সর্বশেষ আপডেট : ১৮ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মার্কিন কূটনীতিকদের কিছু হলে ‘দেখে নেবে’ যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ভেনিজুয়েলায় অবস্থানরত মার্কিন কূটনীতিকদের কোনো ‘ক্ষতি’ হলে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন বলেন, মার্কিন কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে ভেনিজুয়েলা কোনো পদক্ষেপ নিলে তা হবে আইনের শাসনের ওপর বড় রকমের আঘাত। তিনি ভেনিজুয়েলায় কোনো সহিংসতায় উসকানি না দিতে বাইরের দেশগুলোকেও সতর্ক করে দিয়েছেন।

জন বোল্টন এমন সময় এই হুঁশিয়ারি দিলেন, যখন যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশ ভেনিজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

এদিকে আগামীকাল বুধবার এবং আগামী ২ ফেব্রুয়ারি শনিবার সরকারবিরোধী বিক্ষোভের ডাক দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মদদপুষ্ট গুয়াইদো, যিনি গত বুধবার আচমকা নিজেকে ভেনিজুয়েলার ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। তাঁর ওই ঘোষণার মধ্য দিয়ে সেখানে নতুন করে রাজনৈতিক সংকট তৈরি হয়। যার এক মেরুতে আছেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো; আরেক মেরুতে গুয়াইদো।

মাদুরো গত মে মাসের নির্বাচনে জয়ী হয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নিলেও কারচুপির অভিযোগে বিরোধীরা তাঁকে প্রত্যাখ্যান করে। সেই সঙ্গে মাদুরোকে ক্ষমতাচ্যুত করতে আন্দোলনের ডাক দেয় তারা। ৩৫ বছর বয়সী গুয়াইদো এখন এই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

মাদুরো-গুয়াইদোর ক্ষমতার লড়াইকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রাজিল, কলম্বিয়া, আর্জেন্টিনাসহ প্রায় ২০টি দেশ এরই মধ্যে গুয়াইদোকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্টের স্বীকৃতি দিয়েছে। মাদুরোর পক্ষে আছে রাশিয়া, চীন, তুরস্ক ও মেক্সিকোসহ বেশ কয়েকটি দেশ।

ভেনিজুয়েলার সামরিক বাহিনী ও সুপ্রিম কোর্টও মাদুরোকে ‘বৈধ প্রেসিডেন্ট’ হিসেবে সমর্থন জানিয়েছে। অন্যদিকে স্পেন, জার্মানি, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের কয়েকটি দেশ গত শনিবার এক বিবৃতিতে বলেছে, মাদুরো আগামী আট দিনের মধ্যে আরেকটি সুষ্ঠু নির্বাচন না দিলে তারা গুয়াইদোকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে সমর্থন জানাবে।

হুগো শাভেজের উত্তরসূরি মাদুরো ইউরোপের এ শর্ত প্রত্যাখ্যান করেছেন এবং তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন। গত রবিবার সিএনএনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ৫৬ বছর বয়সী মাদুরো বলেন, ‘ভেনিজুয়েলা ইউরোপের কোনো দেশ নয়। তারা যে শর্ত দিয়েছে, সেটা ধৃষ্টতা ছাড়া আর কিছুই নয়।’ মাদুরো বলেন, ‘যারা প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমাকে মানতে চায় না, তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে আমি সব সময় প্রস্তুত।’ সমাজতান্ত্রিক মূল্যধারায় বিশ্বাসী মাদুরো দাবি করেন, ‘আলোচনার জন্য আমি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে একাধিক বার্তা পাঠিয়েছি। কিন্তু আমার কাছে মনে হয়েছে, তিনি আমাদের অবজ্ঞা করছেন।’

গুয়াইদোকে সমর্থন দেওয়ায় মাদুরো গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দেন। সেই সঙ্গে মার্কিন কূটনীতিকদের ভেনিজুয়েলা ছাড়তে ৭২ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেন তিনি। গত শনিবার সেই সময়সীমা শেষ হলেও মার্কিন কূটনীতিকরা ভেনিজুয়েলায় অবস্থান করছেন। যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, মাদুরোর নির্দেশে তাদের কূটনীতিকরা ভেনিজুয়েলা ত্যাগ করবেন না। গত রবিবার অবশ্য ভেনিজুয়েলার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এই সময়সীমা ৩০ দিন করা হতে পারে; যাতে দুই পক্ষ সমঝোতায় পৌঁছানোর সুযোগ পায়।

এদিকে এক টুইটার বার্তায় গুয়াইদো বলেছেন, মাদুরোর পদত্যাগ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে আগামীকাল বুধবার তাঁরা দুই ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি পালন করবেন। এ ছাড়া আগামী শনিবার হবে বিশাল সমাবেশ।

সূত্র : বিবিসি।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: