

লাউয়াছড়া খাসিয়া পুঞ্জিতে বসবাসকারী নারী ইকো ট্যুর গাইড পাপিয়া সুলতানা জানান জেলা সদরে চিকিৎসা সেবা শেষে তার ছেলের ঘরের দেড় বছর বয়সি অসুস্থ্য নাতিকে নিয়ে বুধবার সকালে একটি সিএনজি অটোরিক্সায় লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভিতর বাসায় ফিরছিলেন। সকাল ১১টায় সিএনজি অটোরিক্সাটি লাউয়াছড়া উদ্যানের প্রধান ফটক দিয়ে ভিতরে প্রবেশ করতে দেননি বনবিট কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন। এক পর্যায়ে উপস্থিত পর্যটকদের সামনেই তাকে (নারী ইকো ট্যুর গাইডকে) অশালীনভাবে গালি গালাজ করে তাকে অপদস্থ করেন বনবিট কর্মকর্তা। অথচ একদিন পর বৃহস্পতিবার রাতে আবার সাউন্ড সিস্টেমবাহী একটি পিক আপ উদ্যানের ভিতর প্রবেশের অনুমতি দিলেন বনবিট কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের সিলেট বিভাগীয় সম্পাদক আব্দুল করিম বলেন, স্বাভাবিকভাবে জাতীয় উদ্যানের বনের মধ্যে ব্যক্তি মালিকানাধীণ লেবু বাগান থাকা ঠিক নয়। লাউয়াছড়া উদ্যানের বনের ভিতরের বন্যপ্রাণী সাধারণত রাতে বিচরণ করে। এখন এ বনে রাতে সাউন্ড সিস্টেম ব্যবহার করে রাত ১টা পর্যন্ত উচ্চ আওয়াজানে গান বাজনা করলে বন পরিবেশ ও জীব বৈচিত্রের ক্ষতি হয়েছে। বনবিট কর্মকর্তা কিভাবে এসব করার অনুমতি দিলেন তা বোঝা যাচ্ছে না।

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চেয়ে গতকাল শুক্রবার বেলা ২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে অবস্থান করেও বনবিট কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেনকে পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে বিকালে বনবিট কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেনের মুঠোফোনে (০১৭১২ ৫২৭৪৪৫) কয়েক দফা কথা বলার চেষ্টা করেও ফোনটি বন্ধ পাওযা যায়। তবে লাউয়াছড়া বনরেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল মোনায়েম খান বলেন, এ ধরনের কোন অভিযোগ তারা এখনও পাননি।

শুক্রবার বিকেল ৪টায় বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আব্দুল মোহিত চৌধুরী বলেন, ধরনের কোন অভিযোগ তার কাছে আসেনি। তিনি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলেও জানান।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: