সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেট সদরে আশফাকের মনোনয়ন লাভে আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ

ইদ্রিছ আলী, অতিথি প্রতিবেদক ::

উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে সিলেটের ১৩টির মধ্যে ১১টি উপজেলায় আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ঘোষণা করা হয়েছে। এ ঘোষণায় বিভিন্ন উপজেলায় উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। সদর উপজেলায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে।

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সিলেট সদরে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন সদর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আশফাক আহমদ। তবে মনোনয়ন দৌঁড়ে তাঁর সাথে ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি প্রকৌশলী এজাজুল হক এজাজ। আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা গেছে, তৃণমূল জরিপ ও জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে দল থেকে আশফাক আহমদকে চূড়ান্তভাবে নৌকার মাঝি হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

নেতাকর্মীদের প্রিয় মুখ আশফাক আহমদ দলের প্রার্থী হিসেবে অনুমোদন পাওয়ায় গতকাল রোববার সকালে সিলেট সদর উপজেলায় উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকেও দিনভর বেশ সরব ছিলেন নেতাকর্মীরা। দলের প্রধান শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে সেই উৎসবেরই বহি:প্রকাশ করেন তারা।

সদর উপজেলার বাসিন্দা জুনেদ, মাহদী, নিপা বেগম, আনোয়ারাসহ সাধারণ ভোটাররা জানান, উন্নয়নমুখী ও সেবামূলক মনোভাবের কারণে আশফাক আহমদ এ উপজেলার মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন। তিনি উপজেলাবাসীর সেবার লক্ষ্যে দিন-রাত কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। দশ বছরে আশফাক যে উন্নয়ন করেছেন তা বিগত ২০ বছরেও হয়নি। আশফাকের আমলেই গোটা উপজেলায় অসংখ্য রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট নির্মাণ হয়েছে। নির্মাণ হয়েছে স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসায় বহু নতুন নতুন ভবন। উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন তারই অবদান এবং দীর্ঘদিন ধরে খানাখন্দে জরাজীর্ণ হয়ে থাকা উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কগুলো তিনি সংস্কার করেছেন বলে মনে করেন এলাকাবাসী।

উপজেলার এমন কোন মসজিদ ও মন্দির নেই যেখানে তার উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি এমন দাবি করে সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পদক ও যুবলীগ নেতা ইকলাল আহমদ বলেন, আশফাক আহমদ একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ। গ্রামীন সড়কগুলোতে সিসি অথবা আরসিসি ঢালাই করে দিয়েছেন তিনি। তাই আমার বিশ্বাস দলমত নির্বিশেষে সবাই এবারও ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন আশফাক আহমদকে।

সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ বলেন, আওয়ামী লীগ শুধুমাত্র একটি রাজনৈতিক দল নয় এটি একটি পরিবার। আমাদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কোনো ভেদাভেদ নেই। এখানে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকা প্রতীকের পক্ষে কাজ করেছে এবং করবে। তিনি বলেন, উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে আবারো নৌকা প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন।ইন্নাশাআল্লাহ সদর উপজেলাবাসী নৌকা প্রতীকের বিজয় উপহার দিতে সক্ষম হবে।

সদর ছাড়াও উপজেলা নির্বাচনে সিলেটের অন্যান্য উপজেলায় দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন নুনু মিয়া (বিশ্বনাথ), মোস্তাকুর রহমান মফুর (বালাগঞ্জ), জাহাঙ্গীর আলম (কোম্পানীগঞ্জ), গোলাম কিবরিয়া হেলাল (গোয়াইনঘাট), লিয়াকত আলী (জৈন্তাপুর), মোমিন চৌধুরী (কানাইঘাট), লোকমান উদ্দিন চৌধুরী (জকিগঞ্জ), ইকবাল আহমদ চৌধুরী (গোলাপগঞ্জ), আতাউর রহমান খান (বিয়ানীবাজার) এবং আবু জাহিদ (দক্ষিণ সুরমা)।

সিলেটের ১৩ উপজেলার মধ্যে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নামের তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। যে কারণে এ উপজেলায় একক প্রার্থীর নাম এখনো ঘোষণা হয়নি বলে জানান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী। এ ছাড়া, ওসমানীনগর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন ২০১৭ সালের মার্চে অনুষ্ঠিত হওয়ায় মেয়াদ পূর্তির এখনো তিন বছর সময় রয়েছে। তাই এ উপজেলায় নির্বাচন হচ্ছে না বলেও জানান তিনি।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি। মনোনয়নপত্র বাছাই ২০ ফেব্রুয়ারি। ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: এ. আর. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: