সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ১২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিয়ের আসরে প্রেমিকাকে হত্যার পর প্রেমিকের আত্মহত্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: অনেক দিনের প্রেম। কিন্তু তাদের প্রেম বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়নি। প্রেমিকা অন্য পাত্রের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। প্রেমিক তা মেনে নিতে পারেননি। তাইতো প্রেমিকার বিয়ের দিন চলে যান বিয়ের আসরে। ক্ষিপ্ত প্রেমিক সেখানে গিয়ে প্রথমে প্রেমিকাকে গুলি করে হত্যা করার পর নিজেও আত্মহত্যা করেন।

গত মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের রায়বেরিলিতে। বিয়ের অনুষ্ঠানে কনে ও তার প্রেমিকের মৃত্যুর পর হুলস্থুল কাণ্ড বেধে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা তৎক্ষণাৎ পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত ওই প্রেমিক-প্রেমিকার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

ঘটনার পর বিয়ে বাড়ি ও দুই পরিবারসহ স্থানীয় বাসিন্দারা শোকে হতবিহ্বল হয়ে পড়েছেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, উত্তরপ্রদেশের রায়বেরিলির বজরম্ভা থানায় এমন মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে। থানার গাজিয়াপুর গ্রামের বাসিন্দা পুন্তিলালের মেয়ে আশা সেই নির্মম ঘটনার শিকার।

আশার বিয়ে হচ্ছিল উন্নাওয়ের আগাপুর গ্রামের বাসিন্দা অনিলের সঙ্গে। বিয়েবাড়িতে তখন বর পৌঁছানোর প্রস্তুতি চলছিল। বিয়ের অনুষ্ঠানে আগে থেকেই হাজির ছিল ঘাতক সেই প্রেমিক। প্রেমিকাকে বিয়ের সাজে দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় সে। পিস্তল বের করে প্রেমিকাকে লক্ষ্য করে গুলি চালালে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় কনের।

কনে গুলিবিদ্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চারদিকে চিৎকার শুরু হয়ে যায়। আচমকা ঘাতক ওই প্রেমিক বন্দুক দিয়েই নিজের মাথায় গুলি করে বসেন। গুলিবিদ্ধ প্রেমিক প্রেমিকাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলেও তাদেরকে বাঁচানো যায়নি। পুলিশ বলছে, প্রেম সংক্রান্ত কারণেই হত্যার ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিক তদন্তে তাদের মনে হয়েছে।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: