সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘আজ থেকে পড়াশোনা শুরু’

জীবন পাল: অনেক দিন ছুটি কাটিয়েছি। বই, পড়ার টেবিল থেকে অনেকটাই দুরে ছিলাম বলতে হবে। বাসার মানুষজন থেকেও পড়ার চাপ ছিলনা । ঘুম,খাওয়া-দাওয়া আর টিভি দেখা ছাড়া অন্য কোন কাজ ছিলনা। আজ থেকে আবার সেই সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠা,তড়িঘড়ি করে স্কুলের জন্য তৈরি হওয়া,ক্লাস,পড়া।  কথাগুলো সিলেট সরকারী অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী সালমা আক্তারের। সিলেট সরকারী অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাঠ্যপুস্তক উৎসব দিবস-২০১৯ অনুষ্ঠানে নিজের অভিমত ব্যক্ত করতে গিয়ে কথাগুলো বলেছে সে।

তার মতে, বছরের প্রথম দিন বই পেয়েছি। জিপিও-৫ পাওয়ার জন্য নয়,সুশিক্ষা অর্জনের জন্য শিক্ষা গ্রহণ করতে চাই।

বই হাতে পেয়ে উৎসব আনন্দে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী অহনা বলেন, প্রত্যেক বছরের প্রথম দিন আমাদের হাতে নতুন বই তুলে দেওয়া হয়ে থাকে। নতুন বছরের প্রথম দিনেই উপহার হিসেবে নতুন বই প্রদান করার জন্য আমাদের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।

এদিকে নতুন বই পাওয়ার আনন্দে ৪র্থ শ্রেণীর ওর্শী পাল জানায়, নতুন বই হাতে পেলাম। আনন্দ লাগছে। আজ থেকে পড়াশোনা শুরু করবো। ৭ম শ্রেণীর তাহিসা জামান নওশীনের অনুভূতিটা ছিল এরকম, নতুন বছরে প্ওায়া নতুন বইয়ের গন্ধটা আমার কাছে অনেক প্রিয়। আর নতুন বই পেয়েছি,ভাল লাগছে। ।

নতুন বই পেয়ে এক সাথে আনন্দ উল্লাস করতে দেখা গেল শ্রেয়শ্রী চক্রবর্ত্তী সৃষ্টি,আল আকসা,সুমাইয়া জামান,সানন্দা দেব বর্ষা,নিশাত তানিয়া প্রমির মত শত শত শিক্ষার্থীকে।
দশম পাঠ্যপুস্তক উৎসব দিবসে সিলেটে প্রাথমিকে ৭৬ লাখ ও মাধ্যমিকে ১ কোটি ৪৭ লাখ ৮৮ হাজার ২৪১ টি বই বিতরণ করা হয়েছে।

হাতে নতুন বই। চোখে আনন্দের ঝিলিক। মুখে উচ্ছ্বাস। কারো চোখ চকচকে মলাটে আবার কেউ নাড়াচাড়াতেই ব্যস্ত। নতুন বই হাতে পেয়ে বাঁধভাঙা উল্লাস। বছরের প্রথম দিনে নতুন বইয়ের ঘ্রাণে মাতোয়ারা শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (১ জানুয়ারি) সিলেটের সরকারী অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বেলা ১০টায় অনুষ্ঠিত হয় পাঠ্যপুস্তক উৎসব ২০১৯। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী। তিনি কয়েকজন শিক্ষার্থীর হাতে বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তক উৎসবের উদ্বোধন করেন। এ সময় নতুন বই পেয়ে উল্লাসে মেতে উঠে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সে উৎসবে যোগ দেন শিক্ষক ও অভিভাবকরা। সিলেটে প্রাথমিকে ৭৬ লাখ ও মাধ্যমিকে ১ কোটি ৪৭ লাখ ৮৮ হাজার ২৪১ টি বই বিতরণ করা হয়েছে।

এদিকে নগরীর বন্দরবাজারে দুর্গাকুমার পাঠশালা প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাজা জিসি হাই স্কুল ও মির্জাজাঙ্গাল বালিকা উচ্চ বিদ্যলয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আ.লীগ সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।
এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘শিক্ষাক্ষেত্রে এখন আর আমরা পিছিয়ে নয়। বিশ্বের শিক্ষিত দেশের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে আমাদের দেশ। বছরের প্রথম দিনে নবম শ্রেণি পর্যন্ত বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হচ্ছে। যা শিক্ষাক্ষেত্রে অবিস্মরণীয় পরিবর্তন নিয়ে আসবে। আওয়ামী সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপে প্রতি বছরের ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌছে দিয়ে বই উৎসব পালন করা হয়। শিক্ষাবান্ধব এ সরকারের অধীনে দেশ শিক্ষাক্ষেত্রে আরো এগিয়ে যাবে।’

এদিকে সরকারী অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নতুন বছরে নতুন বই পাওয়ার মত ভাল উপহার আর কিছু হতে পারেনা। সোনালী ভবিষ্যৎ গড়তে তোমরা অগ্রগ্রামী হও।
তিনি বলেন, শুধু মেধাবী হলেই হবেনা,শিক্ষার্থীদের মধ্যে দেশপ্রেম দেখতে চাই। মানুষের মত মানুষ হও, নতুন বছরে এটাই হউক তোমাদের শপথ। তোমাদের অঙ্গিকার।

শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশে জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন, আমাদের সময় লাইব্রেরীতে আসার পর আমরা বই সংগ্রহ করতে পরতাম। যার জন্য বই পেতে আমাদেরকে অনেক দিন অপেক্ষা করতে হত। সরকারের ব্যবস্থাপনায় যা আজ তোমরা বছরের প্রথম দিনেই পেয়ে যাচ্ছো।

তিনি বলেন, সরকারের ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে হলে শিক্ষার হার বাড়ানো ও শিক্ষার মানোন্নয়ন জরুরী। যে কাজটা তোমাদের করতে হবে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: