সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ১৬ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ভোটের মাঠে ৮টা-৪টা

জীবন পাল:

সকালে ভোট শুরুর দিকেই দূর্গাকুমার পাঠশালা কেন্দ্রে একজন দুজন করে ভোট দিতে আসতে শুরু করে ভোটাররা। যেখানে মোট ভোটার সংখ্যা ২৮৫৫ জন। তবে প্রথম দিকে অধিকাংশ ভোটাররা ছিল বয়স্ক। ভোট প্রদান শেষে ভোট কেন্দ্র থেকে বের হয়ে আসা কয়েকজনের সাথে কথা বললে তারা জানান, সুন্দর পরিবেশ। কোন ভয়ের কারণ দেখছিনা। আশা করছি সারাদিন সুন্দরভাবেই ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সুন্দরভাবে শেষ হউক,এটাই কামনা।
ষাটোর্ধ এক ভোটার জানান, ভোট দিয়েছি। অন্যদেরকে গিয়ে বলবো যাতে নির্ভয়ে ভোট দিতে আসেন। – মহসিন নামের এক ভোটার জানান, শান্তিপূর্ন হউক,এটাই প্রত্যাশা। ভিতরের পরবেশ ভাল। নাম না জানা আরেক প্রবীণ ভোটারের মতে, শুরুটা অত্যন্ত ভাল হয়েছে।
এখন ভাল ভাল করে শেষ হলেই হল। যা দেখলাম তাতে শঙ্কা মনে হয়নি। সকাল সকাল ভোট দিতে আসা সেলিনা বেগমের মতে, হয়রানী বা কোন সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়নি। অত্যন্তর সুন্দরভাবে নিজের ভোটটা দিয়ে বের হতে পেরেছি।
সকাল ৮টা ১০ মিনিটে এই কেন্দ্র পরিদর্শন করতে এসে বিএনপি প্রার্থী খন্দকার মুক্তাদির বলেন, বেশ কয়েকটি কেন্দ্র থেকে আমাদের এজেন্টের বের করে দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যার উপস্থিতিটা কম দেখা গেছে। আতঙ্ক ছড়ানোটা স্বার্থক হয়েছে বলতে হয়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে পারে। তবে কি হয় তাই দেখার বিষয়।
প্রিজাইডিং অফিসার হাবিবুর রহমান জানান,য়থারীতি ৮টায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। প্রত্যেক দলের এজেন্টদের সামনেই ভোট বাক্স খোলা হয়েছে। প্রথম দিকে উল্লেখ্যযোগ্য ভোটার এসেছে। সবাই বলেছে ভাল।

সকাল ৯টা ৪৬ মিনিটের দিকে সারদা হল কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে ভোট কেন্দ্রে বিভিন্ন দলের এজেন্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, নারী পুরুষ উভয় ভোটারা ভোট দিচ্ছেন। সবকিছু স্বাভাবিক রয়েছে।
এই কেন্দ্রের সহকারী প্রিজাইটিং অফিসার সামছুর নাহার জানান, ভোটার উপস্থিতি ভালই। এখন পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এ সেন্টারে পরিদর্শনে এসে আ’লীগ সভাপতি কামরান জানান, প্রচুর মহিলার পাশাপশি লাইন ধরে ভোট দিতে দেখলাম। বেলা বাড়ার সাথে সাথে আরো বাড়তে পারতে পারে। স্বচ্ছ ও সুন্দর হচ্ছে।

সকাল ৯টা ৪৬ মিনিটের সময় এ সেন্টারে ভোট দিতে এসে বিএনপি প্রার্থী খন্দকার মুক্তাদির অভিযোগ করে বলেন, কয়েকটি সেন্টারে আমাদের পুলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। আছি,শেষ পর্যন্ত থাকবো। তিনি বলেন, আতঙ্কের মধ্যে ভোটাররা ভোট দিতে এসেছেন। তার জন্য সকল ভোটারদের ধন্যবাদ দিতে হয়। এসময় তিনি লাইন ধরে দাড়ানো ভোটারদের নির্ভয়ে ভোট দেওয়ার কথা বলেন।
দুর্গাকুমার পাঠশালা কেন্দ্রে ১০টা ১১মিনিটে ভোট প্রদান করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মোহিত ও আ’লীগ প্রার্থী মোমেন। এসময় অথমন্ত্রী আবু মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ২০০৮ সালের মতই আনন্দঘন পরিবেশে নির্বাচন হচ্চে। উত্তজনাও আছে। শান্তিপূর্ন পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। যা দেখছি হয়তো ৮০% ভোট কাস্ট হতে পারে। অতিতে যা ছিল ৭০% এ।
সিলেট-১ আসনের আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, উৎসাহ নিয়ে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে এসে ভোট প্রদান করতে দেখেছি। প্রত্যেক কেেেন্দ্র সকল দলের পুলিং এজেন্টদের উপস্থিতি দেখতে পেয়েছি। এক কথায় গ্রঞন যোগ্য নির্বাচন হচ্ছে।

এদিকে সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোটারদের সমাগমটা ছিল চোখে পড়ার মত। যেখানে সাড়ে ১১টার মধ্যে প্রায় ১০০০ ভোট কাস্টিং হওয়ার কথা প্রিজাইডিং অফিসার থেকে জানা যায়। এ সেন্টারে ভোট দিতে এসে তানজিল সুলতানা নামের নতুন এক ভোটার জানান, জীবন প্রথম ভোট দিতে এসে অনেক ভাল লাগছে।
আনন্দঘন পরিবেশেই প্রথম ভোটটা দিতে পারছি। সেজন্য ভাল লাগাটা বাড়তি বলতে পারেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি জানাতে গিয়ে সিলেট র‌্যাব-৯ এর কোম্পানী কমান্ডার আলি হায়দার আজাদ জানান, সামগ্রিকভাবে দেশের অন্যান্য এলাকার চাইতে সিলেটের সাধারন জনগণ উৎসাহ-উদ্দিপনার মধ্যে ভোট দিচ্ছে। কয়েকটা কেন্দ্রে কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলেও সাময়িক সময়ের জন্য ভোট প্রদান বন্ধ রেখে পুনরায় চালু করা হলে ভোটাররা আবার শান্তিপূর্ন ভাবেই ভোট প্রদান করতে পারেন।
এইডেট হাই স্কুল কেন্দ্রেও ভোটারদের উপস্থিতি ভাল বলে জানান এই সেন্টারের প্রিজাইডং অফিসার তোহিদুল ইসলম। তার মতে,এই সেন্টারে মোট ২৫৮৭ ভোটারের মধ্যে সাড়ে ১২টা নাগাদ প্রায় ৪৫ % ভোট কাস্ট করা হয়। সংসদ নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে মোট ২১৫টি কেন্দ্রে ৫ লাখ ৪৪ হাজার ২১৯ জন ভোটার ছিলেন। এর মধ্যে ২ লাখ ৮৬ হাজার ২ শত ৬৯ জন পুরুষ এবং ২ লাখ ৫৭ হাজার ৫ শত ৭৫ জন নারী ভোটার।







নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: কে এ রহিম সাবলু, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪ (নিউজ) ০১৭১২৮৮৬৫০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: