সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেট অঞ্চলে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাড়াতে হবে

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এমপি বলেছেন, দেশের তরুণ প্রজন্মের উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক। বেকারত্ব দূর করতে শিক্ষার মান উন্নয়ন, গুণগত শিক্ষা ও তরুণদেরকে প্রশিক্ষণের ওপর সরকার বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। এ লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় বর্তমান সরকার অনেকগুলো উদ্যোগ হাতে নিয়েছে।

শনিবার সিলেটে পৃথক পৃথক অনুষ্ঠানে ড. মোমেন এ এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, দেশের জন্য মানব সম্পদ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই সম্পদকে কাজে লাগাতে না পারলে তা অভিশাপে পরিণত হয়। বাংলাদেশের বিশাল জনগোষ্ঠীর বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। দেশের সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য এবং দেশের উন্নয়নে তাদের মেধাকে কাজে লাগাতে যুবকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তুলতে সরকার বদ্ধপরিকর।
এমসি কলেজে সেমিনার
সকাল ১১টায় সিলেটের মুরারি চাঁদ কলেজ (এমসি কলেজ) অডিটোরিয়ামে ‘কলেজ পর্যায়ে উচ্চ শিক্ষার মানোন্নয়নে প্রাতিষ্ঠানিক উন্নয়ন মঞ্জুরি’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে ড. মোমেন বলেন, দেশের জন্য মানব সম্পদ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই সম্পদকে কাজে লাগাতে না পারলে তা অভিশাপে পরিণত হয়। বাংলাদেশের মোট জনগোষ্ঠীর ৪৯ শতাংশের বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। দেশের সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য এবং দেশের উন্নয়নে তাদের মেধাকে কাজে লাগাতে তাদেরকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তুলতে সরকার বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে লেখাপড়ায় সিলেটের অবস্থান এক সময় খুবই ভাল ছিল। এখন অন্যান্য এলাকার চেয়ে এ অঞ্চলের অবস্থান নি¤েœ রয়েছে। এ থেকে উত্তরণের জন্য এ অঞ্চলে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা আরো বাড়াতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো উন্নয়ন বিগত ১০ বছরে যা হয়েছে তার চেয়ে আরো বেশি প্রয়োজন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে কলেজ এডুকেশন ডেভলামেন্ট প্রজেক্ট (সিইডিপি) এর আওতাধীন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভূক্ত অনার্স/ মাস্টার্স পর্যায়ে পাঠদানকারী নির্দিষ্ট সংখ্যক কলেজকে শিখন-শিক্ষণ পরিবেশের মান উনোন্নয়নের লক্ষে প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে ইন্সটিটিউশনাল ডেভলাপমেন্ট গ্রান্ট (আইডিজি) প্রদান করা হবে। সেমিনারে জানানো হয় এ প্রকল্পের আওতায় ১ হাজার ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশে কলেজ শিক্ষার মান উন্নয়নে এটি প্রথম প্রকল্প। এ প্রকল্পের আওতায় পর্যায়ক্রমে গৃহীত সকল পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে। প্রাথমিকভাবে সিলেট অঞ্চলে ১১২টি কলেজ এ প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে। দেশের মধ্যে এ প্রকল্পের অধীনে ১৬ হাজার ৫৭৫ জন কলেজ শিক্ষককে দেশে ও বিদেশে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।
এমসি কলেজ রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান প্রফেসর শামীমা চৌধুরীর উপস্থাপনায় সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ অতিরিক্ত সচিব ড. মো. মাহামুদ উল হক, গ্লোবাল এডুকেশন প্র্যাকটিস, বিশ্বব্যাংক এর টাস্ক টিম লিডার ড. মো. মুখলেছুর রহমান, এমসি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক নিতাই চন্দ্র চন্দ ও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সিলেট অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর হারুনুর রশিদ। উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, সিলেট জেলা প্রশাসক কাজী এম. এমদাদুল ইসলাম প্রমুখ।

ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজে একাডেমিক ভবন উদ্বোধন

দুপুরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আব্দুল মোমেন সিলেট নগরীর সুবিদবাজারস্থ ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজে ৫তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন করেন। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে ৩ কোটি ১৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এ ভবন নির্মাণ করা হয়। গত সরকারের আমলে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এ ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

শনিবার দুপুরে এ ভবনের উদ্বোধন উপলক্ষে ব্লু-বার্ড ক্যাম্পাসে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ভবন উদ্বোধন শেষে সেখানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ড. এ. কে আব্দুল মোমেন। ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি সিলেট জেলা প্রশাসক কাজী এম. এমদাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ অতিরিক্ত সচিব ড. মো. মাহামুদ উল হক, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোহাম্মদ হানজাল। অনুষ্টানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ হোসনে আরা। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটির সদস্য এডভোকেট আব্দুর রকিব বাবলু। এতে কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আবুল মাল আবদুল মুহিতের নামে সফির উদ্দিন হাইস্কুল এন্ড কলেজে নতুন ভবনের নামকরণ
সিলেট সদর উপজেলার কান্দিগাও ইউনিয়নের জাঙ্গাইলস্থ সফির উদ্দিন হাইস্কুল এন্ড কলেজের নতুন ভবন উদ্বোধন ও অপর একটি নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আব্দুল মোমেন। শনিবার বিকেলে প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পাসে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে ১ কোটি ১৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৪তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবনের ফলক উন্মোচন করেন তিনি। একই সঙ্গে একই ক্যাম্পাসে ১ কোটি ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে আরেকটি নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন মন্ত্রী।

এ উপলক্ষে কলেজ মাঠে এক বিশাল সুধিসমাবেশের আয়োজন করা হয়। কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ মো. সুজাত আলী রফিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সুধিসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ড. এ. কে আব্দুল মোমেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোহাম্মদ হানজাল, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বজ্রগোপাল দে চৌধুরী। মানপত্র পাঠ করেন সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা শফিকুর রহমান। পরিচালনা করেন শিক্ষক অসীম তালুকদার।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক বলেন, এ প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন এবং নতুন ভবন নির্মাণে সদ্যসবেক অর্থমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সবেক সংসদ সদস্য আবুল মাল আবদুল মুহিত বিশেষ অবদান রেখেছেন। তিনি বাংলাদেশের একজন সফল অর্থমন্ত্রী, শিক্ষাবিদ, গবেষক, সাহিত্যিক সর্বোপরি একজন গুণী ব্যক্তিত্ব। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও ভাষা আন্দোলনে তাঁর অনন্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার স্বাধীনতা পদকে তাঁকে ভূষিত করেছে। আবুল মাল আবদুল মুহিতের আবদানের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটির সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত মোতাবেক নতুন একাডেমিক এ ভবনের নাম ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত ভবন’ নামকরণের ঘোষণা দেন।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. মোমেন কলেজের নতুন ভবনটি আবুল মাল আবদুল মুহিতের নামে নামকরণ করায় কলেজ কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আবুল মাল আবদুল মুহিতের প্রতি আপনাদের কৃতজ্ঞতাবোধ ও ভালবাসার এ নিদর্শনের কথা আমি তাঁকে জানিয়ে দেব। তিনি এ প্রতিষ্ঠানের সফলতা কামনা করে এ উন্নয়নে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা প্রশাসক কাজী এম. এমদাদুল ইসলাম, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) মো. আজবাহার আলী শেখ, সিলেট জেলা পরিষদ সদস্য মোহাম্মদ শাহানূর, সিলেট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, কান্দিগাও ইউনয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন, খাদিমপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট আফসর আহমদ, সিলেট জেলা বারের এপিপি এডভোকেট নূরে আলম সিরাজী, সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তি, সাংবাদিক মকসুদ আহমদ মকসুদ, মুক্তিযোদ্ধা মো. নাজিম উদ্দিন, স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. কাচা মিয়া। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভবকসহ এলাকার সর্বস্তরের বিপুলসংখ্যক লোকজন উপস্থিত ছিলেন।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: