সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেটে আপত্তিকর অবস্থায় ২ সন্তানের জননী ও পরকিয়া প্রেমিক আটক, থানায় বিয়ে

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: সিলেটের কানাইঘাট পৌরসভার শিবনগর গ্রামে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকাবস্থায় হাতে নাতে তালাক প্রাপ্ত ২ সন্তানের জননী সহ তার পরকিয়া প্রেমিক কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করার পর থানায় প্রেমিক জুটির বিয়ে দেওয়ায় হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রবিবার মধ্য রাতে শিবনগর গ্রামের সৌদি প্রবাসী শফিকুল হকের তালাক প্রাপ্ত মেয়ে ২ সন্তানের জননী ফাহিমা বেগম (২৪) পৌরসভার দূর্লভপুর গ্রামের মৃত রহমত আলীর পুত্র অটোরিক্সা (সিএনজি) চালক রেজওয়ান (২৩) সাথে নিজ বাড়ীতে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকাবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাদের আটক করেন।

পরে তাদের কে সোমবার ভোর বেলায় কানাইঘাট থানায় সোপর্দ করেন গ্রামবাসী। এরপর সোমবার দুপুরে থানায় উভয়ের আত্মীয় স্বজনদের উপস্থিতিতে ফাহিমা ও রেজওয়ানের ২ লক্ষ টাকা দেন মোহর ধার্য্য করে শরীয়াহ মোতাবেক বিয়ে দেওয়া হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফখর উদ্দিন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আছিয়া বেগম।

বিয়ের বিষয়টি স্বীকার করে থানার সেকেন্ড অফিসার স্বপন চন্দ্র সরকার জানান, অসামাজিক কার্যকলাপের জন্য ফাহিমা ও রেজওয়ান কে গ্রামের লোকজন থানায় সোর্পদ করার পর উভয় পরিবারের লোকজনদের সম্মতিক্রমে কাজী ডেকে বিয়ে পড়ানো হয়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন দীর্ঘদিন থেকে শফিকুল হকের মেয়ে ফাহিমার সাথে অবৈধ সম্পর্ক ছিল রেজওয়ানের। রেজওয়ান সব সময় ফাহিমার বাড়ীতে এসে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হত। প্রতিবেশিরা বাধা দেওয়ার পরও সে নিষেধ মানেনি।

জানা গেছে , ফাহিমা বেগম কে পূর্বে বিয়ে করে ছিলেন সেলিম উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি। অনেকের সাথে অবৈধ সম্পর্ক থাকায় সেলিম ফাহিমা বেগমকে দেড় বছর পূর্বে তালাক দিয়েছিলেন।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: