সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিএনপি নেতা শাহ জামাল নুরুল হুদা

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন সদর উপজেলায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী, সিলেট জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি শাহ জামাল নুরুল হুদা। বুধবার বিকেলে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন।
উপজেলার সর্বস্তরের ভোটারদের সমর্থন ও নির্বাচন করার ব্যাপারে চাপ থাকা সত্ত্বেও দলের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান সাবেক এই ইউনিয়ন চেয়ারম্যান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বিগত ২০০৯ ও ২০১৪ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সিলেট সদর উপজেলা থেকে আমি চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলাম। বিশেষ করে ২০১৪ সালের নির্বাচনে আমি দলীয় সমর্থন নিয়ে যখন বিজয়ের একেবারেই কাছাকাছি, তখন আওয়ামী বাকশালিরা নানা কুট কৌশলের মাধ্যমে আমার বিজয় ছিনিয়ে নিয়েছিলো।

শাহ জামাল নুরুল হুদা বলেন, রাজনৈতিক অঙ্গনেও একেবারেই তৃণমুলের সাথে রয়েছে আমার গভীর সম্পর্ক। আমি সিলেট সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ছিলাম। বর্তমানে আমি সিলেট জেলা বিএনপির সহসভাপতির দায়িত্বে রয়েছি। বর্তমান সরকারের পেটুয়া বাহিনীর নির্যাতন ও একাধিক মিথ্যা মামলায় কারাবরণ করেছি। সর্বশেষ, জাতীয় নির্বাচনের আগে গত বছরের ২৪ নভেম্বর পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘদিন কারাবরণ করেছি।

তিনি আরও বলেন, বিগত নির্বাচনগুলোতে অংশগ্রহণ ও আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণের ইচ্ছা আকাংখার প্রতিফলন ঘটাতে এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বচানে আমি (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হয়েছিলাম। উপজেলার সাধারণ ভোটারদের সমর্থ নিয়ে যখন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিল করি।
উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেওয়া এই প্রার্থী বলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা আমাকে নানাভাবে দলের সিদ্ধান্ত মেনে নেয়ার আহবান জানান। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ আমাকে দলের সিদ্ধান্ত মেনে নেয়ার আহবান জানান।
তিনি বলেন, দল যেখানে এই সরকারের অধীনে আর কোন নির্বাচনে অংশ না নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে, সেখানে বিএনপির একজন দায়িত্বশীল কর্মী হিসেবে সেই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হচ্ছে আমাকে। বিপুল জনসমর্থন থাকা সত্ত্বেও দলের আহবানে সাড়া দিয়ে আমি নির্বাচন থেকে সরে দাড়ালাম।
তিনি বলেন, দেশ ও জাতি এই অবৈধ সরকারকে ক্ষমা করবে না। গণআন্দোলনের মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়াকে এদেশের জনগণ কারাগার থেকে মুক্ত করে আনবে।
শুরুতে শাহ জামাল নুরুল হুদা একই সঙ্গে দলের বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন, তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়া আজ বাকশালি সরকারের কারাগারে বন্দি। গণতন্ত্র, বাক-স্বাধীনতা, ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করতে গিয়ে হাজার হাজার বিএনপি-ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা এখনো কারাগারে রয়েছেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও আজ নির্বাসনে। জিয়ার পরিবারকে ধবংসের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে মিথ্যা সাজানো মামলা দিয়ে তাকে কারাদন্ডসহ একের পর এক মামলা দিচ্ছে। এ অবস্থার অবসান ঘটিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি তরান্বিত করার আহ্বান জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আজির উদ্দিন চেয়ারম্যান, উপদেষ্টা আলহাজ শহীদ আহমদ চেয়ারম্যান, হাজী জমির উদ্দিন চেয়ারম্যান ও ইলিয়াস আলী মেম্বার, মোগলগাঁও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি বশির উদ্দিন মেম্বার, বিএনপি নেতা আব্দুর রহমান, রফিকুল ইসলাম, ওয়ারিছ আলী, আকবর আলী, আব্দুল খালিক, মনির উদ্দিন, এনাম মেম্বার, শফিক মেম্বার, মাছুম মিয়া, আজিজ খান সজিব, রুস্তুম, আঙ্গুর আলম, আবদাল হোসেন নাহিদ, ফরহাদ, ফারুক আহমদ, মনজুল আহমদ, গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ।



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: