সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ১৯ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘মৃত ও প্রবাসীদের ভোট কাস্ট দেখাবে মঈন’

নিউজ ডেস্ক:: আগামী ৯ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের স্থগিত হওয়া তিন কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ। এ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মঈন উদ্দিন ওই তিন কেন্দ্রের মৃত ও প্রবাসী ভোটারদের ভোট আগের রাতেই কাস্ট করার ষড়যন্ত্র করছেন বলে অভিযোগ করেন বিএনপির প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূইয়া।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের সবুজবাগ এলাকায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। এ আসনের ১৩২ কেন্দ্রের মধ্যে ১২৯ কেন্দ্রের ফলাফলে সাত্তার ‘ধানের শীষ’ প্রতীকে পেয়েছেন ৮২ হাজার ৭২৩ ভোট আর মঈন উদ্দিন ‘কলার ছড়ি’ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭২ হাজার ৫৬৪।

সংবাদ সম্মেলনে আবদুস সাত্তার বলেন, স্থগিত তিন কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা থেকে মৃত ও প্রবাসে থাকা ভোটারদের বাদ দিলে আমার প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী থেকে আমি ভোটে বেশি থাকি। যেটি নির্বাচন কমিশন তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নিলে ওই তিন কেন্দ্রে পুনঃভোটের প্রয়োজন হবে না। তিন কেন্দ্রের মোট ভোটারদের মধ্যে মৃত ও প্রবাসে থাকা ভোটার সংখ্যা ৫৬৩।

তিনি বলেন, আমার প্রতিপক্ষের লোকজন প্রকাশ্যে বলে বেড়াচ্ছে যে, আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌসুমী বাইন হীরার মাধ্যমে যোগসাজশ করে মৃত ও প্রবাসী ভোটারসহ সব ভোট আগের রাতেই কাস্ট দেখিয়ে আমাকে পরাজিত করার ষড়যন্ত্র করছে। তবে ভোট দেয়ার ন্যূনতম সুযোগ পেলে সর্বোচ্চ ভোট আমার পক্ষেই পড়বে। অতীতের নির্বাচনগুলোতে ওই তিন কেন্দ্রে বিএনপির প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন সাত্তার।

তিনি আরও বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কতিপয় দুষ্কৃতকারী বাড়ি-বাড়ি গিয়ে হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বলছে যে, ৯ তারিখের পুনঃনির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রে যেন আমার দলীয় এজেন্ট কিংবা আমাকে ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে নতুবা জানমালের ক্ষতি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করবে। যার জন্য আমিসহ আমার দলীয় লোকজন চরম উৎকণ্ঠায় আছি।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক, সরাইল উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের তিনটি কেন্দ্রে অনিয়ম ও গোলযোগের কারণে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। স্থগিত হওয়া ওই তিন কেন্দ্র হলো- যাত্রাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সোহাগপুর (দক্ষিণ) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এ তিন কেন্দ্রের ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫৭৪। সাত্তার ১০ হাজার ১৫৯ ভোটে এগিয়ে। তিনটি কেন্দ্রই আশুগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত।স্বতন্ত্র প্রার্থী মঈন উদ্দিনের বাড়ি আশুগঞ্জ উপজেলার তালশহর গ্রামে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: