সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ১৫ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৯ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সংশোধন নয়, রাজস্ব লক্ষ্য পূরণের তাগিদ

নিউজ ডেস্ক:: চলতি অর্থবছরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) রাজস্ব আদায়ে ২৭ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা ঘাটতি রয়েছে। এ ঘাটতি কাটিয়ে লক্ষ্যমাত্রা পূরণে কঠোর নির্দেশ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। মন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, আগামী অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ে লক্ষ্যমাত্রা বাড়ানো হবে। এ লক্ষ্যমাত্রা পূরণেও এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে হবে। রাজস্ব আদায়ে কোনো ছাড় নেই। শহরের বাইরে রাজস্ব জালের বিস্তারে এনবিআর কর্মকর্তাদের মনোযোগী হতে হবে। এনবিআর সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর দেশের অভ্যন্তরীণ সম্পদ থেকে আয় বাড়াতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছেন তিনি। অর্থবছরের ছয় মাস পার হতে না হতেই বড় অঙ্কের ঘাটতিতে বাধ্য হয়েই রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করা হয়। বিগত দিনে এ ধারা চললেও চলতি অর্থবছরে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করা হবে না বলে অর্থমন্ত্রী এনবিআর কর্মকর্তাদের জানিয়ে দিয়েছেন।

রাজস্ব আদায়ে নতুন কৌশল নির্ধারণে এরই মধ্যে এনবিআরের রাজস্ব আদায়ের তিন শাখা আয়কর, ভ্যাট ও শুল্ক শাখার কর্মকর্তাদের সঙ্গে পৃথকভাবে বৈঠকে বসছেন। গত ৩ ফেব্রুয়ারি আয়কর শাখার কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। রাজধানীর শেরেবাংলানগরে এনইসি সম্মেলনকক্ষে আজ বুধবার ভ্যাট শাখার এবং আগামীকাল বৃহস্পতিবার শুল্ক শাখার কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

এনবিআর সূত্র আরো জানায়, আয়কর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে অর্থমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, রাজস্ব ঘাটতিতে চলতি অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করা হবে, এমন ধারণা থেকে সরে এসে লক্ষ্যমাত্রা পূরণে মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে হবে। আগামী অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রা বাড়ানো হবে। অধিক সংখ্যক মানুষকে কর জালে আনা সম্ভব হলে আয়কর আদায় কয়েক গুণ বাড়বে। রাজস্ব জালের বিস্তারে এখন থেকেই এনবিআরকে প্রস্তুতি নিতে হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে অর্থমন্ত্রীর দেওয়া নির্দেশনা সামনে রেখে এনবিআরের আয়কর শাখা থেকে তৈরি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ৩ ফেব্রুয়ারির বৈঠকে অর্থমন্ত্রী প্রতিটি উপজেলায় রাজস্ব দপ্তর স্থাপনের কাজ দ্রুত শেষ করতে নির্দেশ দিয়েছেন। এনবিআর মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের শহরের বাইরে জেলা ও উপজেলা শহরে অধিক গুরুত্ব দিতে বলেছেন। কোনো এনবিআর কর্মকর্তাকে বিভাগীয় শহরের বাইরে বদলি করা হলে যুক্তিসংগত কারণ ছাড়া আপত্তি করলে তা মেনে নেওয়া হবে না।

এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়মিত মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের রাজস্ব আদায় কার্যক্রম তদারকিতে নির্দেশ দিয়েছেন। বর্তমানে করদাতার সংখ্যায় (৩৩ লাখ ছাড়িয়েছে) অর্থমন্ত্রী সন্তুষ্ট নন জানিয়েছেন। তিনি করদাতার সংখ্যা চলতি বছরের মধ্যে দ্বিগুণ করতে কর্মকর্তাদের মনোযোগী হতে বলেছেন। আগামী অর্থবছরে কর বাড়ানোর পরিবর্তে কোন কোন খাতে কর কমালেও রাজস্ব না কমে বরং বাড়বে তার হিসাব কষে প্রতিবেদন তৈরি করে অর্থমন্ত্রীর কাছে জমা দিতে বলেছেন।

অর্থমন্ত্রী বৈঠকে জানান, আয়কর পরিশোধে করদাতাদের উৎসাহিত করতে হবে। এ ক্ষেত্রে কঠোর ব্যবহার করে নয় বরং তার কাছে কর পরিশোধের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরতে হবে। এনবিআর সদস্য কানন কুমার বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী আয়কর আদায়ে লক্ষ্যমাত্রা পূরণে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। চলতি অর্থবছরে আয়করে লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করা হবে না।’

এনবিআর ভ্যাট শাখার সদস্য রেজাউল হাসান বলেন, ‘আজ বুধবার অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক। তিনি যে নির্দেশনা দেবেন আমরা তা সামনে রেখে রাজস্ব আদায় করব। অনলাইনে ভ্যাট আদায়ে এনবিআর প্রস্তুত।’

চলতি অর্থবছরে এনবিআরের রাজস্ব আদায়ে লক্ষ্যমাত্রা দুই লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা। গত ডিসেম্বর পর্যন্ত অর্থবছরের ছয় মাসে রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি ২৭ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা। এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘এনবিআর চলতি অর্থবছরে রাজস্ব ঘাটতি কাটিয়ে উঠতে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে। অর্থমন্ত্রীর নির্দেশনা সামনে রেখে রাজস্ব আদায়ে কৌশল নির্ধারণ করা হচ্ছে।’




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: এ. আর. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: