সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বাক্ষর জালের অভিযোগ

কানাইঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী খাদিজা বেগম জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাতি রানী দাস। রোববার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে প্রভাতি রানী দাস আরও অভিযোগ করে বলেন, যে প্রার্থী ভোটারদের স্বাক্ষর জাল করে এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র জালিয়াতি করে মনোনয়ন দাখিল করেছেন, তিনি কিভাবে জনপ্রতিনিধি হয়ে সমাজে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করবেন।

লিখিত বক্তব্যে প্রভাতি রানী বলেন, কানাইঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী খাদিজা বেগমের মনোনয়নপত্রের সাথে সংযুক্ত স্বতন্ত্র প্রার্থীর জন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলার ২৫০ জন ভোটারের স্বাক্ষরযুক্ত তালিকায় ব্যাপক জালিয়াতির আশ্রয় নেওয়া হয়েছে। উক্ত তালিকায় মৃত ব্যক্তির নাম, স্বাক্ষর/টিপসই অন্তুর্ভুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে কানাইঘাট পৌরসভার রায়গড় গ্রামের অনেক জীবিত ও মৃত ব্যক্তির স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। খাদিজা বেগমের প্রদেয় তালিকার ক্রমিক নম্বর অনুযায়ী ১১৫ নম্বর মায়ারুন নেছা ২০১৭ সালের ১৩ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করেন। যা কানাইঘাট পৌরসভা ২০১৮ সালের পহেলা জুলাই মৃত্যু সনদ প্রদান করে। কিন্তু খাদিজা বেগমের সংযুক্ত ভোটারদের স্বাক্ষরযুক্ত তালিকায় মায়ারুন নেছাকে জীবিত দেখানো হয়েছে। এছাড়া সংযুক্ত তালিকায় ক্রমিক অনুসারে ১১৩ নম্বরে রায়গড় গ্রামের আজিজুর রহমান, ২২ নং ক্রমিকে সালমা বেগম, ৩৭ নং ক্রমিকে রোকেয়া বেগম, ৩৯ নং ক্রমিকে আফিয়া বেগম, ৭৪ নং ক্রমিকে মরিয়ম বেগম, ৭৭ নং ক্রমিকে জালাল উদ্দিন, ১৭৭ নং ক্রমিকে রাজিয়া বেগম, ১৭৮ নং ক্রমিকে হাজিরা বেগম এর স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। এদিকে, ডালাইচর গ্রামের রবি লালকে ১২৩/১৫৮ নং ক্রমিকে দুবার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ২১৫ নং ক্রমিকে পর্বতপুর গ্রামের জাকারিয়া আলম জামিলের স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। প্রভাতি রানী দাবি করেন উল্লিখিত কেউই খাদিজা বেগমের তালিকায় স্বাক্ষর/টিপসই প্রদান করেননি।

প্রভাতি রানী বলেন, খাদিজা বেগম শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র জালের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কর্মকর্তা তার মনোনয়পত্র বাতিল করেন। এর বিরুদ্ধে খাদিজা আপিল করলে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি তা শুনানী হওয়ার কথা রয়েছে। প্রভাতি রানী বলেন, কোনো আক্রোশ বা ব্যক্তিস্বার্থে নয় বিবেক এবং নৈতিকতার কারণে এই জালিয়াতির প্রতিবাদ করছি। আমি এই জালিয়াতির বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে অভিযোগ দিয়েছি এবং রিটার্নিং অফিসার বরবারেও অভিযোগ দাখিল করব। – বিজ্ঞপ্তি



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: