সর্বশেষ আপডেট : ১৭ মিনিট ১০ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেটের আদালতে বিচারক ও জনবল সংকট, মামলার জট

ইয়াহ্ইয়া মারুফ::
বিচারক ও জনবল সংকটে সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলার জট দেখা দিয়েছে। প্রাচীন ও প্রবাসী অধ্যুষিত এ জেলায় দিন দিন মামলার সংখ্যা বাড়লেও বৃদ্ধি করা হচ্ছে না বিচারক। শুধু তাই নয়, বিচারকের পাশাপাশি শূন্য রয়েছে লিগ্যাল এইড অফিসার, সেরেস্তাদার ও অফিস সহকারীর পদও। স্থবিরতা দেখা দিয়েছে দাফতরিক কাজেও। ফলে চরম দুর্ভোগে বিচারপ্রার্থীরা। আর লিগ্যাল এইড অফিসার না থাকায় অসহায়-নিপীড়িতদের যেন দুর্ভোগের শেষ নেই। এমন পরিস্থিতে দ্রুত বিচারক বৃদ্ধি, নির্ধারিত পদে বিচারক ও জনবল নিয়োগের জোর দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে।

জানা যায়, বর্তমানে সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ২৩ হাজার ৯২২টি মামলা বিচারাধীন আছে। এর মধ্যে ৫ বছর বা তার অধিক সময় ধরে বিচারাধীন মামলা ৩ হাজার ৪৯৬টি। এসব মামলার বিচারকার্য পরিচালনার জন্য মোট ২৯টি বিচারকের পদ রয়েছে। এর মধ্যে জেলা ও দায়রা জজসহ ৮ বিচারকের পদ শূন্য রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে লিগ্যাল এইড অফিসারের পদটিও। এছাড়া ২ জন সেরেস্তাদার ও ৭ জন অফিস সহকারীর পদও শূন্য।

সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলা দায়েরকারী বিশ্বনাথের এক প্রবাসী বলেন, ৫ বছর আগে মামলা করেছিলাম। প্রতি বছর ৩ মাসের ছুটি নিয়ে মামলা শেষ করার জন্য দেশে আসি। আদালতে আর বাড়িতে দৌড়াদৌড়ি করে দিন চলে যায়, মামলা আর শেষ হয় না।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, সিলেট জেলা ও দায়রা জজ ড. গোলাম মর্তুজা মজুমদার ৩১ ডিসেম্বর অবসরে যান। এরপর থেকে ওই পদটি শূন্য রয়েছে। অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-১-কে ভারপ্রাপ্ত জেলা জজের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রায় দুই মাস ধরে গুরুত্বপূর্ণ দুটি দায়িত্ব সামলাতে হচ্ছে একজনকে। অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজের পদ ৫টি থাকলেও নিয়োগ দেয়া হয়েছিল ৪ জনকে।একটি পদে কখনও নিয়োগ দেয়া হয়নি। ওই ৪ জন থেকে পদোন্নতি ও বদলি হয়ে ২ জন চলে যাওয়ার পর দীর্ঘদিন ধরে পদ দুটি শূন্য রয়েছে। বর্তমানে ২ জন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রয়েছেন। এর মধ্যে একজনকে ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজের দায়িত্বও পালন করতে হচ্ছে।

শিক্ষানবিস ৫ জন বিচারকের একজনও নেই। লিগ্যাল এইড অফিসার, ২ জন সেরেস্তাদার ও ৭ জন অফিস সহকারীর পদও শূন্য রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। জানতে চাইলে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম বলেন, বিচারক সংকটে মামলাজট সৃষ্টি হওয়াটা অস্বাভাবিক নয়। লিগ্যাল এইড অফিসার, সেরেস্তাদার ও অফিস সহকারী পদে জনবল না থাকায় দাফতরিক কাজেও স্থবিরতা দেখা দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে আশার দিক হল- ২৪ ফেব্রুয়ারি ৫ জন শিক্ষানবিস বিচারকের পদায়ন হচ্ছে। অন্যান্য শূন্য পদগুলোরও পদায়ন জরুরি। বিশিষ্ট আইনজীবী অ্যাডভোকেট এমাদুল্লাহ শহিদুল ইসলাম শাহিন বলেন, মামলার তুলনায় সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নির্ধারিত বিচারকের পদ সংখ্যা পর্যাপ্ত নয়। এর মধ্যেও যদি বিচারকের পদ শূন্য রাখা হয়, তাহলে তো বিচার কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়াই কঠিন। বার কাউন্সিলের সদস্য ও সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি রুহুল আনাম চৌধুরী মিন্টু জেলা জজ এবং অতিরিক্ত জেলা জজসহ গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে দ্রুত পদায়নের জোর দাবি জানিয়েছেন।



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে. এ. রাহিম. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: