সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কোন কারণে আপনি ফ্রান্স ছেড়ে, অন্য কোনো দেশে আবাস গড়তে চান ?

সোহেল ইবনে হোসেন ::
ইউরোপের অন্য কোনো দেশ ছেড়ে কেও যদি ইংল্যান্ড বা পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে যদি নতুন করে আবাস গড়তে চায়, তা তারা করতেই পারে। কিন্তু ফ্রান্স ছেড়ে, অন্য কোনো দেশে গিয়ে স্থায়ী ভাবে থাকার কোনো যুক্তি আছে বলে আমি মনে করি না। আসুন আমরা ধাপে ধাপে আলোচনায় আসি।

প্রথমেই আসি ভাষা নিয়ে। এটা স্বীকার করে নিতেই হবে Shakespeare এর ইংরেজি Molière এর ফরাসি ভাষা থেকে এগিয়ে। এরপর ম্যান্ডারিন (চাইনিজ), স্প্যানিশ, আরবি বা হিন্দি ভাষা ফরাসি ভাষা থেকে বেশি অনুশীলন করা হয়। Organisation Internationale de la Francophonie, এর মতে ফরাসি এই মুহূর্তে রেঙ্কিংয়ে পঞ্চম স্থানে আছে। তবে তা পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। ২০৫০ সালের সালের মধ্যে এটি রেঙ্কিংয়ে তৃতীয় বা দ্বিতীয় স্থানে চলে যাবে । এর কারণ আফ্রিকার জনসংখ্যা বৃদ্ধি। বুর্কিনা ফাসোতে রাষ্ট্রীয় সফরের সময় প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রো বলেছেন ফরাসি ভাষাকে পৃথিবীর ১ নম্বর ভাষাতে নিয়ে আসতে হবে। ফরাসি ভাষা শিক্ষা স্কুল Alliance Française এর সূত্র মতে, দিন দিনই ফরাসি ভাষার জনপ্রিয়তা বাড়ছে। আমরা যদি শুধু ঢাকার দিকে তাকাই তাহলে দেখতে পাই, যেখানে ঢাকাতে মাত্র একটি Alliance Française ছিল সেখানে শুধু ঢাকাতেই এখন ৩ টি Alliance Française আছে। ঢাকাতে সম্পূর্ণ ফ্রেঞ্চ মিডিয়াম স্কুল আছে যেখান থেকে Baccalauréat ডিগ্রি দেওয়া হয়। ইংরেজি যেখানে ছিল সেখানেই আছে, কিন্তু ফরাসি ভাষার প্রসার দিনদিন বৃদ্দি পাচ্ছে। তবে এটা ঠিক ফ্রান্কো – বাংলাদেশী ছেলেমেয়েদের তার বাংলাদেশে অবস্থানরত আত্মীয় স্বজনদের সাথে ভাব আদান প্রদান করতে সমস্যা হয়। এটাকেও আমি কোনো বড় সমস্যা মনে করি না কারণ তারা ফ্রান্সের বাসায় বাংলাতে অনুশীলন করলেই পারে।
ফরাসি পাসেপোর্ট প্রসঙ্গে যদি আসি তাহলে বলতে হবে ফরাসি পাসেপোর্ট পৃথিবীর তৃতীয় শক্তশালী পাসেপোর্ট। জার্মানের সাথে যৌথ ভাবে ইউরোপের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসেপোর্ট হচ্ছে ফ্রেঞ্চ পাসেপোর্ট।

আমরা যদি টাইম জোন নিয়ে কথা বলি, তাতেও বর্তমানে ফ্রান্স এগিয়ে। যদিও এটা কোনো বড় ব্যাপার না। একসময় বলা হতো ব্রিটেনে কখনও সূর্য ডুবে না। ব্রিটেনের সেই আধিপত্য অনেক আগেই শেষ। এখন ফ্রান্সই একমাত্র দেশ যেখানে কখনো সূর্য ডুবে না। ফ্রান্স মেট্রোপলিটেনের সমুদ্রের ওপারে বিভিন্ন ফরাসি দীপগুলির কারণেই এটা বলা হচ্ছে। সেই আমেরিকা মহাদেশ থেকে শুরু করে এশিয়া, আফ্রিকা হয়ে তা শেষ হয়েছে অস্ট্রলিয়া/নিউজল্যান্ডে। আমেরিকা/রাশিয়ার যেখানে ১১ টি টাইম জোন ফ্রান্সের সেখানে ১৩ টি টাইম জোন। আর তাই এখনো বলা হয় ফ্রান্সে কখনো সূর্য ডুবে না।

সবশেষে আসি সরকারি ভাতা প্রসঙ্গে। ফরাসি মেডিক্যাল সিস্টেমের ধারে কাছে কেও নাই। বলতে পারেন পৃথিবীর কোন দেশে আছে মেডিক্যাল সমস্যার কারণে বিনা পয়সায় চিকিৎসা সেবা দেওয়ার পর তাকে স্থায়ী ভাবে থাকার সুযোগ দিয়ে তার চিকিৎসার সম্পূর্ণ ভারই শুধু নয় তাকে বিভিন্ন ভাতা দিয়ে রাষ্ট্র তার ভরণ পোষণের দায়িত্ব নিয়েছে ? কারণ ওই চিকিৎসা সেবা রোগীর নিজের দেশে নাই । যদিও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মানুষ এই মহানুভব সিস্টেমের অপব্যবহার করার কারণে, তা দিন দিন কঠিন হয়ে যাচ্ছে। ফ্রান্সের অবসর ভাতা, স্বাস্থ্য সেবা, বেকার ভাতা সহ বিভিন্ন ভাতা দেওয়ার যে সিস্টেম বর্তমানে আছে, তা শুধু ইউরোপ কেন, পৃথিবীর কোথাও নাই। তবে এটা ঠিক ফ্রান্সে বিশেষ করে প্যারিস মেট্রোপলিটনে সরকারি বাসা পাওয়ার জন্য ভাগ্য থাকতে হয় এবং দীর্ঘদিন অপেক্ষা করতে হয়। তবে এই সমস্যাও সমাধান হওয়ার পথে। ইংল্যান্ডে যারা স্থায়ী ভাবে বসবাসের জন্য ফ্রান্স ছাড়ছে তাদের অজুহাত হলো “সন্তানদের মানুষ করা।” তারা মনে করে যে ইংল্যান্ডের ভাতা সিস্টেম ফ্রান্সের তুলনায় ভাল। কিন্তু কখনও তা নয়। শিক্ষা পদ্ধতি : ইংল্যান্ডের যেমন আছে University of Oxford বা University of Cambridge ফ্রান্সের তেমন আছে Sorbonne University বা Institut Pasteur । এখন আপনারাই বলেন, ফ্রান্স ছেড়ে যেতে চান কোন যুক্তিতে ?

লেখক : Président, Association Culturelle Franco-Bangladeshi




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: