সর্বশেষ আপডেট : ২১ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৫ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শহরে চিতাবাঘ, গৃহবন্দী কয়েক লাখ মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: শহরের রাস্তায় ঢুকে পড়ে চিতাবাঘ। রাস্তা ছেড়ে ঘরে পালিয়ে যায় লাখ লাখ মানুষ। চিতাবাঘটি শহরের গলিতে গলিতে ঘুরতে থাকে। পুরো শহর ফাঁকা হয়ে যায় মুহূর্তেই। কয়েক ঘণ্টা এমন থমথমে আর তান্ডবের পর চিতাটিকে বশে আনা সম্ভব হয়। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের জলন্ধর জেলায়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, শহরের রাস্তায় ঢোকার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চারজনকে কামড় দিয়েছিল চিতাবাঘটি। কয়েক ঘণ্টা শহরের অন্তত আট লাখ মানুষকে কার্যত গৃহবন্দী ছিল। দীর্ঘ ছয় ঘণ্টা পরে তাকে ধরে ফেলে বন্যপ্রাণী বিভাগের কর্মীরা।

শহরে চিতাবাঘ আতঙ্কের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার বাগানের কাছে বাসিন্দাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ছে চিতা বাঘটি। সেটিকে দেখতেই সেখানে জড়ো হয়েছিলেন অনেক মানুষজন। পাঁচিলের উপর উঠতেও দেখা যাচ্ছে বাঘটিকে।

অনেকে ভয়ে মাঠ থেকে বাঘটিকে তাড়াতে ঢিলও ছোঁড়ে। এক ব্যক্তি মইয়ের উপর উঠে চিতাকে ধরার জন্য তার উপর একটি জাল ছড়িয়ে দিতে চেষ্টা করছিলেন, চিতাটি লাফিয়ে মই থেকে ওই ব্যক্তিকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। যাদেরই বাঘটি হামলা করে, সকলেই গুরুতর আহত অবস্থায় এখন চিকিৎসাধীন।

পাঞ্জাবের বন্যপ্রাণী বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, চিতাবাঘটি কোনোভাবে হিমাচল প্রদেশের পাহাড়ি এলাকা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। তারপর ক্ষেত ও বন-জঙ্গল পেরিয়ে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। প্রাথমিকভাবে জাল ব্যবহার করে বাঘটিকে ধরতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে রাবার বুলেট ছুড়তে বাধ্য হন তারা।

বন্যপ্রাণী বিভাগের কর্মীরা আরও জানিয়েছেন, অসংখ্য মানুষ চিতাবাঘ দেখতে ভিড় করেছে। ভয় পেয়ে নানাভাবে তারা বাঘটিকে উত্যক্ত করেছে। তাতে উদ্ধারকাজ আরও কঠিন হয়েছে। পুলিশ বাধ্য হয়ে জেলার কিছু সড়ক বন্ধও করে দেয়।

কর্মকর্তারা বলেন, চিতাবাঘটিকে ধরার পর স্থানীয় চিড়িয়াখানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। চিতাবাঘটিকে নিয়ে কী করা হবে সে সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে কয়েক দিনের জন্য সেখানে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: এ. আর. সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: